kalerkantho


বাণিজ্যযুদ্ধে ক্ষতিগ্রস্ত হবে সবাই : চীনের হুঁশিয়ারি

বাণিজ্য ডেস্ক   

৯ মার্চ, ২০১৮ ০০:০০



বাণিজ্যিক অংশীদারদের ক্ষুব্ধ প্রতিক্রিয়া এবং দেশের ভেতরে তীব্র সমালোচনার পরও স্টিল ও অ্যালুমিনিয়াম আমদানিতে শুল্ক আরোপের সিদ্ধান্তে অটল রয়েছেন যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। এমন পরিস্থিতিতে আবারও হুঁশিয়ারি উচ্চারণ করে চীন বলেছে, যুক্তরাষ্ট্র যদি একটি বাণিজ্যযুদ্ধের সূচনা করে তবে সবাই ক্ষতিগ্রস্ত হবে। গতকাল বৃহস্পতিবার চীনের পররাষ্ট্রমন্ত্রী ওয়াংগ ই যুক্তরাষ্ট্রের উদ্দেশ্যে কড়া ভাষায় বলেন, ‘বাণিজ্যযুদ্ধের পথ বেছে নেওয়া একটি ভুল সিদ্ধান্ত। শেষ পর্যন্ত অন্যদের ক্ষতিগ্রস্ত করবেন এবং নিজেও ক্ষতিগ্রস্ত হবেন।’ চীনের ক্ষমতাসীন কমিউনিস্ট পার্টির বার্ষিক পার্লামেন্টারি অধিবেশনের এক ফাঁকে সংবাদ সম্মেলনে তিনি আরো বলেন, ‘চীন নিশ্চিতভাবেই প্রয়োজনীয় ও যথোপযুক্ত ব্যবস্থা গ্রহণ করবে।’

এক সপ্তাহ আগে যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প ঘোষণা দিয়েছিলেন, তিনি স্টিল আমদানির ওপর ২৫ শতাংশ শুল্ক ও অ্যালুমিনিয়াম আমদানিতে ১০ শতাংশ শুল্ক আরোপ করার চিন্তা করছেন। তাঁর ঘোষণায় চীনসহ বাণিজ্যিক অংশীদারদের পক্ষ থেকে ক্ষুব্ধ প্রতিক্রিয়া ব্যক্ত করা হয়। ইউরোপীয় ইউনিয়ন (ইইউ) বলেছে, ট্রাম্প এমনটি করলে তাঁরাও যুক্তরাষ্ট্রের পণ্য আমদানিতে শুল্ক আরোপ করবে। কানাডা ও ফ্রান্স বলেছে, এ সিদ্ধান্ত পুরোপুরি অগ্রহণযোগ্য। এ ছাড়া ট্রাম্পের এ পরিকল্পনার বিরোধিতা করে পদত্যাগ করেন প্রেসিডেন্টের শীর্ষ অর্থনৈতিক উপদেষ্টা গ্যারি কেন।

সর্বশেষ গত বুধবার বিশ্ববাণিজ্য সংস্থায় (ডাব্লিউটিও) চীন নেতৃত্বাধীন ১৮ সদস্যের একটি বাণিজ্য গ্রুপ ট্রাম্পকে শুল্ক আরোপের বিষয়টি বাদ দেওয়ার অনুরোধ জানান। ডাব্লিউটিওতে বিভিন্ন দেশের এ প্রতিনিধিরা বলেন, ট্রাম্পের এ পরিকল্পনায় বিশ্ববাণিজ্য একটি পদ্ধতিগত হুমকিতে পড়বে। যদিও যুক্তরাষ্ট্র খুব অল্প পরিমাণ স্টিল ও অ্যালুমিনিয়াম আমদানি করে থাকে চীন থেকে। তবে যুক্তরাষ্ট্রের এ পদক্ষেপকে পেইচিং তাদের সঙ্গে বাণিজ্য কলহের একটি পদক্ষেপ হিসেবেই দেখছে। এর আগে সৌর প্যানেল থেকে শুরু করে ওয়াশিং মেশিনসহ বেশকিছু আমদানি পণ্যে বাণিজ্য শুল্ক আরোপ করে ট্রাম্প প্রশাসন। এতে চীন ক্ষতিগ্রস্ত হয়।

অন্যদিকে কয়েক সপ্তাহ পরে ট্রাম্প প্রশাসনের পক্ষ থেকে চীনের মেধাস্বত্ব অনুশীলন নিয়ে একটি প্রতিবেদন প্রকাশ হওয়ার কথা রয়েছে। সেটি প্রকাশ হলে চীনের বেশ কিছু পণ্য আমদানিতে যুক্তরাষ্ট্রের শুল্ক আরোপের আশঙ্কা রয়েছে। পেইচিংয়ে ওয়াংগ এর বক্তব্যের আগে ট্রাম্প এক টুইটবার্তায় বলেন, ‘মেধাস্বত্ব চুরি নিয়ে যুক্তরাষ্ট্র দ্রুততার সঙ্গে কাজ করছে। এটি কয়েক বছর ধরে চলছে, আমরা আর চলতে দেব না।’ ট্রাম্প চীনের সঙ্গে যুক্তরাষ্ট্রের বাণিজ্য ঘাটতি কমাতে বছরে এক বিলিয়ন ডলার কমিয়ে আনার প্রস্তাব দেন দেশটিকে। রয়টার্স, এএফপি।


মন্তব্য