kalerkantho


উৎপাদনে রেকর্ড পার্বতীপুরের মধ্যপাড়া শিলাখনিতে

পার্বতীপুর (দিনাজপুর) প্রতিনিধি   

২০ নভেম্বর, ২০১৮ ০০:০০



পার্বতীপুরের মধ্যপাড়া কঠিন শিলাখনিতে গত শনিবার তিন শিফটে পাঁচ হাজার ৭১৬ মেট্রিক টন পাথর উৎপাদন করেছে জার্মানিয়া-ট্রেস্ট কনসোর্টিয়াম (জিটিসি)। এর ফলে পাথর উত্তোলনের আগের রেকর্ড অতিক্রম হলো।

এ বিষয়ে ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান জিটিসির নির্বাহী পরিচালক জাবেদ সিদ্দিকী জানান, অর্ধশতাধিক বিদেশি খনি বিশেষজ্ঞ, দেশি প্রকৌশলী ও সাত শতাধিক খনি শ্রমিক তিন শিফটে পাথর উত্তোলন কাজে নিয়োজিত আছে। প্রতি মাসে এক লাখ ২০ হাজার মেট্রিক টন পাথর উত্তোলনের লক্ষ্যমাত্রা নিয়ে জিটিসি গত অক্টোবরে এক লাখ ২৩ হাজার মেট্রিক টন পাথর উত্তোলন করেছে। উৎপাদন লক্ষ্যমাত্রায় পৌঁছানোর ফলে খনি শ্রমিকদের বিগত মাসগুলোতে বেতন ও ওভার টাইমের সঙ্গে উৎপাদন বোনাস দিচ্ছে জিটিসি।

খনি সূত্রে জানা গেছে, গত ২০০৭ সালে খনি থেকে দৈনিক তিন শিফটে পাঁচ হাজার ৫০০ মেট্রিক টন পাথর উত্তোলনের লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করে এর উৎপাদন কার্যক্রম শুরু করা হয়। কিন্তু প্রায় সাত বছর ধরে তিন শিফটে পাথর উত্তোলন করতে সক্ষম হয়নি। ফলে খনিটি লোকসানি প্রতিষ্ঠানে পরিণত হয়ে বন্ধের উপক্রম হয়।

মধ্যপাড়া পাথরখনির ব্যবস্থাপনা, রক্ষণাবেক্ষণ ও উৎপাদন চুক্তির পর জিটিসি তিন শিফটে দৈনিক পাঁচ হাজার ৫০০ মেট্রিক টন পাথর উত্তোলন করে লক্ষ্যমাত্রা ছাড়িয়ে খনিটিকে লাভজনক প্রতিষ্ঠানে পরিণত করতে আরো এক ধাপ এগিয়ে গেল বলে খনিসংশ্লিষ্ট এলাকাবাসী মনে করছে।

পাথর উত্তোলন ও বিক্রির বিষয়ে জানতে চাইলে মধ্যপাড়া কঠিন শিলাখনির ব্যবস্থাপনা পরিচালক (এমডি) জাবেদ চৌধুরী জানান, খনিতে পাথর উত্তোলন আগের চেয়ে বেড়েছে। সেই সঙ্গে পাথর বিক্রিও আগের যেকোনো সময়ের চেয়ে বেড়েছে বলে তিনি উল্লেখ করেন।



মন্তব্য