kalerkantho


বাজারে এলো মধ্যম বাজেটের দুটি দুর্দান্ত স্মার্টফোন

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

৭ সেপ্টেম্বর, ২০১৭ ১৪:০৬



বাজারে এলো মধ্যম বাজেটের দুটি দুর্দান্ত স্মার্টফোন

স্যামসাং ও মটোরোলা ডুয়াল ক্যামেরাযুক্ত মধ্যম বাজেটের দুটি দুর্দান্ত ফোন বাজারে এনেছে। ফোন দুটি হলো স্যামসাং গ্যালাক্সি জে ৭ প্লাস এবং মটো এক্স ৪।

আসুন জেনে নেওয়া যাক ফোন দুটির বৃত্তান্ত।

১. স্যামসাং গ্যালাক্সি জে ৭ প্লাস
সবার অলক্ষেই থাইল্যান্ডে তাদের নতুন এই ফোনটি বাজারে ছেড়েছে স্যামসাং। এটি কম্পানিটির দ্বিতীয় ফোন যাতে ডুয়াল ক্যামেরা আছে। এর আগে গ্যালাক্সি নোট ৮-এ প্রথম ডুয়াল ক্যামেরা এনেছিল স্যামসাং। মধ্যম মূল্যের এই ফোন কিছুটা গ্যালাক্সি জে ৭ (২০১৭), গ্যালাক্সি জে ৭ প্রো-এর মতো। ব্ল্যাক, গোল্ড আর পিংক তিনটি ভেরিয়েন্টে পাওয়া যাবে গ্যালাক্সি জে ৭ প্লাস। ফোনটির দাম ১২,৯০০ থাই ভাট (প্রায় ৩১ হাজার ৪৩৯ টাকা)। থাইল্যান্ডে ইতিমধ্যেই শুরু হয়ে গিয়েছে ফোনের প্রি বুকিং। যারা প্রি অর্ডার করবেন তারা কম্পানির তরফে বিনামুল্যে পাবেন একটি ইউ ফ্লেক্স ব্লুটুথ হেডসেট।

যদিও পৃথিবীর অন্যান্য দেশগুলিতে কবে এই ফোন পাওয়া যাবে সেই বিষয়ে কিছু জানায়নি কম্পানি।

স্যামসাং গ্যালাক্সি জে ৭ প্লাসে থাকছে ৫.৫ ইঞ্চি ফুল এইচডি সুপার অ্যামোলেড ডিসপ্লে। ৪ জিবি র‌্যাম আর ৩২ জিবি স্টোরেজ সহ ফোনে থাকছে মিডিয়াটেক হেলিও পি ২০ প্রসেসার। এ ছাড়াও মাইক্রোএসডি কার্ডের মাধ্যমে ফোনের স্টোরেজ ২৫৬ জিবি পর্যন্ত বাড়িয়ে নিতে পারবেন।

আগেই জানানো হয়েছে এই ফোনে রয়েছে ডুয়াল রিয়ার ক্যামেরা। এর প্রাইমারি ক্যামেরা ১৩ মেগাপিক্সেল, এফ/১.৭, আর সেকেন্ডারি ক্যামেরা ৫ মেগাপিক্সেল এফ/১.৯। সেকেন্ডারি ক্যামেরা মূলত ডেপথ অফ ফিল্ড তোলার জন্য ব্যাবহার হবে। এই ক্যামেরার মাধ্যমে ছবির ব্যাকগ্রাউন্ড ব্লার হবে। ডুয়াল ক্যামেরার সাথে থাকছে এলইডি ফ্ল্যাশ। এ ছাড়াও থাকছে ১৬ এমপি ফ্রন্ট ক্যামেরা। সাথে এলইডি ফ্ল্যাশ।

ফোনের অপারেটিং সিস্টেম অ্যান্ড্রয়েড ৭ নুগেট। এ ছাড়াও ফোনে থাকছে  ৩০০০ এমএএইচ ব্যাটারি, আর ফিংগারপ্রিন্ট সেন্সর।

স্মার্টফোনে ডুয়াল সিম রয়েছে অথচ আলাদা নম্বরে হোয়াটসঅ্যাপ করতে গেলে রাখতে হচ্ছে দুটি ফোন। এই সমস্যা দেখতে গেলে কমবেশি অনেকেরই রয়েছে। কিন্তু এবার আর দুটো করে ফোন বয়ে বেড়াতে হবে না। কারণ এই ফোনে এবার দুটো হোয়াটসঅ্যাপ অ্যাকাউন্ট রাখতে পারবেন আপনি।

