kalerkantho

বৃহস্পতিবার । ৮ ডিসেম্বর ২০১৬। ২৪ অগ্রহায়ণ ১৪২৩। ৭ রবিউল আউয়াল ১৪৩৮।


বিশ্বের সেরা ২০ স্মার্টফোন

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

১৫ সেপ্টেম্বর, ২০১৬ ১৩:৪১



বিশ্বের সেরা ২০ স্মার্টফোন

অবশেষে নতুন আইফোন সম্পর্কে সকল তথ্যই জানা গেছে। ফলে আইফোন ৭ও এই তালিকায় যুক্ত হয়েছে।

এখানে রইল বিশ্বের সেরা ২০টি আইফোনের তালিকা
২০. ব্ল্যাকবেরি পাসপোর্ট
ব্ল্যাকবেরি পাসপোর্টটি দেখতে হয়ত খুবই অদ্ভুত লাগতে পারে। কিন্তু বিশাল সংখ্যক ব্ল্যাকবেরি ভক্তরা এটিকে পছন্দ করবে বলেই মনে হয়। সেটটির দেহে সত্যিই একটি সুন্দর কী বোর্ড আছে। কিন্তু সেটটির প্রধান বৈশিষ্ট্য হলো এর অনন্য বর্গাকৃতির ডিজাইন।
মূল্য : ৪৫০ ডলার
১৯. ব্ল্যাকবেরি ক্লাসিক
আপনি যদি আগে ব্ল্যাকবেরির ভক্ত হয়ে থাকেন তাহলে আপনি ব্ল্যাকবেরি ক্লাসিকটিও পছন্দ করবেন। পুরনো ব্ল্যাকবেরি মডেলের মতোই দেখতে এই সেটটিও। কিন্তু এতে একটি তীক্ষ্ণ টাচস্ক্রিন এবং অসাধারণ একটি কী-বোর্ড আছে।
মুল্য : ২৯০ ডলার
১৮. মাইক্রোসফট লুমিয়া ৯৫০
আপনার যদি একটি উইন্ডোজ ফোন থাকা লাগবেই বলে মনে হয় তাহলে মাত্র একটি ডিভাইসই আছে যেটির কথা আপনি ভাবতে পারেন। সেটি হলো লুমিয়া ৯৫০। যারা মাইক্রোসফট অ্যাপস দিয়ে সবকিছু করতে চান তাদের জন্য এটি হতে পারে একটি আদর্শ হ্যান্ডসেট।
মূল্য : ৪২৭ ডলার

