kalerkantho


বিখ্যাত ব্র্যান্ডের অদ্ভুত চেহারার সব মোবাইল ফোন

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

১৯ মার্চ, ২০১৭ ১৬:১৪



বিখ্যাত ব্র্যান্ডের অদ্ভুত চেহারার সব মোবাইল ফোন

আধুনিক যুগের ফোনগুলো অনেক বেশি ক্ষমতাশালী। এদের ডিজাইনও মনোমুগ্ধকর। কিন্তু পুরনো সময়েও বিখ্যাত মোবাইল নির্মাতারা এমন সব অদ্ভুত ডিজাইনের মোবাইল বের করেছিল তা দেখলে অবাক হয়ে যাবেন। আপনারাও হয়তো দেখেছেন এসব মোবাইল। তবুও আরেকবার দেখে নিন। বুঝবেন, সেই সময় কতটা সাই-ফাই দর্শন মোবাইল বানিয়েছিল তারা।

১. স্যামসাং এনপিএইচ-এন২৭০


এটা বের হয় ২০০৩ সালে। নেই সময় ম্যাট্রিক্স ছবির ভক্তদের কথা মাথায় রেখেই ফোনটি বানানো হয়। চেহারাতেই বোঝা যায়, আসলেই ম্যাট্রিক্স থেকে বের হয়ে আসা কোনো মোবাইল যেন। খুব ছোট এক পর্দা দেওয়া হয়। এলসিডি পর্দার ফোনটির ব্যাটারি ছিল ১০০০এমএএইচ।

২. সিমেন্স জেলিব্রি ৬


নারীদের কথা মাথায় রেখে এটি বানানো হয়। ফ্লিপ-স্টাইল একটি মোবাইল, ঠিক যেন কোনো ছোট মেকআপ বক্স। এমনকি চেহারা দেখার জন্য ভেতরে একটি আয়নাও দেওয়া হয়েছে। ২০০৩ সালে বাজারে আনা হয়।

৩. নকিয়া ৭৬০০


এক সময়ের সেরা মোবাইল নির্মাতা অদ্ভুতদর্শন এক মোবাইল দেয় প্রযুক্তি দুনিয়াকে। দারুণ এক ডিজাইন। ২০০৩ সালে বের করা হয় এটি। পর্দা ছিল ২ ইঞ্চি। কিপ্যাড চারদিকে ছড়ানো। এতে জাভা গেম ডাউনলোড করা যেত এবং ব্যাটারি ছিল ৮৫০এমএএইচ।

৪. এলজি বিএল৪০ নিউ চকোলেট


চকোলেট যারা পছন্দ করেন, তারা হাতে পাবেন এক চকোলেট বারের প্রযুক্তি। এতে ছিল ৪.০১ ইঞ্চির স্পর্শকাতর পর্দা। কিন্তু এতে ছবি দেখা যেত ২১:৯ অনুপাতের, যা কিনা পুরোপুরি দৃষ্টিকটু। ব্যাটারি ছিল ১০০০এমএএইচ শক্তির।

৫. নকিয়া ৭২৮০


এটা হয়তো সেই সময় বাজারে দেখেছেন। ফ্যাশন সচেতনদের জন্য বানানো হয় এটি। চেহারায় অভিজাতও বটে। এতে ছিল ভিজিএ ক্যামেরা। অভ্যন্তরে ছিল ৫০ মেগাবাইট স্টোরেজ। ব্যাটারি ৭০০এমএএইচ শক্তির।

৬. স্যামসাং সেরেনা


২০০৫ সালে বাজারে আসে। এটাকে কোরিয়ান জায়ান্টের সবচেয়ে অদ্ভুতদর্শন মোবাইল বল আহয়। ভিজিও ক্যামেরা ছিল, আর ছিল ৮০০এমএএইচ মানের ব্যাটারি।

৭. তোশিবা জি৪৫০


জাপান-ভিত্তিক কম্পানির আরেক আকর্ষণীয় মোবাইল। ২০০৮ সালে বের হয় ফোনটি। এতে দেওয়া হয় 'থ্রি-ডিস্ক' ডিজাইন। এটাকে এইচএসপিএ মডেম হিসাবে ব্যবহার করা যেত। একটি ইউএসবি ডিভাইসের কাজও করতো এটি। সূত্র: গেজেট স্নো

 


মন্তব্য