kalerkantho


উচ্চতর গণিত প্রথম ও দ্বিতীয় পত্র

প্রশ্নে শর্ত বা নোট থাকলে খেয়াল করবে

অনাদি নাথ মণ্ডল, সহকারী অধ্যাপক, ঢাকা রেসিডেনসিয়াল মডেল কলেজ, ঢাকা   

২৩ মার্চ, ২০১৬ ০০:০০



প্রশ্নে শর্ত বা নোট থাকলে খেয়াল করবে

পরীক্ষার আগ মুহূর্তের প্রস্তুতি কেমন, তার ওপর গণিতের ফলাফলের ভালো-মন্দ অনেকটা নির্ভর করে। তাই প্রস্তুতি-পরিকল্পনার ছক করতে হবে। এরপর সে অনুযায়ী এগোতে হবে। প্রশ্নে শর্ত বা নোট দেওয়া থাকলে সেগুলো ভালো করে খেয়াল করবে। যেসব প্রশ্ন ভালো পারো, সেগুলো আগে দেবে।

গণিতে ভালো করতে চাইলে যা যা করবে—

* ভালো প্রস্তুতির জন্য অধ্যায়/প্রশ্ন বাছাই খুবই গুরুত্বপূর্ণ। অনেকে পরীক্ষার আগে সব অধ্যায় করতে গিয়ে তালগোল পাকিয়ে ফেলে। গুরুত্বপূর্ণ অধ্যায়গুলো ঠিকভাবে দেখা হয় না।

* যে অঙ্কগুলো কঠিন অথবা একটু সময় নিয়ে বা কৌশলে করতে হবে—সেগুলো বাছাই করবে কিংবা টুকে রাখবে, যাতে পরীক্ষার আগে বেশি বেশি চর্চা করা যায়।

* ম্যাট্রিক্স, নির্ণায়ক, ভেক্টর ইত্যাদির চিহ্নের প্রয়োগে সতর্ক থাকবে।

* লেখচিত্রের ক্ষেত্রে বেশি বিন্দু নিলে সঠিকভাবে চিত্র আঁকা সম্ভব হয়।

* গতিবিদ্যা ও স্থিতিবিদ্যার প্রশ্নপত্রের প্যাটার্ন বদলেছে। এ অংশের বিশেষ প্রস্তুতি প্রয়োজন। বস্তুর ওপর বলের প্রভাব, সমবিন্দু বল, সমান্তরাল বল, ত্বরণ, প্রক্ষেপক ইত্যাদির থিওরি সংক্রান্ত অঙ্ক ভালোভাবে করবে।

* বিন্যাস ও সমাবেশ অধ্যায় খুব ভালো করে পড়বে, বিশেষ করে বিন্যাস অংশ ভালোভাবে অনুশীলন করতে হবে।

* অনির্দিষ্ট যোগজীকরণে সমাকলন ধ্রুবক দিতে ভুলবে না।

* ত্রিকোণমিতিক সমাধানে পূর্ণসংখ্যা লিখতে হবে। শুদ্ধি পরীক্ষাও করবে। সীমা দেওয়া থাকলে সে অনুযায়ী নেবে।

* প্রয়োজনীয় সূত্রগুলো বাসায় বারবার লিখবে, বিশেষ করে ত্রিকোণমিতিক সূত্র। এর ওপরই ক্যালকুলাস ও স্থিতিবিদ্যায় ভালো করা নির্ভর করছে।

পুরো পরীক্ষা খুব স্থিরভাবে দিতে হবে। মোটেও বেখেয়ালি হওয়া যাবে না। তাহলে জানা প্রশ্নের উত্তরেও ভুল হতে পারে। গণিতে এমনি টুকটাক ভুল হয়। তাই সময় শেষ হওয়ার ১৫-২০ মিনিট আগেই লেখা শেষ করার চেষ্টা করবে। আর বাকি সময় রিভিশন দেবে।


মন্তব্য