১৭. ব্ল্যাকবেরি প্রিভ
ব্ল্যাকবেরি প্রিভ ব্ল্যাকবেরির জন্য একটি বড় ব্যতিক্রম। ব্ল্যাকেবেরির নিজস্ব অপারেটিং সিস্টেমের পরিবর্তে বরং এই হ্যান্ডসেটটিতে অ্যান্ড্রয়েড অপারেটিং সিস্টেম ব্যবহার করা হয়েছে। এটি দেখতেও অনেকটা স্ট্যান্ডার্ড অ্যান্ড্রয়েড ফোনের মতো। তবে প্রিভ এ প্রকৃতপক্ষে একটি স্লাইড-আউট কী-বোর্ড আছে। যারা তাদের ফোনে একটি ফিজিক্যাল কী-বোর্ড থাকার পাশাপাশি গুগল অ্যাপস এবং সার্ভিসগুলোতেও প্রবেশাধিকার চান তাদের জন্যই এই সেট। যে সুবিধা অন্যান্য ব্ল্যাকবেরি হ্যান্ডসেটে নেই।
মূল্য : ৪৮৩ ডলার
১৬. মোটো জি৪
মোটো জি৪ তিনটি ভিন্ন ভিন্ন মডেলে পাওয়া যাচ্ছে। নিয়মিত ২০০ ডলারের জি ফোর। ২৫০ ডলারের জি ফোর প্লাস। আর এখনো মূল্য নির্ধারণ না হওয়া জি ফোর প্লে।
জি ফোর প্লাসে রয়েছে ১৬ মেগাপিক্সেলের ক্যামেরা। আর এটিই এখন বাজারের সবেচেয়ে সস্তা স্মার্টফোন। জি ফোর প্লাসে একটি ফিঙ্গার প্রিন্ট সেন্সরও রয়েছে যা অন্যান্য মডেলে নেই।
মূল্য : ২০০ থেকে ২৫০ ডলার
১৫. স্যামসাং গ্যালাক্সি নোট ৫
দ্য গ্যালাক্সি নোট ৫ একটি নজরকাড়া বড় স্ক্রিনের ফোন। আর নতুন ধাতব এবং কাচের ডিজাইনও খুব ভালো।
মূল্য : ৫০৭ ডলার
১৪. জেডটিই অ্যাক্সন ৭
দ্য অ্যাক্সন ৭ এর নির্মাতা চীনা কম্পানি জেডটিই। এটিও শীর্ষ অ্যান্ড্রয়েড ফোনগুলোর একটির মতো। যার দাম স্যামসাং, এলজি বা এইচটিসির মতো বড় ব্র্যান্ডগুলোর তুলনায় একটু কমই বটে। তার মানে হলো আপনি যদি নেক্সাস ডিভাইস পছন্দ না করেন এবং গ্যালাক্সি এস ৭ বা এইচটিসি ১০-র জন্য অতিরিক্ত অর্থ ব্যয় করতে না চান তাহলে আপনার জন্য জেডটিই অ্যাক্সনই যথাযথ ফোন। আগামী কয়েক মাসের মধ্যেই ফোনটি বাজারে ছাড়া হবে।
মূল্য : ৪০০ ডলার
১৩. এলজি জি ৫
এলজি জি ৫ স্মার্টফোনে রয়েছে জাঁকালো ধাতব ডিজাইন। এতে আরো রয়েছে একটি অপসারণযোগ্য তলা। যার ফলে আপনি সহজেই আপনার ফোনের ব্যাটারিটি নষ্ট হয়ে গেলে এর তলাটি খুলে তা বদলাতে পারবেন। অপসারণযোগ্য তলার ফলে এতে নতুন নতুন ফাংশনও যোগ করা সম্ভব। যেমন জুম ডায়াল সম্বলিত একটি ক্যামেরা গ্রিপ এবং আরো ভালো নিয়ন্ত্রণ সুবিধার জন্য একটি শাটার বাটন। এতেও যদি আপনি যথেষ্ট মনে না করেন তাহলে এতে আপনার জন্য আরো রয়েছে একটি ডুয়াল লেন্স ক্যামেরা। যার ফলে ছবি তোলার সময় আপনি অনন্য বৈচিত্র উপভোগ করতে পারবেন।
মূল্য : ৬৫০ ডলার
১২. এইচটিসি ১০
এইচটিসি ১০ একটি সুন্দর এবং চূড়ান্তভাবে সুনির্মিত স্মার্টফোন। এটি অ্যান্ড্রয়েড ফোনের প্রায় কাছাকাছি খাঁটি সংস্করণ।
মূল্য : ৬০০ ডলার

