kalerkantho


বিদেশি ঋণের জামানত সংরক্ষণে অনুমতি লাগবে না

নিজস্ব প্রতিবেদক   

১৬ অক্টোবর, ২০১৮ ০০:০০



বিদেশ থেকে নেওয়া ঋণের বিপরীতে জামানতসংক্রান্ত নথি সংরক্ষণে এখন থেকে আর কেন্দ্রীয় ব্যাংকের অনুমোদন লাগবে না। বিদেশি ঋণদাতা প্রতিষ্ঠানের পক্ষে স্থানীয় ব্যাংকগুলো নিজেদের মতো করে এসব নথি সংরক্ষণ করতে পারবে।

গতকাল সোমবার বাংলাদেশ ব্যাংকের বৈদেশিক মুদ্রানীতি বিভাগ থেকে এক সার্কুলার জারি করে বিদেশি মুদ্রায় লেনদেনে নিয়োজিত অথোরাইজড ডিলার (এডি) ব্যাংকগুলোর প্রধান কার্যালয়ে পাঠানো হয়েছে। একই দিন অন্য এক সার্কুলারের মাধ্যমে বিদেশি ঋণ পরিশোধের জন্যও ব্যাংকের অনুমতির প্রয়োজন হবে না বলে জানানো হয়েছে।

বাংলাদেশ ব্যাংকের কর্মকর্তারা বলছেন, বিদেশি ঋণদাতা প্রতিষ্ঠান জমির দলিল বা কম্পানির বিভিন্ন দলিল জামানত হিসেবে জমা রাখে। এসব নথি সংরক্ষণের জন্য ওই প্রতিষ্ঠান এখানকার ব্যাংক বা অন্য কোনো প্রতিষ্ঠানকে এজেন্ট নিয়োগ করে। এত দিন এ জন্য কেন্দ্রীয় ব্যাংকের অনুমতি লাগত।

সার্কুলারে বলা হয়েছে, বাংলাদেশ ব্যাংক ও বাংলাদেশ বিনিয়োগ উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ বা বিডার অনুমোদন নিয়ে বেসরকারি খাতের উদ্যোক্তারা বাইরে থেকে ঋণ নিয়ে থাকেন। আর সরকারি খাতের হ্রাসকৃত সুদের ঋণ নেওয়া হয় এসংক্রান্ত স্থায়ী কমিটির অনুমোদন সাপেক্ষে।

উভয় ক্ষেত্রে কেন্দ্রীয় ব্যাংকের পূর্বানুমোদন ছাড়াই বিদেশি প্রতিষ্ঠানের পক্ষে স্থানীয় ব্যাংক এখন থেকে জামানত নথি সংরক্ষণ করতে পারবে।

একই বিভাগ থেকে পাঠানো অন্য সার্কুলারে বলা হয়েছে, সরকারি ও বেসরকারি উভয় প্রতিষ্ঠানের বিদেশি ঋণের কিস্তির সুদ ও মূল বিদেশি ঋণদাতা প্রতিষ্ঠানকে পরিশোধের ক্ষেত্রে বৈদেশিক মুদ্রা লেনদেন নীতিমালা অনুসরণ করলেই হবে। এ ছাড়া সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের অনুমোদিত সেবা মাসুলও পাঠানোর অনুমতি দেওয়া হয়েছে।



মন্তব্য