kalerkantho


নেপালের বাণিজ্য মেলায় ওয়ালটন

বাণিজ্য ডেস্ক   

২ মার্চ, ২০১৮ ০০:০০



নেপালের বাণিজ্য মেলায় ওয়ালটন

ওয়ালটন : নেপালের কাঠমাণ্ডুতে অনুষ্ঠিত মেলায় ওয়ালটন প্যাভিলিয়নে ক্রেতা-দর্শনার্থীদের ভিড়

নেপালের রাজধানী কাঠমাণ্ডুতে অনুষ্ঠিত ‘চতুর্থ বাংলাদেশ এক্সপো-২০১৮’-তে অংশ নিয়েছে ওয়ালটন। বাংলাদেশ দূতাবাস আয়োজিত এই বাণিজ্য মেলায় ইলেকট্রনিকস, ইলেকট্রিক্যাল, আইসিটি এবং হোম অ্যাপ্লায়েন্সস পণ্য প্রদর্শন ও বিক্রি করে ওয়ালটন। মেলায় প্রথমবারের মতো বিক্রি হয় বাংলাদেশে তৈরি মোবাইল ফোনসেট ও ল্যাপটপ।

নেপালে বাংলাদেশি পণ্যের রপ্তানি বাড়াতে চার বছর ধরে এই মেলার আয়োজন করে আসছে বাংলাদেশ দূতাবাস। ২৩ থেকে ২৭ ফেব্রুয়ারি কাঠমাণ্ডুর ভ্রিকুটিমণ্ডপ এক্সিবিশন হলে অনুষ্ঠিত হয় বাংলাদেশি পণ্যের একক ওই বাণিজ্য মেলা। এতে আইসিটি, ইলেকট্রনিকসামগ্রী, বিল্ডিং নির্মাণসামগ্রী, রেডিমেড গার্মেন্ট, সিরামিক, কনজ্যুমার প্রডাক্ট, ফুড প্রডাক্ট, চামড়াজাত পণ্যের ৫০টিরও বেশি প্রতিষ্ঠান অংশ নেয়। ইভেন্টের কো-স্পন্সর ছিল ওয়ালটনের নেপাল ডিস্ট্রিবিউটর।

মেলার উদ্বোধন করেন বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রীর তথ্য উপদেষ্টা ইকবাল সোবহান চৌধুরী। বিশেষ অতিথি ছিলেন নেপালে নিযুক্ত বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত মাশফি বিনতে শামস। উদ্বোধনের পর তাঁরা ওয়ালটন স্টল পরিদর্শন করেন। এ সময় রাষ্ট্রদূত বলেন, নেপালে বাংলাদেশি পণ্যের ব্যবহার আগের চেয়ে অনেক বেড়েছে এবং বাংলাদেশি পণ্যের গুণগত উচ্চমান সম্পর্কে নেপালিরা অবগত। বাংলাদেশে তৈরি পণ্য আরো জনপ্রিয় করবে এই মেলা। এর ফলে বাংলাদেশের উদ্যোক্তারা সহজেই সম্ভাবনাময় নেপালের বাজার ধরতে সক্ষম হবে।

ওয়ালটন জানায়, ২০১৪ সাল থেকে ব্যাপক আকারে নেপালের বাজারে প্রবেশ করে ওয়ালটন। নেপালে নিয়োজিত ওয়ালটনের সোল ডিস্ট্রিবিউটর রিডা ইনকরপোরেটেড প্রাইভেট লিমিটেড। বর্তমানে নেপালে রপ্তানি হচ্ছে ওয়ালটনের ফ্রিজ, টেলিভিশন, এয়ার কন্ডিশনার, ল্যাপটপ, মোবাইল ফোনসেটসহ অন্যান্য হোম অ্যাপ্লায়েন্সস।

রিডার ব্যবস্থাপনা পরিচালক সরফরাজ আনসারি জানান, দুই শতাধিক এজেন্টের মাধ্যমে নেপালে ওয়ালটন পণ্য ক্রেতাদের কাছে পৌঁছে দেওয়া হচ্ছে। কাঠমাণ্ডুর নিউ বানেশ্বর রোডে রয়েছে ওয়ালটনের শোরুম।

ফেডারেশন অব নেপাল চেম্বার অব কমার্স অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রির (এফএনসিসিআই) ভাইস চেয়ারম্যান চন্দ্র প্রসাদ দখল বলেন, দীর্ঘ সময় ধরেই নেপালের বাজারে বাংলাদেশি ব্র্যান্ড ওয়ালটন ব্যবসা করছে। পণ্যের গুণগত মানের কারণে খুুব কম সময়ে এই ব্র্যান্ডটি জনপ্রিয় হয়ে উঠেছে। সামনের দিনগুলোতে প্রতিষ্ঠানটি আরো ভালো করবে।

ওয়ালটনের আন্তর্জাতিক বিপণন বিভাগের প্রধান রকিবুল ইসলাম বলেন, এরই মধ্যে নেপালের ইলেকট্রিক ও ইলেকট্রনিকস পণ্য বাজারের একটি উল্লেখযোগ্য অংশ নিজেদের করে নিয়েছে ওয়ালটন। এবার ওয়ালটনের টার্গেট, বিশ্বের অন্যান্য অঞ্চলের মতো নেপালের বাজারেও শক্তিশালী অবস্থান তৈরি করা।



মন্তব্য