kalerkantho


১৩২৫টি ল্যাপটপ বিতরণ

‘প্রতিটি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে আইসিটি ল্যাব হবে’

নিজস্ব প্রতিবেদক   

১৯ নভেম্বর, ২০১৮ ০০:০০



আগামী দুই বছরের মধ্যে দেশের প্রতিটি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে আইসিটি ল্যাব ও মাল্টিমিডিয়া ক্লাসরুম স্থাপন করা হবে বলে জানিয়েছেন ডাক, টেলিযোগাযোগ ও তথ্য-প্রযুক্তি মন্ত্রী মোস্তাফা জব্বার। তিনি বলেছেন, এ জন্য আগে শিক্ষকদের ডিজিটাল শিক্ষার উপযোগী করে গড়ে তুলতে হবে। রাজধানীর আগারগাঁওয়ের আইসিটি টাওয়ারে গতকাল রবিবার তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি বিভাগের (আইসিটি) লার্নিং অ্যান্ড আর্নিং প্রকল্পের অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে মন্ত্রী এসব কথা বলেন। আইসিটি বিভাগের সচিব জুয়েনা আজিজের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন আইসিটি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহেমদ পলক, ডাক ও টেলিযোগাযোগ বিভাগের সচিব শ্যাম সুন্দর সিকদার। অনুষ্ঠানে সারা দেশের শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে কম্পিউটার ও ভাষা প্রশিক্ষণ ল্যাব স্থাপন প্রকল্পের আওতায় সেরা প্রশিক্ষণার্থী ও শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে এক হাজার ৩২৫টি ল্যাপটপ বিতরণ করা হয়।

মোস্তাফা জব্বার বলেন, প্রতিদিন বিদ্যমান পেশা বিলুপ্ত হচ্ছে। তাই প্রতিযোগিতামূলক বিশ্বের সঙ্গে টিকে থাকতে হলে তথ্য-প্রযুক্তি জ্ঞান অর্জন অপরিহার্য। তিনি বলেন, ‘আমাদের নতুন প্রজন্ম অত্যন্ত মেধাবী। তাই শিক্ষাজীবনের শুরু থেকে তাদের আইসিটি বিষয়ে জ্ঞান দিতে হবে।’ তিনি প্রাথমিক শিক্ষাস্তরে আইসিটি শিক্ষাকে বাধ্যতামূলক করার ওপর গুরুত্বারোপ করেন।

জুনাইদ আহেমদ পলক বলেন, ২০১৯ সালের মধ্যে চার হাজার ৫০০ ইউনিয়নকে ব্রডব্যান্ড ইন্টারনেটের আওতায় আনা হবে। নতুন প্রজন্মকে দক্ষ করে গড়ে তুলতে না পারলে জাতি পিছিয়ে পড়বে। তিনি ল্যাপটপের সঠিক ব্যবহারের মাধ্যমে নিজেদের দক্ষ করে তোলার আহ্বান জানান।

অনুষ্ঠানে সেরা প্রশিক্ষণার্থীদের মধ্যে ৬৫০টি ব্যাচের মধ্য থেকে প্রতি ব্যাচে দুজন করে এক হাজার ৩০০ ল্যাপটপ ও মডেম বিতরণ করা হয়। এ ছাড়া দেশের ৮টি বিভাগের ২৫ জন সেরা প্রশিক্ষণার্থীদের মধ্যে ল্যাপটপ বিতরণ করা হয়।

অনুষ্ঠানে আরো বক্তব্য দেন আইসিটি অধিদপ্তরের মহাপরিচালক এ কে এম খায়রুল আলম, লার্নিং অ্যান্ড আর্নিং প্রকল্পের পরিচালক সৈয়দা সালমা জাফরীন এবং সারা দেশের শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে কম্পিউটার ও ভাষা প্রশিক্ষণ ল্যাব স্থাপন প্রকল্পের পরিচালক ড. মোঃ শাহাদাৎ হোসেন।



মন্তব্য