kalerkantho

‘চতুর্থ শিল্পবিপ্লবের চ্যালেঞ্জ নিয়েই সামনে এগিয়ে যেতে হবে’

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

৩০ মার্চ, ২০১৯ ২০:৩৪ | পড়া যাবে ৪ মিনিটে



‘চতুর্থ শিল্পবিপ্লবের চ্যালেঞ্জ নিয়েই সামনে এগিয়ে যেতে হবে’

তথ্যপ্রযুক্তির নানা উৎকর্ষের কথা তুলে ধরে দেশের বৃহত্তম শিল্পগোষ্ঠী বসুন্ধরা গ্রুপের ভাইস চেয়ারম্যান ও প্রযুক্তি প্রতিষ্ঠান টগি সার্ভিসেস লিমিটেডের (টিএসএল) ব্যবস্থাপনা পরিচালক সাফওয়ান সোবহান বলেছেন, আমরা এখন চতুর্থ শিল্পবিপ্লবের যুগে আছি। তাই এ যুগের চ্যালেঞ্জ গ্রহণ করেই সামনে এগিয়ে যেতে হবে।

শনিবার (৩০ মার্চ) বিকেলে রাজধানীর রেডিসন ব্লু হোটেলে আয়োজিত এক অনুষ্ঠানে তিনি একথা বলেন।

বাংলাদেশের তৈরি পোশাক খাতের উন্নয়নে কাজ করবে দেশের শীর্ষস্থানীয় ওয়ান-স্টপ আইটি সল্যুশন প্রোভাইডার টগি সার্ভিসেস লিমিটেড (টিএসএল)। এক্ষেত্রে টগি-র সঙ্গী হয়েছে বিশ্বের শীর্ষস্থানীয় প্রযুক্তি প্রতিষ্ঠান মাইক্রোসফট।

এ উদ্যোগের উদ্বোধন উপলক্ষে বর্ণাঢ্য এ অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়।

অনুষ্ঠানে টগি-র এমডি সাফওয়ান সোবহান বলেন, পরিবর্তন আনার সময় এখনই। ডিজিটালে রূপান্তর ও চতুর্থ শিল্প বিপ্লবের যুগ কেবল এখন আর প্রাবন্ধিক বিষয় নয়, বরং বর্তমানে আমরা এ সময়ের মধ্য দিয়েই যাচ্ছি। এ পরিবর্তনকে ফলপ্রসূ করতে আমরা প্রয়োজনীয় উপায়গুলো নিয়ে সামনে এগিয়ে যাবো। 

অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন শিল্পমন্ত্রী নুরুল মজিদ মাহমুদ হুমায়ূন। উপস্থিত ছিলেন বিজিএমইএ, বিকেএমইএ, বিটিএমইএ, এফবিসিসিআই, বিএএসআইএস এবং বিসিএস-এর নেতৃস্থানীয় ব্যক্তিরা। 

সাফওয়ান সোবহান বলেন, ‘বসুন্ধরা গ্রুপ বেসরকারি খাতে ব্যাপক বিনিয়োগ করেছে। বর্তমানে বসুন্ধরা গ্রুপ ৩০টিরও বেশি উদ্যোগ পরিচালনা করছে। এর প্রতিটি পদক্ষেপ কখনই এক মুহূর্তের জন্যেও হোঁচট খায়নি। 

বসুন্ধরা গ্রুপের ভাইস চেয়ারম্যান বলেন, দেশ ও দেশের মানুষের উন্নয়নে এই অবিরত প্রচেষ্টাকে সামনে রেখে অতি সম্প্রতি আইটি সল্যুশন ভেঞ্চার টগি সার্ভিসেস লিমিটেড এবং আমাদের পার্টনাররা এমন এক উদ্যোগ গ্রহণ করেছেন, যাকে বলা হচ্ছে ‘ডিজিটাল লিবারেশন’।  সত্যিকার অর্থেই কার্যকর ও যুগান্তকারী প্রযুক্তির মাধ্যমে প্রতিষ্ঠানকে এগিয়ে নিতেই আমরা কাজ করবো।

