kalerkantho


জোকস: তোর পায়ে পড়ি ভাই, ভাবীর বাঁধনটা খুলে দে...

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

২ মে, ২০১৮ ১৫:৩৯



জোকস: তোর পায়ে পড়ি ভাই, ভাবীর বাঁধনটা খুলে দে...

কুখ্যাত সন্ত্রাসী হেলমেট জামান তখন তরুণ- সবে ছোটখাটো চুরি-ছিনতাই শুরু করেছে। একদিন দুপুরে বড় দাও মারতে এক বাসায় ঢুকে পড়লো। পুরো ফ্ল্যাটে শুধু ‘স্বামী-স্ত্রী’ রয়েছে। প্রথমে পুরুষটাকে পরে তার সঙ্গীনিকে বেঁধে ফেললো সে। এরপর হাত-পা বাঁধা লোকটির চোখের সামনে বিশাল ছুরি নাচিয়ে হুঙ্কার ছাড়লো: সোনা-দানা, টাকা-ডলার, মোবাইল কোথায় কী আছে জলদি বল!

সব নিয়ে নাও, সব দিয়ে দেব। শুধু ওর বাঁধনটা খুলে দাও। ওকে চলে যেতে দাও, প্লিজ...

পুরা লাইলি-মজনুর প্রেমকাহিনী দেখতেছি মনে হইতাছে!

প্লিজ, কথা বাড়িয়ো না! আমার এটিএম কার্ডটাও দেব পাসওয়ার্ডসহ। শুধু ওর বাঁধনটা খুলে দাও তাড়াতাড়ি...

এ তো দেখছি পুরাই ভেড়া! বউকে এত ভালোবাসে মানুষ! 

আরে ও আমার বউ না, পাশের ফ্লাটের ভাবী। আমারটা কিছুক্ষণের মধ্যেই এসে পড়বে! জলদি ভাই, তোর পায়ে পড়ি, ভাবীর বাঁধনটা খুলে দে...

ধুরন্ধর অপরাধী হেলমেট জামানের মাথা ঘুরে উঠলো, জ্ঞান হারিয়ে পড়ে গেল সে ফ্লোরে।

                                                 (২)

যতক্ষণ পর্যন্ত সে আমার গার্লফ্রেন্ড ছিল ততক্ষণ পর্যন্ত সে ছিল আমার প্রাণ। বিয়ের পর পরই ‘প্রাণঘাতী’ রূপ নিয়েছে!  -মন্টুর বাপের স্বগতোক্তি

                                                (৩) 

জামাল সাহেবকে অনেকক্ষণ ধরে উল্টে-পাল্টে পরীক্ষা করে কপালে ভাঁজ পড়ে গেল চিকিৎসকের।

চিকিৎসক: এমন কোনো পুরনো ধাঁচের রোগ রয়েছে যা ধরা যাচ্ছে না। আপনার কি মনে হয় যে কোনো কিছু ভেতর থেকে ধীরে ধীরে গ্রাস করছে- আপনাকে শেষ করে দিচ্ছে?

জামাল: স্যার, আস্তে বলেন। দরজার পাশেই আছে কিন্তু ও!



মন্তব্য