kalerkantho


এনবিআর চেয়ারম্যান হলেন মোশাররফ হোসেন ভূঁইয়া

সবার অংশগ্রহণে রাজস্ব বোঝা কমানোর প্রতিশ্রুতি

নিজস্ব প্রতিবেদক   

৪ জানুয়ারি, ২০১৮ ০০:০০



এনবিআর চেয়ারম্যান হলেন মোশাররফ হোসেন ভূঁইয়া

জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের (এনবিআর) চেয়ারম্যান হিসেবে নিয়োগ পেয়েছেন শিল্প মন্ত্রণালয়ের সাবেক সিনিয়র সচিব মো. মোশাররফ হোসেন ভূঁইয়া এনডিসি। একই সঙ্গে তাঁকে অভ্যন্তরীণ সম্পদ বিভাগের সিনিয়র সচিবও করা হয়েছে। গতকাল বুধবার তাঁকে শর্তসাপেক্ষে চুক্তিভিত্তিতে দুই বছরের নিয়োগ দিয়ে প্রজ্ঞাপন জারি করেছে জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়। জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র সহকারী সচিব মুহাম্মদ আব্দুল লতিফ স্বাক্ষরিত ওই প্রজ্ঞাপনে বলা হয়, ‘মো. মোশাররফ হোসেন ভূঁইয়া, এনডিসিকে অন্যান্য প্রতিষ্ঠান ও সংগঠনের সঙ্গে কর্ম সম্পর্ক পরিত্যাগের শর্তে দুই বছরের জন্য চুক্তিভিত্তিক নিয়োগ দেওয়া হলো।’

প্রজ্ঞাপন জারির পর গতকাল মো. মোশাররফ হোসেন ভূঁইয়া কালের কণ্ঠকে বলেন, ‘মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে দেশ পরনির্ভরশীলতা কাটিয়ে উঠছে। বাংলাদেশ অর্থনৈতিক উন্নয়নে এখন বিশ্বের রোল মডেল। আমি সর্বাত্মক চেষ্টা করব আমার দায়িত্ব সুষ্ঠুভাবে পালনে।’

তিনি বলেন, ‘বাংলাদেশ স্বনির্ভর হচ্ছে তার প্রমাণ আমরা নিজেদের অর্থায়নে এখন পদ্মা সেতুর মতো বড় অবকাঠামো নির্মাণে সক্ষম।’

রাজস্ব খাতের নতুন দায়িত্ব পাওয়া এ কর্মকর্তা বলেন, ‘আগামীতে নতুন রাজস্ব আরোপের চেয়ে রাজস্ব জালের বিস্তার হবে এনবিআরের লক্ষ্য। সাধারণ মানুষের ওপর রাজস্ব ভার চাপিয়ে নয় বরং সবার অংশগ্রহণে রাজস্বের বোঝা কমানো হবে। এনবিআরে সততা নিশ্চিত করা হবে। যে ভালো কাজ করবে তাকে পুরস্কৃত করা হবে। কোনো ধরনের দুর্নীতি প্রশ্রয় দেওয়া হবে না। রাজস্ব প্রদানে করদাতারা যেন কোনো ধরনের হয়রানির শিকার না হয় তা কঠোরভাবে নজরদারি করা হবে। সবাইকে সঙ্গে নিয়ে দেশে একটি রাজস্ববান্ধব সংস্কৃতি প্রতিষ্ঠা করা হবে।’

১৯৫৭ সালের ১ জুলাই মো. মোশাররফ হোসেন ভূঁইয়া জন্মগ্রহণ করেন। তাঁর গ্রামের বাড়ি নরসিংদী জেলার সদর উপজেলার বালুসাইর গ্রামে। তিনি ২০১৪ সালের ২৬ অক্টোবর শিল্প মন্ত্রণালয়ের সচিব পদে যোগ দেন। ২০১৬ সালের ১১ এপ্রিল সিনিয়র সচিব হিসেবে পদোন্নতি পান। গত বছরের ৩০ জুন তিনি অবসরউত্তর ছুটিতে (পিআরএল) যাওয়ার কথা ছিল। সরকার তাঁর পিআরএল বাতিল করে এক বছরের চুক্তিতে শিল্প মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র সচিব হিসেবে নিয়োগ দেয়।

মোশাররফ হোসেন ভূঁইয়া বিসিএস ১৯৮১ ব্যাচের একজন কর্মকর্তা। তিনি ১৯৮১ সালের ৩০ জানুয়ারি অডিট অ্যান্ড অ্যাকাউন্টস বিভাগে সহকারী কন্ট্রোলার মিলিটারি অ্যাকাউন্টস পদে যোগ দেওয়ার মাধ্যমে চাকরি জীবন শুরু করেন। চাকরি জীবনের প্রাথমিক পর্যায়ে তিনি প্রতিরক্ষা, অর্থ বিভাগ এবং হিসাব মহানিয়ন্ত্রকের অধীন বিভিন্ন অফিসে কাজ করেন। তিনি বাংলাদেশ পানি উন্নয়ন বোর্ডের অতিরিক্ত মহাপরিচালক এবং বাণিজ্য, শিক্ষা, স্থানীয় সরকার ও অর্থ মন্ত্রণালয়সহ বিভিন্ন মন্ত্রণালয়ের উপসচিব, যুগ্ম সচিব ও অতিরিক্ত সচিব হিসেবেও দায়িত্ব পালন করেন। মোশাররফ হোসেন ২০১০ সালের ৩ ফেব্রুয়ারি সড়ক পরিবহন ও সেতু মন্ত্রণালয়ের (তৎকালীন যোগাযোগ মন্ত্রণালয়) সেতু বিভাগের ভারপ্রাপ্ত সচিব হিসেবে নিয়োগ পান। ২০১০ সালের ২৯ জুলাই তাঁকে সচিব পদে পদোন্নতি দেওয়া হয়। এ ছাড়া তিনি বাংলাদেশ অর্থনৈতিক অঞ্চল কর্তৃপক্ষের (বেজা) নির্বাহী চেয়ারম্যান এবং প্রাইভেটাইজেশন কমিশনের সদস্য হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন। পদ্মা সেতুতে বিশ্বব্যাংকের অর্থায়ন নিয়ে দুদকের মামলায় তাঁকে গ্রেপ্তার করা হয় এবং ওএসডি করা হয়। পরে বিভিন্ন অনুসন্ধানে পদ্মা সেতুতে কোনো দুর্নীতির প্রমাণ পাওয়া যায়নি। মোশাররফ হোসেন ভূঁইয়ার বিরুদ্ধে সব অভিযোগ মিথ্যা এবং ভিত্তিহীন প্রমাণ হয়।



মন্তব্য