kalerkantho


জোকস: যে কারণে আপুদের ঝগড়া বন্ধ!

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

১৮ অক্টোবর, ২০১৮ ১৮:৫৮



জোকস: যে কারণে আপুদের ঝগড়া বন্ধ!

বাসে খালি সিটে বসা নিয়ে দুই নারী ঝগড়া করছিল। কন্ডাক্টর কোনো যুক্তিতেই কাউকেই দমাতে পারছিল না। শেষে একটা সরল বুদ্ধি এল তার মাথায়।

কন্ডাক্টর: দুই আপজানরেই কইতাছি, আপনাগোর মধ্যে যিনি বয়সে বড় তিনি বসে যাবেন সিটে! 

একথার পর হঠাৎ সবাইকে অবাক করে দিয়ে ঝগড়া বন্ধ! দুই নারীর কেউ-ই আর বসলেন না। মুখে কথা নেই, সারা রাস্তা তারা দাঁড়িয়ে পার করলেন।

                                                (২)
হজ থেকে ফেরার পর থেকে মঞ্জুর সাহেব একদম যেন চুপচাপ হয়ে গেছেন। আগের মতো বন্ধুবান্ধব নিয়ে আড্ডা নেই, দেরি করে ঘুমানো নেই, টিভিতে ক্রিকেট খেলা নিয়ে আগ্রহ নেই...

বিষয়টি তার বিবি সাবের নজরেও এল।

হজে যাওয়ার আগে স্ত্রীকে সব সময়ে লাভ ইউ সুইটি, ডার্লিং, সুইট হার্ট, আমার পিঙ্ক পার্ল... আরো অনেক কিছু বলে মাতিয়ে রাখতেন। এখন সেসব শব্দও ভুলে গেছেন মনে হয়।

আজকাল বউকে ডাকতে হলে শুধু ‘পল্টুর মা’ বলে আওয়াজ দেন আস্তে করে। একদিন পল্টুর মা আর পারলো না। কঠিন মুখে স্বামীর সামনে গিয়ে দাঁড়ালো-

পল্টুর মা: পল্টুর বাপ! ব্যাপারটা কী? 
মঞ্জুর: কী ব্যাপার, পল্টুর মা! রেগে আছ কেন? 

পল্টুর মা: হাজি সাহেবদের কি স্ত্রীকে আদর করে ডাকাও নিষেধ!

মঞ্জুর: আল্লাহর ঘর জেয়ারত কইরা আসার পর থেইকা মিছা কথা কওয়া ছাইরা দিছি গো পল্টুর মা...

                                                (৩)
ডাক্তার: শরীর ভাল লাগছে না, তাড়াতাড়ি একজন ডাক্তার ডেকে আনো!
কম্পাউন্ডার: স্যার, আপনি নিজেই তো দেশসেরা ডাক্তার!
ডাক্তার: আরে গাধা! আমার ফিসওতো দেশে সবচেয়ে বেশি...সেজন্যেই তো বলছি অন্য ডাক্তার ডাক!



মন্তব্য