kalerkantho


ফরমালিন ব্যবহার নিয়ে পাল্টাপাল্টি অভিযোগ

আখাউড়া বন্দর দিয়ে বন্ধ মাছ রপ্তানি

বিশ্বজিৎ পাল বাবু, ব্রাহ্মণবাড়িয়া   

৭ মার্চ, ২০১৭ ০০:০০



আখাউড়া বন্দর দিয়ে বন্ধ মাছ রপ্তানি

ব্রাহ্মণবাড়িয়ার আখাউড়া স্থলবন্দর দিয়ে গতকাল সোমবার থেকে অনির্দিষ্টকালের জন্য মাছ রপ্তানি বন্ধ হয়ে গেছে। বাংলাদেশের কাস্টমস কর্তৃপক্ষ ও ব্যবসায়ীরা মাছ রপ্তানি বন্ধ থাকার বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

মাছে ফরমালিন পাওয়ার অভিযোগে ভারতীয় কাস্টমস কর্তৃপক্ষ মাছ আমদানি করবে না বলে গত রবিবার বাংলাদেশের ব্যবসায়ীদের জানিয়ে দেয়।

সংশ্লিষ্ট ব্যক্তিরা জানান, ভারতের ত্রিপুরা রাজ্যের আগরতলার বিভিন্ন বাজার থেকে সম্প্রতি বেশ কিছু মাছ সংগ্রহ করে বাণিজ্য মন্ত্রণালয় সংশ্লিষ্ট একটি সংস্থা। পরে এসব মাছ পরীক্ষা করে বেশ কয়েকটিতে ফরমালিনের অস্তিত্ব পাওয়া যায়, যা মানবদেহের জন্য মারাত্মক ক্ষতিকারক। এ অবস্থায় দুই দিন ধরেই মাছ নিতে অনীহা প্রকাশ করে ভারতীয় কাস্টমসহ সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ। গত শনিবার আখাউড়া ও আগরতলা স্থলবন্দরের কাস্টমস কর্তৃপক্ষ এবং দুই দেশের ব্যবসায়ীদের মধ্য আলোচনা হয়। ওই বৈঠকে রবিবার মাছ পাঠানোর সিদ্ধান্ত হয়। তবে গতকাল ভারতীয় কর্তৃপক্ষ মাছ নেবে না বলে জানিয়ে দেয়।

আখাউড়া স্থলবন্দরের ব্যবসায়ী মো. হাসিবুল হাসান বলেন, ‘বাংলাদেশ থেকে যে মাছ যায় তা পরীক্ষা করে পাঠানো হয়। বাংলাদেশের মাছে কোনো ধরনের ফরমালিন নেই।

কিন্তু আগরতলার বাজারের অন্য মাছে ফরমালিন পাওয়া যাওয়ায় এর দায় পড়ছে বাংলাদেশের মাছের ওপর। এতে বাংলাদেশের ব্যবসায়ীদের ক্ষতির সম্মুখীন হতে হবে।  

আখাউড়া স্থলবন্দর আমদানি-রপ্তানিকারক অ্যাসোসিয়েশনের সাধারণ সম্পাদক মো. শফিকুল ইসলাম কালের কণ্ঠকে বলেন, ‘ভারতের অন্ধ প্রদেশ থেকে আসা যেসব মাছ আগরতলার বাজারে বিক্রি হয় মূলত সেগুলোতে ফরমালিন পাওয়া গেছে। কিন্তু ভারতীয় কাস্টমস কর্তৃপক্ষ মনে করছে যদি এখানকার মাছেও ফরমালিন পাওয়া যায় তাহলে আমদানিতে সমস্যা হতে পারে। যে কারণে তারা দুই-তিন দিনের জন্য বাংলাদেশ থেকে মাছ রপ্তানি বন্ধ রাখতে বলেছে। বিষয়টি নিয়ে বাংলাদেশের ব্যবসায়ীরা একাধিকবার আগরতলায় গিয়ে সেখানকার কাস্টমস কর্তৃপক্ষের সঙ্গে কথা বলেছেন। আলোচনার পরিপ্রেক্ষিতে সোমবার মাছ রপ্তানি হয়নি। ’

আখাউড়া স্থলবন্দরের রাজস্ব কর্মকর্তা মো. শফিকুল ইসলাম বলেন, আগরতলার বাজার থেকে ৪০টি মাছ নমুনা হিসেবে সংগ্রহ করে ১১টিতে ফরমালিন পাওয়া যায়। কিন্তু ফরমালিন পাওয়া মাছগুলো যে বাংলাদেশ থেকে যাওয়া মাছ তা নিশ্চিত নয়। এর পরও সমস্যা এড়াতে ভারতীয় কাস্টম আমাদের ও বাংলাদেশের ব্যবসায়ীদের মাছ রপ্তানি না করতে বলেছে। কিন্তু মাছ রপ্তানিতে যেহেতু আমাদের এখানে সমস্যা নেই সেহেতু বাংলাদেশের ব্যবসায়ীরা নিয়ে এলে নিয়মমাফিক আমরা তা পাঠিয়ে দেব। তবে সোমবার মাছ রপ্তানি হয়নি বলে জানান তিনি।

আখাউড়া স্থলবন্দর দিয়ে দিনকে দিন রপ্তানি কমে আসছে। তবে এখন সবচেয়ে বেশি রপ্তানি হয় মাছ। এ অবস্থায় মাছ রপ্তানি বন্ধ হয়ে গেলে বন্দরটি কার্যত অচল হয়ে পড়বে মনে করছেন ব্যবসায়ীরা।


মন্তব্য