kalerkantho

নিম্নমুখী পুঁজিবাজার

আর্থিক খাতে বড় দরপতন

নিজস্ব প্রতিবেদক   

২৫ মার্চ, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



বিনিয়োগকারী বাড়লেও মন্দাবস্থার মধ্যে পুঁজিবাজারে শেয়ার কেনার চেয়ে বিক্রির চাপ বেশি। অব্যাহত বিক্রিতে লেনদেন নেমেছে তলানিতে, কমেই চলেছে মূল্যসূচক। গতকাল রবিবার ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জে (ডিএসই) বেশির ভাগ কম্পানির শেয়ারের দাম কমলেও আর্থিক খাতে বড় দরপতন অব্যাহত রয়েছে। ক্রমাগত দরপতন হলেও এ বিষয়ে স্পষ্টভাবে কিছুই বলতে পারছেন না সংশ্লিষ্ট ব্যক্তিরা।

গতকাল ডিএসইতে লেনদেন হয়েছে ৩৫৪ কোটি ৩৫ লাখ টাকা আর সূচক কমেছে ৫৮ পয়েন্ট। আগের দিন লেনদেন হয়েছিল ৩৯০ কোটি ৯৯ লাখ টাকা আর সূচক কমেছিল ৩০ পয়েন্ট। সেই হিসাবে সূচক কমার সঙ্গে লেনদেনও কমেছে।

বাজার পর্যালোচনায় দেখা যায়, লেনদেন শুরুর পর থেকেই শেয়ার বিক্রির চাপে পুঁজিবাজার নিম্নমুখী হয়। বিক্রি বাড়লে সূচকের পতনও ত্বরান্বিত হয়। দিন শেষে সূচক দাঁড়িয়েছে পাঁচ হাজার ৫৭০ পয়েন্ট। ডিএস-৩০ মূল্যসূচক ২০ পয়েন্ট কমে এক হাজার ৯৭২ পয়েন্ট ও ডিএসইএস শরিয়াহ সূচক ২ পয়েন্ট কমে এক হাজার ২৮১ পয়েন্টে দাঁড়িয়েছে। লেনদেন হওয়া কম্পানিগুলোর মধ্যে দাম বেড়েছে ৯৪টির, কমেছে ২০৬টির আর অপরিবর্তিত রয়েছে ৪৩টি কম্পানির শেয়ারের দাম।

এদিকে আর্থিক খাতের ব্যাংক, বীমা ও নন-ব্যাংকিং আর্থিক প্রতিষ্ঠানের তথ্য পর্যালোচনায় দেখা যায়, এই তিন খাতেরই বেশির ভাগ কম্পানির শেয়ারের দাম হ্রাস পেয়েছে। তালিকাভুক্ত ৩০টি ব্যাংকের মধ্যে ২৪টিরই শেয়ারের দাম কমেছে। তিন ব্যাংকের শেয়ারের দাম বাড়লেও অপরিবর্তিত থাকে তিন ব্যাংকের শেয়ারের দাম।

বীমা খাতের ৪৭টি কম্পানির মধ্যে দাম বেড়েছে ৯টির আর অপরিবর্তিত রয়েছে একটি কম্পানির শেয়ারের দাম। আর ৩৭টি কম্পানিরই শেয়ারের দাম হ্রাস পেয়েছে। একই চিত্র নন-ব্যাংকিং আর্থিক প্রতিষ্ঠানের কম্পানির শেয়ারে। এই খাতের ২৩টি কম্পানির মধ্যে দাম বেড়েছে পাঁচটির, অপরিবর্তিত রয়েছে তিনটি কম্পানির শেয়ারের দাম আর ১৫টি কম্পানির শেয়ারের দাম হ্রাস পেয়েছে। ডিএসইতে টাকার অঙ্কে লেনদেনে শীর্ষে রয়েছে ব্র্যাক ব্যাংক।

মন্তব্য