১১. মোটো জেড
নিয়মিত মোটো জেড মডেল সবচেয়ে পাতলা ফোনগুলোর একটি। এটি সত্যিই জাঁকালো। এটি অ্যান্ড্রয়েডের প্রায় কাছাকাছি একটি সংস্করণ।
চলতি বছরের শেষ চতুর্থার্ধে এটি বাজারে আসবে। মোটো জেড ফোর্স মডেল একটি ভেরাইজন এক্সক্লুসিভ যা এখন ৭২০ ডলারে পাওয়া যাচ্ছে। নিয়মিত জেড মডেলের সঙ্গে তুলনায় এতে অতিরিক্ত শক্তিশালী একটি স্ক্রিন আছে। মটোরোলার দাবি মতে, হাত থেকে পড়ে গেলেও এর স্ক্রিনটি ভাঙবেনা। আর এর ব্যাটারিটিও বেশ বড়সড়।
মূল্য : ৬২৫-৭২০ ডলার
১০. ওয়ান প্লাস থ্রি
ওয়ান প্লাস থ্রি সেরা অ্যান্ড্রয়েড স্মার্টফোনগুলোর একটি। এর নতুন ধাতব পিঠের লুকটি অসাধারণ। যার অনুভুতিও চমৎকার। আর মসৃণ এবং দ্রুত কার্যসম্পাদনের জন্য এতে রয়েছে ৬ গিগাবাইটের বিশাল র‌্যাম। অনেকে হয়তো এই বিষয়টি অপছন্দ করতে পারেন যে এতে সম্প্রসারণযোগ্য কোনো তথ্য সংরক্ষণ ব্যবস্থা নেই। কিন্তু ওয়ান প্লাস থ্রি-তে মাত্র ৬৪ গিগাবাইটের তথ্য সংরক্ষণ ব্যবস্থা আছে। যা বেশিরভাগ ফোন ব্যবহারকারীর জন্যই যথেষ্ট হওয়ার চেয়েও অনেক বেশি। আর এতে যে ক্যামেরাটি আছে তা গ্যালাক্সি এস ৭ এর সঙ্গে প্রতিদ্বন্দ্বীতা করারও যোগ্য। যেটি সর্বকালের সেরা স্মার্টফোন ক্যামেরা হিসেবে বিবেচিত।
মূল্য : ৪০০ ডলার

৯. নেক্সাস ৫ এক্স
নেক্সাস ৫ এক্স গুগলের নতুন প্রতীকগুলোর একটি। এটি বাজারের সেরা ফোনগুলোরও একটি। সেটটির একমাত্র সত্যিকার প্রতিদ্বন্দ্বী এর বড় ভাই নেক্সাস ৬পি এবং আইফোন। আপনি যদি আইফোন না চান এবং সেরা অ্যান্ড্রয়েডটি দেখতে চান তাহলে নেক্সাস ৫এক্স আপনাকে হতাশ করবে না।
মূল্য : ৩৪৯ ডলার
৮. নেক্সাস ৬পি
নেক্সাস ৫ এক্স এর একটু বড় সংস্করণ নেক্সাস ৬পি। হার্ডওয়্যার নির্মাতা হিসেবে বিখ্যাত চীনের স্মার্টফোন কম্পানি হুয়াওয়েই বানিয়েছে ফোনটি। ৫এক্স এর মতো এতেও আপনি গুগল থেকে পণ্য রিলিজের নিয়মিত আপডেট পাবেন। যেখানে অন্যান্য অ্যান্ড্রয়েড ফোনে এই ধরনের আপডেট আসে সাধারণত কয়েকমাস পারে।
মূল্য : ৪৯৯ ডলার

৭. আইফোন এসই
৪ ইঞ্চি স্ক্রিনের আইফোন এসই স্মার্টফোনের সেরা ক্ষুদ্র সংস্করণ। আপনি এতে সকল সেরা অ্যাপস, ইকোসিস্টেম, সাপোর্ট এবং আইফোন সিক্স এস এর মতো একই কার্যক্ষমতা পাবেন। আর এর মূল্যও তুলনামূলকভাবে একুট কম; মাত্র ৪০০ ডলার।
এতে অন্যান্য প্রিমিয়াম ফিচারের পাশাপাশি অ্যাপল পে-ও রয়েছে। যেমন লাইভ ফটো এবং একটি ফিঙ্গারপ্রন্টি সেন্সর। আর এর ব্যাটারির চার্জও থাকে দীর্ঘক্ষণ।
মূল্য : ৩৯৯ ডলার

