kalerkantho


ক্রেতা পাচ্ছে না তালিকাচ্যুত চার কম্পানি

নিজস্ব প্রতিবেদক   

১৫ ফেব্রুয়ারি, ২০১৯ ০০:০০



ক্রেতা পাচ্ছে না তালিকাচ্যুত চার কম্পানি

দুর্বল ও লোকসানি কম্পানির বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিতে একাধিকবার সতর্ক করা হলেও তালিকাচ্যুতির সিদ্ধান্তের পরই টনক নড়েছে বিনিয়োগকারীদের। মূল বাজার থেকে তালিকাচ্যুত করতে সিদ্ধান্ত নেওয়ার পর কম্পানিগুলোতে শেয়ার বিক্রির চাপ বেড়েছে। শেয়ার বিক্রি করতে চাইলেও কোনো ক্রেতা পাচ্ছে না তারা।

লিস্টিং আইন অনুযায়ী পাঁচ বছরের বেশি লভ্যাংশ না দেওয়া চার কম্পানিকে মূল বাজার থেকে তালিকাচ্যুত করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জ (ডিএসই)। এই সিদ্ধান্তের পরদিন থেকেই চার কম্পানির শেয়ার বিক্রিতে চাপ বেড়েছে। শেয়ার গ্রাহকরা বিক্রি করতে চাইলেও শেয়ার ক্রেতা নেই। তবু স্বল্প পরিসরে শেয়ার লেনদেন হয়েছে। বিক্রির চাপ বেশি থাকায় শেয়ারের দাম হ্রাস পেয়েছে ব্যাপক হারেই।

গত মঙ্গলবার ডিএসইর পরিচালনা পর্ষদ থেকে মেঘনা পেট, মেঘনা কনডেন্সড মিল্ক, ইমাম বাটন ও সাভার রিফ্র্যাক্টরিজকে তালিকাচ্যুত করার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। এই কম্পানিগুলো পাঁচ বছরের বেশি সময় ধরেই কোনো লভ্যাংশ দিচ্ছে না। তবু নানা কারণে গুজব ও মিথ্যা তথ্য ছড়িয়ে শেয়ারের দামে কারসাজির ঘটনা ঘটেছে। সে জন্য লিস্টিং আইন অনুযায়ী কম্পানিগুলোকে তালিকাচ্যুত করার সিদ্ধান্ত নেয় পর্ষদ।

মঙ্গলবার তালিকাচ্যুতির সংবাদ ছড়িয়ে পড়লে বুধবার শেয়ার বিক্রির চাপ বাড়ে। এতে শেয়ার বিক্রেতা থাকলেও ক্রেতাসংকটে পড়ে। বৃহস্পতিবারও বিক্রেতা থাকলেও ক্রেতাসংকটে পড়ে। মেঘনা পেট ইন্ডাস্ট্রিজের শেয়ারের ক্লোজিং ছিল ১৫ দশমিক  ৪০ টাকা, বৃহস্পতিবার কম্পানিটির শেয়ারের দাম কমে দাঁড়ায় ১৩ দশমিক  ৯০ টাকা। সর্বশেষ কম্পানিটির শেয়ার ১৩ দশমিক ৯০ টাকায় লেনদেন হয়েছে। এ ক্ষেত্রে শেয়ারের দাম ৯.৭৪ শতাংশ কমেছে।

ইমাম বাটনের শেয়ারের ক্লোজিং ছিল ২৪ দশমিক ৬০ টাকা, যা গতকাল ২২ দশমিক ২০ টাকায় লেনদেন শুরু হয়। সর্বশেষ কম্পানিটির শেয়ার ২২ দশমিক ২০ টাকায় লেনদেন হয়েছে। এ ক্ষেত্রে শেয়ারের দাম ৯.৭৫ শতাংশ কমেছে। মেঘনা কনডেন্সড মিল্কের শেয়ারের ক্লোজিং দর ছিল ২৪ দশমিক ৫০ টাকা। বৃহস্পতিবার দিন শেষে কম্পানিটির শেয়ারের দাম দাঁড়ায় ২২ দশমিক ১০ টাকা। এ ক্ষেত্রে শেয়ারটির দাম ৯.৭৯ শতাংশ কমেছে।

আর সাভার রিফ্র্যাক্টরিজের ক্লোজিং দাম ছিল ১২৫.১০ টাকা। বৃহস্পতিবার সর্বশেষ কম্পানিটির শেয়ার ১১২.৬০ টাকায় লেনদেন হয়েছে। এ ক্ষেত্রে কম্পানিটির শেয়ারের দাম ৯.৯৯ শতাংশ কমেছে।

মেঘনা কনডেন্সড মিল্কের শেয়ারের দাম কমেছে ৯.৯২ টাকা। ১১ ক্রেতার কাছে দুই হাজার ৬২৬টি শেয়ার বিক্রি হয়েছে, যার বাজারমূল্য ৬৪ হাজার টাকা। ২৭ দশমিক ২ টাকায় শেয়ার বিক্রি উন্মুক্ত করা হলেও দিন শেষে শেয়ারের দাম দাঁড়ায় ১৫ দশমিক ৪ টাকা। সাভার রিফ্র্যাক্টরিজের শেয়ার দাম হ্রাস পেয়েছে ৯.৯৩ শতাংশ। সাতজন বিক্রেতার হাতে ৪৭৪টি শেয়ার হাতবদল হয়েছে, যার বাজারমূল্য প্রায় ৬০ হাজার টাকা। ১৩৮ দশমিক ৯ টাকায় শেয়ার বিক্রি উন্মুক্ত করা হলেও ১২৫.১ টাকায় সর্বশেষ শেয়ার লেনদেন হয়। মেঘনা পেট কম্পানির শেয়ারের দাম হ্রাস পেয়েছে ৯.৯৪ শতাংশ। ৫৪ ক্রেতার হাতে ২৪ হাজার ৫৩৫ শেয়ার লেনদেন হয়েছে, যার বাজারমূল্য তিন লাখ সাত হাজার টাকা।

সূচক ও লেনদেন বেড়েছে : সপ্তাহের শেষ কার্যদিবস গতকাল ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জের সূচক ও লেনদেন বেড়েছে। একই সঙ্গে বেশির ভাগ কম্পানির শেয়ারের দামও বৃদ্ধি পায়। দিন শেষে লেনদেন হয়েছে ৯৩২ কোটি ৩৭ লাখ টাকা। আর সূচক বেড়েছে প্রায় ২ পয়েন্ট। আগের দিন ডিএসইতে লেনদেন হয়েছিল ৭১২ কোটি ৬৪ লাখ টাকার শেয়ার। আর সূচক কমেছিল ১৬ পয়েন্ট।



মন্তব্য