kalerkantho


পোশাকসহ রপ্তানি খাতে উৎস কর কমে ০.৬০%

নিজস্ব প্রতিবেদক   

১২ সেপ্টেম্বর, ২০১৮ ০০:০০



তৈরি পোশাকসহ রপ্তানি খাতে কমল উৎস কর। এখন থেকে পাটজাত পণ্য ছাড়া সব রপ্তানি পণ্যে উৎস কর দিতে হবে ০.৬০ শতাংশ, যা আগে ছিল ০.৭০ শতাংশ। গত রবিবার জাতীয় রাজস্ব বোর্ড (এনবিআর) এসংক্রান্ত আদেশ জারি করে এবং গত সোমবার থেকে তা কার্যকর করা হয়।

এর পাশাপাশি পোশাক খাতে করপোরেট কর ১৫ থেকে ১২ শতাংশ করা হয়েছে। এনবিআরের আদেশে বলা হয়, পোশাক খাতে ১২ শতাংশ হারে করপোরেট কর হারের যে রেয়াতি সুবিধা দেওয়া আছে, তা চলতি অর্থবছরে অব্যাহত থাকবে। তবে কোনো কারখানার আন্তর্জাতিকভাবে স্বীকৃত ‘গ্রিন বিল্ডিং সার্টিফিকেট’ থাকলে এ হার ১০ শতাংশ থাকবে; যা আগে ছিল ১২ শতাংশ।

সরকার এমন একসময় বাড়তি কর ছাড় দিয়েছে, যখন পোশাক খাতে নতুন মজুরি কাঠামো নির্ধারণ নিয়ে আলোচনা চলছে। এনবিআর বলেছে, ব্যবসায়ীদের দাবির পরিপ্রেক্ষিতে রপ্তানি আয়ের প্রবৃদ্ধি ধারাবাহিকতা ধরে রাখতে এ ছাড় দিয়েছে সরকার। স্থানীয় শিল্প উদ্যোক্তারা কর ছাড়ের এ উদ্যোগকে স্বাগত জানিয়ে বলেছেন, বর্তমানে পোশাকসহ রপ্তানি খাত বিশ্ববাজারে কঠিন চ্যালেঞ্জ মোকাবেলা করছে। নতুন করে কর ছাড়ের ফলে কিছুটা হলেও স্বস্তি ফিরে আসবে এবং রপ্তানিমুখী শিল্পে প্রতিযোগিতার সক্ষমতা বাড়বে। এনবিআর সূত্র বলেছে, রপ্তানি খাত থেকে উৎস কর বাবদ বছরে দুই হাজার কোটি টাকা আয় হয়। ১০ পয়সা কর ছাড়ের ফলে আগের চেয়ে ৩০০ কোটি টাকা কম আদায় হবে।

জানতে চাইলে বিজিএমইএ সভাপতি মো. সিদ্দিকুর রহমান কালের কণ্ঠকে বলেন, দেশের রপ্তানি আয় এবং কর্মসংস্থানের সবচেয়ে বড় খাত পোশাক খাতে স্থিতিশীল ও ব্যবসাবান্ধব পরিবেশ নিশ্চিত করতে উৎস কর এবং করপোরেট কর কমানো হয়েছে। এ জন্য প্রধানমন্ত্রীকে ধন্যবাদ জানিয়ে তিনি বলেন, আমাদের দাবি মূল্য সংযোজন কর (ভ্যাট), করপোরেট টেক্স এবং উৎস করসহ সবটিকে একটি দীর্ঘমেয়াদি পরিকল্পনায় নিতে হবে। একই সঙ্গে আগামী পাঁচ বছরের জন্য একটি নির্ধারিত করহার ধার্য করার আহ্বান জানান তিনি।

 



মন্তব্য