kalerkantho


জোকস : আমি কোথাকার ডাক্তার ইঞ্জিনিয়ার এমপি-মন্ত্রী হয়ে গেছি!?

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

১৮ সেপ্টেম্বর, ২০১৮ ১১:১৫



জোকস : আমি কোথাকার ডাক্তার ইঞ্জিনিয়ার এমপি-মন্ত্রী হয়ে গেছি!?

প্রতীকি চিত্র

জজ : আপনি বলছেন আপনি মাত্রাতিরিক্ত গতিতে গাড়ি চালাচ্ছিলেন না! তার পক্ষে কোনো মজবুত প্রমাণ?

আসামি : মান্যবর, আমি স্ত্রীকে আনতে গাড়ি চালিয়ে শ্বশুরবাড়ি যাচ্ছিলাম। সুতরাং আপনি বুঝতে...

জজ : আর বলতে হবে না... এই মামলা ডিসমিস... আমি বুঝে গেছি তুই সত্য বলছিস রে পাগলা...

                                                (২)

প্রেমিকা : তোমায় ভালোবেসে আমার সর্বনাশ হয়েছে। কিছুই হতে পারলাম না!

প্রেমিক : তো আমি কোথাকার ডাক্তার, ইঞ্জিনিয়ার, এমপি-মন্ত্রী হয়ে গেছি!?

                                                (৩)

বস : আজকাল অনলাইনে সবই বিক্রি হয়, বুঝতে পেরেছো?

মন্টুর বাপ : স্যার বুঝেছি। তবে একটা জিনিস মাথায় ঢুকে না! এই যে প্রতিদিন আমাদের এত এত বিবেক বিক্রি হয়- এটা কি অনলাইনে না অফলাইনে?

বস : তোমার মাথা এখন কাজ করতেছে না। তুমি যাও, পরে আড্ডা হবে...

                                                (৪)

দুপুরে বস তার রুম থেকে বের হয়ে সবার উদ্দেশ্যে ঘোষণা দিলেন-

আমার ওয়ালেটটা খুঁজে পাচ্ছি না। ড্রাইভিং লাইসেন্স, এটিএম কার্ড ছাড়াও ওতে ২০ হাজার টাকা ছিল... 

কিন্তু কেউ কোনো কথা বলছে না বসের ঘোষণার জবাবে।

এবার তিনি আবার বললেন-

ওয়ালেটটা আমাকে যে ফেরত দেবে তাকে এক হাজার টাকা পুরস্কার দেব!

পেছন থেকে একজন বললো : আমাকে দিলে পাঁচ হাজার দিমু...

                                                (৫)

গ্রামের সহজ সরল নারী নসিমনের স্বামী হঠাৎ মারা গেছে। তাকে জেরা করছে পুলিশ 

তদন্ত কর্মকর্তা : আপনার স্বামী হঠাৎ মারা গেল কী করে?

নসিমন : কেমতে কমু স্যার, আমি কিছুই জানি না!

তদন্ত কর্মকর্তা : জানি না মানে? আপনি-ই তো বললেন যে আপনার সামনেই মারা গেছে কিছুক্ষণ আগে!

নসিমন : পেরেশান হয়া বাড়িতে ঢুইকাই কইলো, ‘জলদি কিছু দেও আমারে, পেটে ইন্দুর দৌড়াইতাছে।’ তো আমি টিউবওয়েলের ঠাণ্ডা পানিতে ইন্দুর মারার বিষ গুইলা দিলাম। এরপর থেকে তো আর বিছনা ছাড়তেছে না!

তদন্ত কর্মকর্তা : বলেন কি? সাংঘাতিক তো!

নসিমন : এরপর আৎকা দেখলাম মুখ দিয়া ফেনা তুইলা... উঁ উঁ হুঁ হুঁ...



মন্তব্য