kalerkantho


নতুন ফোন কিনতে বাধ্য করতে পুরোনো ফোন নষ্ট করে দিচ্ছে অ্যাপল!

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

২০ ডিসেম্বর, ২০১৭ ১৯:৫৩



নতুন ফোন কিনতে বাধ্য করতে পুরোনো ফোন নষ্ট করে দিচ্ছে অ্যাপল!

মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের স্মার্টফোন নির্মাতা কম্পানি অ্যাপল তার ক্রেতাদেরকে কম্পানিটির নতুন স্মার্টফোন কিনতে বাধ্য করার জন্য পুরোনো মডেলের ফোনগুলিতে খারাপ ব্যাটারি দিয়ে সেগুলোকে ধীরগতির করে দিচ্ছে। এমনটাই দাবি করেছে স্মার্টফোন পারফর্মেন্স টেস্টিং কম্পানি গিকবেঞ্চ।

এক ব্লগ পোস্টে গিকবেঞ্চ জানিয়েছে, তারা অ্যাপল আইফোন ৬এস এর বেশ কয়েকটি স্মার্টফোন ডিভাইস বিশ্লেষণ করে দেখতে পেয়েছে, সেগুলোর কার্যক্রম মারাত্মকভাবে ধীর হয়ে গেছে। ওই ফোনগুলোতে যেদিন থেকে আইওএস ১০.২ এর জায়গায় ১০.২.১ অপারেটিং সিস্টেম ব্যবহার করা শুরু হয়েছে সেদিন থেকেই এমনটা ঘটছে।

ছোট্ট একটি সফটওয়্যার আপডেট থেকে এমনটা ঘটছে। যা থেকে বুঝা যায় কম্পানিটি জেনেশুনে এবং পরিকল্পিতভাবেই পুরোনো মডেলের স্মার্টফোনগুলো নষ্ট করে দিচ্ছে।

আইফোন ৭ এর আইওএস ১১.২ অপারেটিং সিস্টেমযুক্ত স্মার্টফোনগুলোতে এই সমস্যা আরো প্রকট বলে জানিয়েছে স্মার্টফোন পারফর্মেন্স টেস্টিং কম্পানি গিকবেঞ্চ।

এক আইফোন ৬এস এর ব্যবহারকারী রেড্ডিটে তার ফোনটির কার্যক্রম ধীর হয়ে পড়া নিয়ে একটি থ্রেড শুরু করলে গিকবেঞ্চের এই তদন্ত শুরু হয়। ওই ব্যক্তির দাবি অ্যাপল তার ফোনটির ব্যাটারি বদলিয়ে দেওয়ার পর থেকেই তার ফোনটি আগের চেয়ে অনেক বেশি স্লো হয়ে গেছে। আরো অনেক রেড্ডিট ইউজারও তাদের আইফোনের গতি ধীর হয়ে যাওয়ার অভিযোগ করেছেন।

গিকবেঞ্চ জানিয়েছে, চলতি বছরের শুরুতে আইওএস ১০.২.১ অপারেটিং সিস্টেম ছাড়ার পরপরই অ্যাপল পুরোনো ফোনগুলোর ব্যাটারি বদলে দেওয়ার অফারও দেয়। পুরোনো ফোনগুলির ব্যাটারিতে কোনো সমস্যা থাকলে তা একটি সফটওয়্যার আপডেট করেই ঠিক করা যেত।

তবে পুরোনো ব্যাটারিগুলোর গরম হয়ে যাওয়ার যে সমস্যা আছে তার সমাধানেও হয়তো অ্যাপল তার পুরোনো ফোনগুলির কার্যক্রমের গতি ধীর করে দিয়েছে। অবশ্য গিকবেঞ্চের দাবি তেমনটা হলে, স্মার্টফোনের গতি ধীর হয়ে যাওয়ার বিষয়টি যাতে এর ইউজারদের নজরে না পড়ে সেভাবেই তা করত অ্যাপল।

যাইহোক, এই ঘটনা থেকে এটাই প্রমাণিত হচ্ছে যে, অ্যাপল সহ অন্যান্য স্মার্টফোন নির্মাতা কম্পানিগুলো পুরোনো ফোনের গতি কমিয়ে দিয়ে লোককে নতুন ফোন কিনতে বাধ্য করে বলে যে গুজব প্রচলিত আছে তা সত্য।

সূত্র: দ্য গার্ডিয়ান, এনডিটিভি

 


মন্তব্য