kalerkantho


‘স্থিতিশীলতা বাড়াতে বহুজাতিক কম্পানি আনতে হবে পুঁজিবাজারে’

নিজস্ব প্রতিবেদক   

৮ ডিসেম্বর, ২০১৭ ০০:০০



‘স্থিতিশীলতা বাড়াতে বহুজাতিক কম্পানি আনতে হবে পুঁজিবাজারে’

মেলার উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে বক্তব্য দেন বাণিজ্যমন্ত্রী তোফায়েল আহমেদ

পুঁজিবাজার আরো এগিয়ে নিতে হলে বড় বড় কম্পানি ও বহুজাতিক কম্পানিগুলোকে তালিকাভুক্ত করতে হবে বলে মনে করেন বাণিজ্যমন্ত্রী তোফায়েল আহমেদ। তিনি বলেন, এ বাজারে স্থিতিশীলতা আরো বাড়ানোর জন্য বহুজাতিক কম্পানিগুলোকে তালিকাভুক্ত করতে পদক্ষেপ নিতে হবে।

এ নিয়ে অর্থ মন্ত্রণালয়ের কাজ করা উচিত বলে তিনি মনে করেন।

গতকাল বৃহস্পতিবার রাজধানীর শিল্পকলা একাডেমিতে অনলাইন নিউজ পোর্টাল অর্থসূচক আয়োজিত তিন দিনের ‘বাংলাদেশ ক্যাপিটাল মার্কেট এক্সপো ২০১৭’-এর উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে এসব কথা বলেন বাণিজ্যমন্ত্রী তোফায়েল আহমেদ।

অর্থসূচক সম্পাদক জিয়াউর রহমানের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানের উদ্বোধন করেন অর্থ মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সভাপতি ও সাবেক মন্ত্রী ড. আব্দুর রাজ্জাক। বিশেষ অতিথি বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশনের (বিএসইসি) চেয়ারম্যান এম খায়রুল হোসেন। এ ছাড়া অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জের (সিএসই) চেয়ারম্যান ড. এ কে আবদুল মোমেন, ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জের (ডিএসই) ব্যবস্থাপনা পরিচালক কে এ এম মাজেদুর রহমান, ডিএসই ব্রোকারেজ অ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি মোস্তাক আহমেদ সাদিক, বাংলাদেশ মার্চেন্ট ব্যাংকার্স অ্যাসোসিয়েশনের (বিএমবিএ) সভাপতি মো. ছায়েদুর রহমান প্রমুখ। প্রতিদিন সকাল ১০টা থেকে রাত ৮টা পর্যন্ত সবার জন্যই উন্মুক্ত থাকবে মেলা। তৃতীয়বারের মতো এই আয়োজনে পুঁজিবাজারসংশ্লিষ্ট ৪০টির বেশি প্রতিষ্ঠান অংশ নিচ্ছে।

বাণিজ্যমন্ত্রী বলেন, একসময় ব্যাংক পুঁজিবাজার থেকে ব্যাপক মুনাফা করেছে। এটাও ঠিক এই বাজারে অনেক মানুষ ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে।

তবে কয়েক বছর ধরে আমরা এ হাহাকার শুনি না। সরকারের একজন সিনিয়র মন্ত্রী হিসেবে আমি বলব এই ব্যাংকং খাত সম্পর্কে সতর্ক থাকা প্রয়োজন। একটি দেশের অর্থনীতির বড় শক্তি ব্যাংক। এ ব্যাপারে বাংলাদেশ ব্যাংককে সতর্কতা অবলম্বন করতে হবে।

বিএনপিকে উদ্দেশ করে বাণিজ্যমন্ত্রী বলেন, খালেদা জিয়ার বিচার হচ্ছে। বিচারের ওপর তো কারো হাত দেওয়া উচিত না। উনি (খালেদা জিয়া) কোর্ট থেকে যাচ্ছেন, পেছনে ওনার ছেলে-পুলেরা কী কারণে গাড়ি ভাঙা শুরু করল। পুলিশ এসে টিয়ার শেল নিক্ষেপ করল। এটা তো ভালো লক্ষণ না। আগামীতে এগুলো করতে চাইলে এর ফল ভালো হবে না। সরকার তো পদক্ষেপ নেবে, সরকার তো আইন-শৃঙ্খলাকে স্বাভাবিক রাখার চেষ্টা করবে। ক্ষতিগ্রস্ত হবে বিএনপি। আগামী নির্বাচন সঠিক সময়ে এই সরকারের অধীনে এবং নির্বাচন কমিশনের কর্তৃত্বে অনুষ্ঠিত হবে। এর বিকল্প কিছু নেই।

সাবেক মন্ত্রী আব্দুর রাজ্জাক বলেন, ‘পুঁজিবাজার এখনো অনাস্থার জায়গা। তবে বাজার সম্পর্কে জ্ঞান অর্জন করে বিনিয়োগ করলে সফলতা আসবে। ’ তিনি বলেন, ‘বিএনপির কর্মীরা সাধারণ মানুষের গাড়িতে আগুন দিচ্ছে। আমি আওয়ামী লীগ করি, আগুন দিতে হলে আমার গাড়িতে দিক। কিন্তু সাধারণ মানুষের গাড়িতে আগুন দেওয়া তো সন্ত্রাসী কাজ। ’

বিএসইসির চেয়ারম্যান খায়রুল হোসেন বলেন, এখন পুঁজিবাজার স্থিতিশীল। সূচক ঊর্ধ্বমুখী, লেনদেন ঊর্ধ্বমুখী। বিনিয়োগকারীরাও সচেতন হয়েছেন। এখন আর কেউ মতিঝিলের রাস্তায় নেমে মিছিল করে না। বুক বিল্ডিং পদ্ধতিতে শেয়ারের কাট অফ প্রাইজ নির্ধারণের বিষয়ে তিনি বলেন, বুক বিল্ডিং পদ্ধতিতে ইস্যুয়ার ও কম্পানি যাতে ফেয়ার প্রাইস পেতে পারে তার সুযোগ দেওয়া হয়। যাতে পরস্পর পরস্পরের সঙ্গে যোগসাজশ করে কাট অফ প্রাইজ নির্ধারণ করা হয়, তাতে বাজারে সাধারণ বিনিয়োগকারীরা ক্ষতিগ্রস্ত হয়, তাহলে নিয়ন্ত্রক সংস্থা হিসেবে আমরা চুপচাপ বসে থাকতে পারি না।


মন্তব্য