শিল্পমন্ত্রী নুরুল মজিদ মাহমুদ হুমায়ূন বলেন, তরুণ উদ্যোক্তরা দেশের ভবিষ্যৎ। আমি তাদের ধন্যবাদ জানাই। বিশেষ করে বসুন্ধরা গ্রুপ। তারা বিভিন্ন সেক্টরে নতুন নতুন বিনিয়োগের মাধ্যমে ভূমিকা রেখে চলেছেন। টগি তাদেরই সিস্টার কনসার্ন। 

তিনি বলেন, তৈরি পোশাক শিল্প একটি বড় খাত। আর সঠিক সময়েই এ খাতের অটোমেশনের কাজ কাজ শুরু করেছে টগি। সরকার তাদের সব ধরনের সহায়তা দিয়ে যাবে। আমাদের সমানের বড় চ্যালেঞ্জ কর্মসংস্থান সৃষ্টি। 

‘বিশ্ব এখন প্রতিযোগিতামুখী। এমন সময় আমাদের সামনে চলে এসেছে চতুর্থ শিল্প বিপ্লব। এক্ষেত্রে ব্যবসায়ীদের পাশে থাকবে সরকার।’

অনুষ্ঠানে টগি সার্ভিসেস লিমিটেডের চিফ অপারেটিং অফিসার আবু তৈয়ব বলেন, অ্যানালগ মানসিকতাকে ডিজিটালে রূপান্তরিত করাই বিশাল এক চ্যালেঞ্জ। একে মোকাবেলার জন্যে এমন এক সংস্কৃতি গড়ে তোলাই আমাদের লক্ষ্য যা প্রযুক্তির মাধ্যমে ত্বরান্বিত হবে।

‘প্রতিষ্ঠানকে ডিজিটাল করার আগে আমাদের নিজেদের মানসিকতাকে ডিজিটাল করতে হবে। এই অভিযাত্রায় অনিশ্চয়তা, বিপত্তি, জটিলতা থাকতে পারে এবং তা অনেক সময় উচ্চাকাঙ্ক্ষীও হতে পারে। নিজেদের স্বপ্নের বাস্তবায়নে আমাদের এই নতুন মানসিকতাকে বরণ করে নিতে হবে’, যোগ করেন তিনি। 

অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন মাইক্রোসফটের বাংলাদেশ, মিয়ানমার, নেপাল এবং ভুটানের ম্যানেজিং ডিরেক্টর সোনিয়া বশির কবীর। 

তিনি বলেন, একযোগে বাংলাদেশকে ডিজিটাল করার এ প্রয়াসে আমরা উদ্বেলিত। ডিজিটালে রূপান্তর শুরু হয় প্রযুক্তিকে ধারণের মধ্য দিয়ে এবং এ কাজে আমরা টগির মতো পার্টনার পেয়েছি। সম্মিলিত প্রচেষ্টার মাধ্যমে ডিজিটাল বাংলাদেশ গড়ার স্বপ্নকে আমরা সফলতার দিকে নিয়ে যাবো।

বিভিন্ন সেশনে বক্তব্য রাখেন- এইচসেনিড বিজনেস সল্যুশনসের হেড অব সেলস রিয়াজি সামসুদিন, এনচিঙ্গা ইনোভিশনস প্রাইভেট লিমিটেডের সিইও ইমালকালুতোতাগে, পোরোনির ইন্টারন্যাশনাল পার্টনার ম্যানেজার গুইসেপে ঘিসোনি এবং টগি সার্ভিস লিমিটেডের বিজনেস অ্যাপ্লিকেশন অ্যান্ড এমার্জিং টেকনোলজির বিজনেস চ্যাম্পিয়ন শাজাহান আহমেদ ও এনচিঙ্গা ইনোভেশনস প্রাইভেট লিমিটেডের পরিচালক (গ্লোবাল সেলস) মুদিথ মাদ্দুমারাচ্চি।

মন্তব্য