kalerkantho


জোকস: হেলমেট-জামানের অংক জ্ঞান ও মন্টুর বাপের পর্যবেক্ষণ

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

২৩ ডিসেম্বর, ২০১৭ ২১:২০



জোকস: হেলমেট-জামানের অংক জ্ঞান ও মন্টুর বাপের পর্যবেক্ষণ

                                                (১)

কুখ্যাত সন্ত্রাসী হেলমেট-জামানের বউ রঙ্গিলি রিমা স্বপ্নে দেখলো সে মারা গেছে। ফেরেস্তা তাকে জিজ্ঞেস করছে: বেহেস্ত চাও না দোজখ?

রঙ্গিলি রিমা: খালি দুনিয়ার থেইকা আমার মোবাইল ফোন আর চার্জারটা আইনা দাও। হেরপর এই জায়গারে স্বর্গ না নরক কী বানাই তা তুমি বইসা বইসা দেইখো!  
                                              (২)
গভীর রাতে এক ঘুম ভেঙ্গে এক পুলিশ দেখলো তার মানিব্যাগ খুলে টাকা সরাচ্ছে বউ। 

পুলিশ: অবাক হচ্ছি একজন পুলিশের বউ হয়ে তুমি এমন কাজ করছো?

স্ত্রী: মাত্র পাঁচ হাজার সরিয়েছি। এই নাও ৫০০ টাকা; আর মামলা এখানেই ডিশমিশ করে দাও।

পুলিশ: হ্যাঁ, এ তো দেখছি চোরের ওপর বাটপারি!

স্ত্রী: তুমি ভুলে গেছ? আমার বাপ একজন ব্যাংকার!  

                                                (৩) 
ক্লাসে যখন ছেলেরা হৈ চৈ করে তখন শিক্ষক ঝাড়ি মারেন: ক্লাসটারে কি মাছের বাজার বানাইতে চাস তোরা! নালায়েক, লাফাঙ্গার দল!

আর যখন মেয়েরা ক্লাসে হৈ চৈ করে তখন শিক্ষক বলেন: কী গল্প চলছে তোমাদের মাঝে? একটু আমাকে বলা যায়! -মন্টুর বাপের বচন
                                                (৪)
গার্লফ্রেন্ডের সঙ্গে ঝিলপাড়ে বসে একদিন বাদাম খেতে খেতে যে কংকর তুমি খেলাচ্ছলে ছুড়ে ফেলতে ঝিলের পানিতে, আজ বিয়ের পর সেই কংকরই তুমি খুঁজে তুলছো ডালের পেয়ালা আর ভাতের থালা থেকে- মন্টুর বাপের ডায়েরি থেকে 
                                                (৫)
জন্ম-মৃত্যু তো খোদার হাতে আর বান্দার হাতে আজকাল আছে শুধু মোবাইল ফোন- মন্টুর বাপের স্বগতোক্তি
                                                (৬)
আগে রাস্তায় দুইজনে মারামারি করতে দেখলে তৃতীয়জন দৌড়ে এসে ঝগড়া থামাতো। আর আজকাল তৃতীয় ব্যক্তি এসে পকেট থেকে মোবাইল ফোন বের করে ভিডিও করা শুরু করে- মন্টুর বাপের পর্যবেক্ষণ

                                                 (৭)
কুখ্যাত সন্ত্রাসী হেলমেট-জামান তখন স্কুলের ছাত্র। তার বাপ পাংচার-সেলিম তখন এলাকার টপ রংবাজ। ওদিকে অংক কোনোমতেই জামানের মাথায় ঢোকে না। শিক্ষক ক্লাসে খুব সহজ একটি প্রশ্ন করলেন তাকে: ধর তোমার আছে ১০টি আম আছে। তার থেকে দুইটি আম একজন নিয়ে নিল। এখন কয়টা আম তোমার কাছে?

জামান: ১০টা, স্যার।

শিক্ষক: আরে ১০টা থাকে কিভাবে? দুইটা তো নিয়ে গেল আরেকজন!

জামান: স্যার, আমি বাঁইচা থাকতে আমার কাছ থেইক্যা আম নিয়া যাইতে পারবো কেউ মনে করছেন আপনি?

শিক্ষক: বোকা ছেলে! ধর কেউ জোর করে নিল তোমার কাছে থেকে দুইটা আম। এরপর কী থাকে?

জামান: ১০টা আম আর একটা লাশ, স্যার! ওরে জায়গায়ই শেষ কইরা দিমু না...

শিক্ষক: ওরে বাপরে...



মন্তব্য