kalerkantho


নাসা'র হিসাবে বুঝবেন, এই বিশ্বব্রহ্মাণ্ডে আপনি কত ক্ষুদ্র!

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

১৮ মার্চ, ২০১৭ ১৭:৫৯



নাসা'র হিসাবে বুঝবেন, এই বিশ্বব্রহ্মাণ্ডে আপনি কত ক্ষুদ্র!

আমাদের সৌরজগতের পঞ্চম বৃহত্তম গ্রহটি হলো পৃথিবী। আর সম্ভবত এটাই একমাত্র গ্রহ যেখানে প্রাণের অস্তিত্ব রয়েছে। কিন্তু গোটা বিশ্বব্রহ্মাণ্ডের কাছে আমাদের এই বিশাল পৃথিবী একটা ধুলিকণা ছাড়া আর কিছুই নয়। কাজেই কত ক্ষুদ্রই না আমরা! নাসার কিছু হিসাব এই অনুভূতিতে স্পষ্ট করে তোলে। এগুলো জানলে নিজেকে সত্যিই অনেক ক্ষুদ্র মনে করবেন আপনি।

১. এই মিল্কি ওয়ে গ্যালাক্সিতে আমাদের সূর্য আরো ১০০ বিলিয়ন নক্ষত্রের মধ্যে একটিমাত্র।

 

২. আমাদের গোটা পৃথিবী ঘুরতেই কত সময় লেগে যায়। কিন্তু যদি আলোর গতিতে ভ্রমণ করতে পারেন, তবে কেবল মিল্কি ওয়ে গ্যালাক্সি পাড়ি দিতেই আপনার ১ লাখ বছর লেগে যাবে।

৩. মহাকাশের ৭০ শতাংশই 'ডার্ক এনার্জি'তে তৈরি। এর মাত্র ৫ শতাংশ নিয়েই আমরা গবেষণা চালাতে পারি। তারও কত এখনো বাকি।

 

৪. যদি আপনার বাড়ির সদর দরজার সমান হয় সূর্য, তাহলে পৃথিবী হলো সেই দরজার কোনো কব্জায় নিকেলের প্রলেপের ছোট একটা অংশের সমান।

৫. আমাদের সৌজগতের অধিকাংশ স্থান দখল করেছে সূর্য। আর গ্রহ এবং অন্যান্য সব মিলিয়ে মাত্র ০.২ শতাংশ দখল করেছে।

 

৬. এডউইন হাবল আবিষ্কার করেছিলেন যে বিশ্বব্রহ্মাণ্ড ক্রমশ বাড়ছে। আজ থেকে ১৪ বিলিয়ন বছর আগে একটা স্থান ও কাল থেকে এটা বেড়ে গেছে।

৭. পৃথিবী থেকে সবচেয়ে দূরে পাঠানো যানটির নাম ভয়েজার-১। বর্তমানে যন্ত্রটি সূর্য থেকে ১১ বিলিয়ন মাইল দূরে অবস্থান করছে।

সূত্র: গ্যালাক্সি মনিটর

 


মন্তব্য