২. মটো এক্স ৪
বহু প্রতীক্ষার পর অবশেষে লঞ্চ হলো মটো এক্স ৪। এর প্রধান আকর্ষন হল ফোনের ডুয়াল ক্যামেরা। কোম্পানির মতে এই ক্যামেরার মাধ্যমে রিয়েল টাইম ডেপথ এফেক্ট ক্যাপচার করা সম্ভব। এ ছাড়াও এই ক্যামেরার মাধ্যমে আপনি বিভিন্ন জিনিস ও জায়গাকে সনাক্ত করতে পারবেন। এ ছাড়াও বারকোড আর কিউআর কোডও স্ক্যান করা যাবে এই ক্যামেরার মাধ্যমে।

গ্লাস ও মেটাল ডিজাইনে বেশ ঝাঁ চকচকে লুক পেয়েছে মটো এক্স ৪। ফোনের সামনে ও পিছনে দুদিকেই রয়েছে গরিলা গ্লাস এর সুরক্ষা। পেছনের দিকে একটু টোল খেয়ে ওপরে উঠে এসেছে ফোনের ডুয়াল রিয়ার ক্যামেরা। মটো এক্স ৪ এর ৫.২ ইঞ্চি ডিসপ্লের রেজ্যুলেশন ১০৮০ পি।

মটো এক্স ৪ এর ভেতরে রয়েছে অক্টাকোর ২.২ গিগাহাটজ স্ন্যাপড্রাগন ৬৩০ প্রসেসর। ৩২ জিবি ভেরিয়েন্টে ৩ জিবি র‌্যাম ও ৬৪ জিবি ভেরিয়েন্টে ৪ জিবি র‌্যাম থাকবে এই ফোনে। এ ছাড়াও এই ফোনে আছে ৩০০০ এমএএইচ ব্যাটারি। টার্বো চার্জিং-এর মাধ্যমে ১৫ মিনিট চার্জ করলেই ৬ ঘণ্টা চলবে এই ফোন। ফোনের অপারেটিং সিস্টেম অ্যান্ড্রয়েড ৭.১.২ নুগেট। এ ছাড়াও ফোনে আছে ফোরজি এলটিই, ওয়াইফাই, ব্লুটুথ ৫.০, এনএফসি, জিপএস, ৩.৫ এমএম অডিও জ্যাক আর ইউএসবি টাইপ-সি পোর্ট।

আগেই জানানো হয়েছে মটো এক্স ৪-এ থাকছে ওয়াইড অ্যাঙ্গেল লেন্স ও ডুয়াল অটোফোকাস পিক্সেল সহ ডুয়াল সেট-আপ ক্যামেরা। ১২ এমপি প্রাইমারি ক্যামেরা আর ৮ এমপি সেকেন্ডারি ক্যামেরার মাধ্যমে বোকে এফেক্ট তোলা সম্ভব হবে এই ক্যামেরার মাধ্যমে। ল্যান্ডমার্ক ডিটেকশানের মাধ্যমে গ্রাহকরা সহজেই পেয়ে জাবেন লোকেশান ডিটেলস। মটো এক্স ৪-এর ফ্রন্ট ক্যামেরা ১৬ এমপি। সাথে থাকছে এলইডি ফ্ল্যাশ।

মটো এক্স ৪-এ আছে অ্যামাজান অ্যালেক্সা যার মাধ্যমে আপনার ডিভাইস লক হয়ে থাকলেও ভয়েস কমান্ডের মাধ্যমে আপনি তা ব্যাবহার করতে পারবেন। এছাড়াও মটো এক্স ৪-এ থাকছে মোটো কি, কুইক স্ক্রিনশট আর একটি নতুন ওয়ারলেস অডিও স্ট্রিমিং সিস্টেম। মোটো কি এর মাধ্যমে গ্রাহকেরা ফোনে একটি ক্লিক করে তাদের কম্পিউটারে খুলে ফেলতে পারবেন পাসওয়ার্ড প্রোটেক্টেড ওয়েবসাইট। কুইক স্ক্রিনশটের মাধ্যমে স্ক্রিনের উপর তিন আঙ্গুল দিয়ে একবার ট্যাপ করলেই নিতে পারবেন স্ক্রিনশট। আর ওয়ারলেস অডিও স্ট্রিমিং সিস্টেমের মাধ্যমে একসাথে চারটি ব্লুটুথ ডিভাইসের সাথে কানেক্ট করতে পারবেন আপনার ফোনটিকে।

সুপার ব্ল্যাক ও স্টারলিং ব্লু এই দুটি রং-এ লঞ্চ হয়েছে মটো এক্স ৪। ইউরোপে ফোনের বেস ভেরিয়েন্টের দাম রাখা হয়েছে ৩৯৯ ইউরো (প্রায় ৩৮,৪৩৮ টাকা)। খুব শিগগিরই তা পাওয়া যাবে পৃথিবীর অন্যান্য দেশে।
সূত্র : জিএসএম অ্যারেনা


মন্তব্য