kalerkantho


গ্যালাক্সি এস৯ এবং এস৯ প্লাস: আইফোন এক্স এর চেয়েও ভালো?

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

১৮ মার্চ, ২০১৮ ১২:২০



গ্যালাক্সি এস৯ এবং এস৯ প্লাস: আইফোন এক্স এর চেয়েও ভালো?

বহুল আলোচিত ছিল কোরিয়ান জায়ান্টের ফ্ল্যাগশিপ স্মার্টফোন দুটো। স্যামসাং গ্যালাক্সি এস৯ এবং গ্যালাক্সি এস৯ প্লাস। গ্লোবাল মার্কেটে প্রভাব ছড়িয়ে দেওয়ার হাতিয়ান ছিল এ দুটো ফোন। গত বছরেও গ্যালাক্সি এস৮ এবং এস৮ প্লাস নিয়ে বিশেষজ্ঞদের মতামত তাদের সেরাদের আসনে রাখে। অ্যাপলের পাশে প্রায় সমানতালে চলে। তাই স্বাভাবিকভাবেই এস৯ এবং এস৯ প্লাস নিয়ে শুরু হয়েছে প্রযুক্তিবিদদের গবেষণা। 

গেজেটস ৩৬০ ডিগ্রির গবেষণায় বলা হয়, এর ডিজাইন আগের মডেল থেকেই দারুণ ছিল। তবে নতুন দুটোতে সামান্য পরিবর্তন আনা হয়েছে। এটা অবশ্য খারাপ হয়নি। মানুষ গ্যালাক্সি এস৮ সিরিজের ডিজাইন খুবই পছন্দ করে। দুটো ফোনই ৮.৫মিলি পাতলা দেহ নিয়ে এসেছে। অ্যালুমিনিয়ামের দেহ প্রমিয়াম ভাব দিয়েছে। তবে সামনে ও পেছনটা পিচ্ছিল মনে হতে পারে। দুটো ফোনের বেজেল-লেস ডিজাইন সত্যিকার অর্থেই চোখের সামনে দারুণ এক পর্দা দেখাবে। 

গ্লাসের পরত থাকা পেছনের অংশ তার ছাড়াই মোবাইলকে চার্জ করবে। গ্যালাক্সি এস৯ এর ৫.৮ ইঞ্চি পর্দা আর এস৯ প্লাসের ৬.২ ইঞ্চি পর্দা ঝকঝকে ছবি দেয়। 

এস৯ এর বাটনগুলোতে সহজেই আঙুল যায়। তবে পরেরটার জন্যে একটু কঠিন। বেশ বড় ফোন বলে সমস্যাটা হয়। এর ডেডিকেটেড বিক্সবাই বাটন দিয়ে অন্য কোনো কাজ করা যাবে না। 

স্যামসাং এখনও ৩.৫এমএম হেডফোন সকেট ব্যবহার করলেন ইউএসবি টাইপ-সি পোর্ট এবং একটি স্পিকার রয়েছে নিচে। দুটো ফোনেই মাইক্রোএসডি কার্ডের মাধ্যমে স্টোরেজ বাড়ানো যাবে ৪০০জিবি পর্যন্ত। ২০১৮ সালে একটা ফ্ল্যাগশিপ ফোনের যে অভিজাত চেহারা আপনারা দেখতে চান তা রয়েছে দুটোতেই।

বিভিন্ন দেশের জন্যে ভিন্ন চিপসেট ব্যবহার করা হয়েছে। কোয়ালকম স্ন্যাপড্রাগন ৮৪৫ কিংবা নিজেদের এক্সিনস ৯৮১০ রয়েছে ভেতরে। গ্যালাক্সি এস৯ ৪জিবি এবং এস৯ প্লাস ৬জিবি র‍্যাম পেয়েছে। দুটো ফোনই এসেছে স্যামসাং এক্সপেরিয়েন্স ৯ নিয়ে। অ্যান্ড্রয়েড ওরিও ৮.০ থাকছে। 

ক্যামেরার বিষয়ে নিশ্চিত থাকতে পারেন, এটা সেরা ক্যামেরার একটা। দুটো ফোনেরই সামনের ক্যামেরায় আছে ৮ মেগাপিক্সেল সেন্সর ও এফ/১.৭ অ্যাপারচার। ভালো আলোতে দুর্দান্ত ছবি ওঠে। এস৯ এর পেছনে সুপার স্পিড ডুয়াল পিক্সেল ১২ মেগাপিক্সেল এএফ সেন্সর আছে। ডুয়াল অ্যাপারচারে এফ/১.৫ মোড এবং এফ/২.৪ মোড দেওয়া হয়েছে। এস৯ প্লাসেরও পেছনের ক্যামেরাতেও ১২ মেগাপিক্সেল এফ সেন্সর ব্যবহৃত হয়েছে। ডুয়াল অ্যপারচার প্রযুক্তিতে ব্যবহৃত হয়েছে এফ/১.৫ মোড এবং এফ/২.৪ মোড। এসব ক্যামেরায় ৪কে ভিডিও রেকর্ডিং প্রযুক্তি দেওয়া হয়েছে। 

এস৯ ৩০০০এমএএইচ ব্যাটারি নিয়ে আসলেও দ্বিতীয়টি এসেছে ৩৫০০এমএএইচ ব্যাটারি নিয়ে। 

অনেক প্রযুক্তিবিদই মনে করছেন, অনেক ক্ষেত্রে অ্যাপলের আলোচিত আইফোন এক্স-কেও ছাড়িয়ে গেছে গ্যালাক্সি এস৯ এবং এস৯ প্লাস। এ দুটো ফোনের দাম আইফোন এক্স এর চেয়ে কম। কিন্তু সে তুলনায় পারফরমেন্স অনেক ভালো। কাজেই এদের আইফোন এক্স এর চেয়ে ভালো ফোন তো বলাই যায়। 
সূত্র : গেজেটস 


মন্তব্য