৬. আইফোন সিক্স এস প্লাস
আইফোন ৭ প্লাস এখন বাজারে। ফলে আইফোন সিক্স এস প্লাস এর মূল্য কমে এসেছে। আর তা সত্যিই দারুন একটি ব্যাপার। আইফোন ৭ প্লাস এর মতো পানিরোধী ক্ষমতা এবং ডুয়াল লেন্স ক্যামেরার সুবিধা না থাকলেও আইফোন সিক্স এস প্লাস কোনো বাজে জিনিস নয়। এটি শক্তিশালি এ নাইন চিপে চালিত হয়। আর থ্রিডি টাচের মতো বৈশিষ্টও আছে এতে।
এতে অবিশ্বাস্য দ্রুত গতির একটি ফিঙ্গারপ্রিন্ট সেন্সরও আছে। আরও রয়েছে লাইভ ফটো। যা দিয়ে তিন সেকেন্ড সময় ধরে ভিডিও এবং অডিও রেকর্ড করা যায়।
মূল্য : ৬৪৯ ডলার
৫. আইফোন ৬ এস
আইফোন সিক্স এসও বেশ ভালো একটি ফোন। নতুন আইফোন ৭ এর চেয়ে এটি ১০০ ডলার কম দামে পাওয়া যাচ্ছে। সুন্দর সুন্দর হার্ডওয়্যারের পাশাপাশি আইফোন মালিকরা সবসময়ই তৃতীয় পক্ষের কোনো ডেভেলপারের কাছ থেকেই প্রথম সেরা অ্যাপগুলো পেয়ে থাকে। আর অ্যাপল থেকে সর্বশেষ এবং সেরা নির্ভরযোগ্য সফটওয়্যার আপডেট পেয়ে থাকে।
মূল্য : ৫৪৯ ডলার
৪. স্যামসাং গ্যালাক্সি এস ৭ এজ
গ্যালাক্সি এস ৭ এজ এর রয়েছে ৫.৫ ইঞ্চির একটি বিশাল ডিসপ্লে এবং গ্যালাক্সি এস ৭ এর চেয়েও বড় ব্যাটারি। তবে বৈশিষ্টগুলো প্রায় একই।
মূল্য: ৬১৭ ডলার
৩. স্যামসাং গ্যালাক্সি এস ৭
গ্যালাক্সি এস ৭ এ রয়েছে স্মার্টফোনের সেরা ক্যামেরাটি। যা আইফোন ৬ এস প্লাসকেও ছাড়িয়ে গেছে। এটি বেশ শক্তিশালিও বটে এবং বেশ কিছু ভালো বৈশিষ্টও রয়েছে। যেমন, পানিনিরোধী ব্যবস্থা এবং সম্প্রসারণযোগ্য তথ্য সংরক্ষণ সুবিধার জন্য একটি মাইক্রো এসডি কার্ড।
মূল্য : ৫৫৪ ডলার

২. আইফোন ৭
নিঃসন্দেহে আইফোন ৭ এর ব্যবহারকারীদের জন্য সেরা অ্যাপস এবং ইকোসিস্টেম নিয়ে এসেছে। ইকোসিস্টেম সুবিধা থাকায় কোনো সমস্যা হলে সরাসরি অ্যাপল থেকে সহায়তা পাওয়া যাবে। এটি অন্যান্য অ্যাপল পণ্যের সঙ্গেও বিস্ময়করভাবে কাজ করে। যেমন নতুন এয়ারপড এর তারবিহীন ইয়ারফোন।
এতে নতুন নতুন ফিচার যুক্ত করে আরো কিছু উন্নতিও আনা হয়েছে। যেমন পানিনিরোধী ব্যবস্থা, অল্প আলোতে ভালো কাজ করে এমন একটি ক্যামেরা, আরো শক্তিশালি প্রসেসর এবং এমনকি অ্যান্টেনা ব্যান্ডস।
মূল্য : ৬৫০ ডলার
১. আইফোন ৭ প্লাস
আইফোন ৭ প্লাস হলো সেরা স্মার্টফোন। এর অ্যাপস, ইকোসিস্টেম, পানিনিরোধী ব্যবস্থা এবং ডুয়াল লেন্স ক্যামেরা অসাধারণ।
ডুয়াল লেন্স ক্যামেরার কারণেই আইফোন ৭ প্লাস সেরা ফোনগুলোর একেবারে শীর্ষে অবস্থান করছে। এর মাধ্যমে আপনি পুরোপুরি পেশাদার লুকের ছবি তুলতে পারবেন।
মূল্য : ৭৬৯ ডলার
সূত্র : বিজনেস ইনসাইডার


মন্তব্য