kalerkantho


কান্দাহারে অনলাইনে শিক্ষা নিচ্ছে আফগান তরুণীরা

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

১৯ জানুয়ারি, ২০১৮ ১২:০৩



কান্দাহারে অনলাইনে শিক্ষা নিচ্ছে আফগান তরুণীরা

তালেবানের সাবেক শক্ত ঘাঁটি কান্দাহারের এক ক্লাসরুমে কম্পিউটারের সামনে বসে বহু দূরে কানাডায় অবস্থানরত শিক্ষকের কাছ থেকে প্রশিক্ষণ নিচ্ছে আনাহিতা।
১৯ বছর বয়সী এই তরুণী গর্বের সঙ্গে জানায়, প্রতিদিন সে যুক্তরাষ্ট্র ও কানাডায় অবস্থানরত শিক্ষকদের কাছ থেকে প্রশিক্ষণ নিচ্ছে।
আনাহিতা সম্প্রতি তার ক্লাসরুম থেকে বার্তা সংস্থা সিনহুয়াকে বলেন, ‘সময় বদলে গেছে। আফগানিস্তানের উন্নয়নের জন্য নারী শিক্ষা অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ।’
আফগান নারীদের ঐতিহ্যবাহী পোশাক পরিহিত আনাহিতা কান্দাহার ও আফগানিস্তানের সকল নারীকে শিক্ষা নেয়ার অনুমোদন দিয়ে দেশ ও জাতিকে সেবা করার সুযোগ দেয়ার আহ্বান জানান।
তিনি বিদেশী শিক্ষকদের সঙ্গে কথা বলার জন্য স্কাইপি ব্যবহার করেন।
আনাহিতা বলেন, ‘আমি এখানে প্রতিদিন আসি এবং নিয়মিত অনলাইন শিক্ষা কেন্দ্রের মাধ্যমে ক্লাসে অংশ নেই। এতে আমার জ্ঞানের পরিধি বাড়ে। আমি দেশের সকল নারীকে এই ক্লাসে অংশ নেয়ার আহ্বান জানাচ্ছি। কারণ আফগানিস্তানের উন্নয়ন ও অগ্রগতি নারী শিক্ষার ওপরই নির্ভরশীল।’
তিনি ও তার সহপাঠিরা কান্দাহার ইনস্টিটিউট অব মর্ডান স্টাডিজ (কেআইএমএস) এর কাছে কৃতজ্ঞ।
জঙ্গিগোষ্ঠী তালেবানের জন্মভূমি হিসেবে পরিচিত কান্দাহারে গত দুই বছরে বেসরকারি শিক্ষাকেন্দ্র কেআইএমএস তাদের শিক্ষা কার্যক্রম পরিচালনা করছে।
প্রতিষ্ঠানটি নারীদের জন্য অনলাইনের মাধ্যমে যুক্তরাষ্ট্র ও কানাডার শিক্ষকদের কাছ থেকে প্রশিক্ষণ গ্রহণের ব্যবস্থা করেছে।
তালেবান জঙ্গিরা ১৯৯০ এর দশকে কান্দাহারে আবির্ভূত হয় এবং আফগানিস্তানের ৯০ শতাংশ অঞ্চল দখল করে। ২০০১ সালের শেষ দিকে তাদের পতন ঘটে। তালেবানরা নারী শিক্ষা নিষিদ্ধ করে তাদেরকে ঘরের মধ্যে সীমাবদ্ধ রাখে।
কেআইএমএস-এর আরেকজন শিক্ষার্থী ২০ বছর বয়সী হাসিনা জানান, তালেবান শাসন আমলে কান্দাহারের প্রতিটি ছেলে মেয়ের স্বপ্ন ছিল স্কুলে যাওয়া।
এই তরুণী আরো বলেন, ‘ কোন একদিন কান্দাহারে শান্তি ফিরে আসবে এবং আমরা স্কুলে যেতে পারব নিঃসন্দেহে এটি আমাদের সকলের স্বপ্ন ছিল। আল্লাহকে ধন্যবাদ যে আজকে কান্দাহারে শান্তি ফিরে এসেছে এবং আমরা ইন্টারনেটের মাধ্যমে স্কাইপি ব্যবহার করে শিক্ষা নিতে পারছি।’
উৎফুল্ল হাসিনা বলেন, ‘এখন আমরা শান্তিতে আছি এবং অনলাইনের মাধ্যমে হাজার হাজার মাইল দূর থেকে বিদেশী শিক্ষকরা আমাদের আন্তর্জাতিক মানের শিক্ষা দিচ্ছেন।’
তালেবান জঙ্গিগোষ্ঠীর এক সময়ের শক্তঘাঁটি কান্দাহারে এক সময় রক্তক্ষয়ী সন্ত্রাসী হামলা থেকে শুরু করে আত্মঘাতী গাড়ি বোমা হামলা, বেসামরিক লোকের ওপর হামলা ও নারীদের ওপর এসিড নিক্ষেপ ছিল নিত্য নৈমিত্তিক ব্যাপার।
এক দশকের বেশি সময় ধরে এই অবস্থা চলছিল।
বিগত কয়েক বছর ধরে কান্দাহারের পরিস্থিতি পাল্টে গেছে। এটি এখন আফগানিস্তানের একটি তুলনামূলক শান্তিপূর্ণ প্রদেশে পরিণত হয়েছে।
কেআইএমএস এর প্রধান আহসানুল্লাহ্ আহসানের মতে কানাডা ও যুক্তরাষ্ট্রের শিক্ষকরা অনলাইনের মাধ্যমে এখন পর্যন্ত কান্দাহারের ৫শ’ ৫০ জন নারীকে অবৈতনিক শিক্ষা দিয়েছেন।
কেআইএমএস ভবিষ্যতে তাদের কার্যক্রম আরো বাড়াতে পারবে বলে তিনি আশাবাদী।



মন্তব্য