kalerkantho


আসিয়ান সম্মেলনে ঘোষণা

মুক্তবাণিজ্য চুক্তি আরসিইপি চূড়ান্ত হবে আগামী বছর

বাণিজ্য ডেস্ক   

১৫ নভেম্বর, ২০১৮ ০০:০০



বিশ্বের সবচেয়ে বড় অর্থনৈতিক অঞ্চল গড়ার ব্যাপারে আরো এক বছর সময় নিয়েছেন এশিয়া প্যাসিফিক ও আসিয়ানভুক্ত দেশগুলোর নেতারা। গতকাল বুধবার সিঙ্গাপুরে অনুষ্ঠিত অ্যাসোসিয়েশন অব সাউথইস্ট এশিয়ান নেশন্সের (আসিয়ান) ৩৩তম শীর্ষ সম্মেলনে এ ঘোষণা দেওয়া হয়।

১৬ দেশের নেতাদের এক যৌথ বিবৃতিতে জানানো হয়, রিজিওনাল কম্প্রিহেনসিভ ইকোনমিক পার্টনারশিপ (আরসিইপি) চুক্তির বিষয়ে অগ্রগতি হয়েছে। তবে তা চূড়ান্ত হবে ২০১৯ সালে। যদিও এর আগে আশা করা হয়েছিল চীন নেতৃত্বাধীন চুক্তিটি এ বছরের শেষ নাগাদ আলোর মুখ দেখবে। সম্মেলনের আয়োজক দেশ সিঙ্গাপুরের প্রধানমন্ত্রী লি সিয়েন লুং বলেন, এশিয়া প্যাসিফিক অঞ্চলে একটি বড় বাণিজ্য চুক্তি করতে সময় যতো দীর্ঘায়িত হবে এর বিশ্বাসযোগ্যতাও তত কমবে।

আসিয়ানভুক্ত ১৬ দেশের নেতাদের উদ্দেশে লি বলেন, মুক্তবাজার চুক্তির বিষয়টি যথেষ্ট এগিয়েছে আমরা চূড়ান্ত সিদ্ধান্তের কাছাকাছি চলে এসেছি। তবে এ চুক্তিটির বিষয়ে আর সময় নেওয়া হলে সেটি বিশ্বাসযোগ্যতার ক্ষেত্রে ঝুঁকির কারণ হতে পারে।

মূলত আরসিইপি নিয়ে আলোচনা শুরু হয় ২০১২ সালে। যার লক্ষ্য এশিয়া প্যাসিফিক অঞ্চলে একটি মুক্তবাণিজ্য অঞ্চল গড়ে তোলা। এতে চীন, জাপান, দক্ষিণ কোরিয়া, ভারত, অস্ট্রেলিয়া, নিউজিল্যান্ড এবং আসিয়ানের ১০ সদস্য দেশ রয়েছে। ১৬টি দেশের এ অঞ্চলে বিশ্বের প্রায় ৫০ শতাংশ মানুষ রয়েছে। বিশ্ব জিডিপির প্রায় ৩০ শতাংশ আসে এ অঞ্চল থেকে। এ চুক্তি কার্যকর হলে এ অঞ্চল হবে বিশ্বের সবচেয়ে বড় অর্থনৈতিক ব্লক।

চুক্তির আওতায় সদস্য দেশগুলো একে অন্যের বাজারে শুল্কমুক্ত সুবিধা পাবে, বাণিজ্যের একটি সমন্বিত নীতি তৈরি হবে এবং শ্রমিক আসা যাওয়ায় উৎসাহী করা হবে। আন্ত সীমান্ত বিনিয়োগ বাড়বে এবং যাবতীয় সুবিধার কারণে বহুজাতিক কম্পানিগুলোর জন্য এ অঞ্চলে বিনিয়োগ আকর্ষণীয় হয়ে উঠবে।

মূলত এশিয়ার দেশগুলোকে নিয়ে ট্রান্স প্যাসিফিক পার্টনারশিপ (টিপিপি) নামে একটি মুক্তবাণিজ্য চুক্তি করতে চেয়েছিলেন যুক্তরাষ্ট্রের সাবেক প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামা। কিন্তু ডোনাল্ড ট্রাম্প দেশের প্রেসিডেন্ট হওয়ার পর থেকে এ চুক্তি থেকে নিজেদের গুটিয়ে নেয় এবং সুরাক্ষাবাদী নীতির পথে হাঁটে। এ সুযোগেই মূলত এশিয়ার সবচেয়ে বড় অর্থনৈতিক দেশ চীন আরসিইপি গড়ার আলোচনা এগিয়ে নেয়।

সম্মেলনে যুক্ত বিবৃতিতে নেতারা জানিয়েছেন, আগামী ২০১৯ সালের মধ্যে আরসিইপির আলোচনা চূড়ান্ত করা হবে। মূলত এ বছর চুক্তিটি চূড়ান্ত করার কথা থাকলেও ১৬ সদস্যের দেশগুলো ঐকমত্যে আসতে না পারায় তা আরো এক বছর পিছিয়ে দেওয়া হলো। তবে নেতারা জানিয়েছেন, এ চুক্তি ২০১৯ সালের মধ্যে চূড়ান্ত করার ব্যাপারে তারা প্রতিশ্রুতিবদ্ধ।



মন্তব্য