kalerkantho


‘পাকিস্তানকে সবদিক থেকে ছাড়িয়ে গেছে বাংলাদেশ’

নিজস্ব প্রতিবেদক   

২১ সেপ্টেম্বর, ২০১৭ ০০:০০



বাংলাদেশ পাকিস্তানকে সবদিক থেকে ছাড়িয়ে গেছে। শুধু অর্থনৈতিক নয় জীবনের প্রায় প্রতিটি ক্ষেত্রে জাতীয়, উৎপাদন, মাথাপিছু উৎপাদন, বৈদেশিক মুদ্রার রিজার্ভ, ব্যবসা-বাণিজ্য, গণতন্ত্রায়ন, স্বচ্ছতা অর্জন।

প্রতিটি ক্ষেত্রে আমরা তাদের ছাড়িয়ে গেছি।

গতকাল বুধবার রাজধানীর একটি হোটেলে বাংলাদেশ কাস্টমসের নতুন ওয়েবসাইটের উদ্বোধন অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তৃতায় অর্থ ও পরিকল্পনা প্রতিমন্ত্রী এম এ মান্নান এসব কথা বলেন।

আমরা সরকারের সব কাজের সঙ্গে জনগণকে সম্পৃক্ত করেছি এ কথা উল্লেখ করে প্রতিমন্ত্রী আরো বলেন, ‘সরকার এমন সব কাজ করছে যার ফলে অর্থনৈতিক প্রবৃদ্ধি বাড়ছে। আমরা সরকারের সকল কাজকে জনগণের দোরগোড়ায় নিয়ে যেতে চাই। ’

‘কাস্টমসের সব তথ্য আপনার হাতের নাগালে’ এই স্লোগানে অনলাইনে বাংলাদেশ কাস্টমসের সব সুবিধা প্রদানের জন্য উদ্বোধন করা হয়েছে বাংলাদেশ কাস্টমসের নতুন ওয়েবসাইটটি। মার্কিন দাতা সংস্থা ইউএসএআইডির বাংলাদেশ ট্রেড ফ্যাসিলিটেশন অ্যাক্টিভিটি (বিটিএফএ) প্রকল্পের আওতায় জাতীয় রাজস্ব বোর্ড (এনবিআর) ও ইউএসএআইডি যৌথভাবে এ ওয়েবসাইট তৈরি করেছে। ইউএসএআইডির মিশন ডিরেক্টর জেনিনা জারুজেকসকি বলেন, ইউএসএআইডির সহায়তায় বাংলাদেশ কাস্টমসের জন্য তৈরি করা এই ওয়েবসাইট বাংলাদেশের অর্থনীতিতে ভূমিকা রাখবে। এ ওয়েবসাইটে অসংখ্য তথ্য রয়েছে এবং ইউজার ফ্রেন্ডলি করা হয়েছে। এই ওয়েবসাইট ব্যবহারের ফলে শুল্কায়নের ক্ষেত্রে সময় বাঁচবে, রাজস্ব বাড়বে।

সরকারের ভিশন ২০২১ পূরণে সহায়তা করবে।

অনুষ্ঠানে কাস্টমসের নতুন ওয়েবসাইট সম্পর্কে তুলে ধরে ইউএসএআইডির বাংলাদেশ ট্রেড ফ্যাসিলিটেশন অ্যাক্টিভিটির চিফ অব পার্টি মো. খায়রুজ্জামান মজুমদার বলেন, কাস্টমসের নতুন এ ওয়েবসাইট একটি ডায়ানামিক ওয়েবসাইট। এতে বাংলাদেশ কাস্টমসের সকল তথ্য পাওয়া যাবে।

তিনি বলেন, এই ওয়েবসাইটে কাস্টমসের সকল ফর্ম পাওয়া যাবে। সব ফর্ম ডাউনলোড ও কিছু কিছু ফর্ম অনলাইনে পূরণ করা যাবে। কিছু রেজিস্ট্রেশন করা এবং পণ্য ডিক্লারেশন দেওয়া যাবে। এখানে ডিউটি ক্যালকুলেটর ব্যবহার করে শুল্কায়ন করা যাবে। কাস্টমসের সকল এসআরও পাওয়া যাবে। ব্যাগেজ রুল, বিদেশগামী যাত্রীদের প্রয়োজনীয় তথ্য, বাংলাদেশে কোন কোন পণ্য শুল্কমুক্ত, বিশ্ববাজারে বাংলাদেশের কোন কোন পণ্য শুল্কমুক্ত, সকল কাস্টমস হাউসের ম্যাপ, ট্যারিফ ইত্যাদি থাকবে। ওয়েবসাইট বাংলা ও ইংরেজি দুই ভাষায় ব্যবহার করা যাবে।


মন্তব্য