kalerkantho


বাংলা প্রথম ও দ্বিতীয় পত্র

সৃজনশীলে প্রতিটি উত্তর ২৩ মিনিটের মধ্যে লিখবে

মো. শহিদুল ইসলাম, প্রভাষক, ন্যাশনাল আইডিয়াল কলেজ, ঢাকা   

২৩ মার্চ, ২০১৬ ০০:০০



সৃজনশীলে প্রতিটি উত্তর ২৩ মিনিটের মধ্যে লিখবে

প্রথম পত্র

পরীক্ষা হবে সৃজনশীল পদ্ধতিতে। এবারের প্রথম পত্রের সিলেবাস পুরোপুরি নতুন।

ক (গদ্য), খ (পদ্য) ও গ (সহপাঠ : উপন্যাস ও নাটক)—এই তিন ভাগে বিভক্ত প্রশ্নপত্রে ৩টি করে মোট ৯টি প্রশ্ন থাকবে। প্রত্যেক বিভাগ থেকে ২টি করে মোট ৬টি প্রশ্নের উত্তর দিতে হবে।

পাঠ্য বইয়ের সংশ্লিষ্ট গদ্য, পদ্য ও সহপাঠের আলোকে উদ্দীপক তৈরি করা হবে। যে গল্প, কবিতা, উপন্যাস বা নাটক থেকে উদ্দীপক তৈরি করা হবে সে গল্প, কবিতা, নাটক বা উপন্যাস থেকেই থাকবে জ্ঞান ও অনুধাবনমূলক প্রশ্ন। এ দুটি প্রশ্নের উত্তর উদ্দীপকের আলোকে হবে না, বই থেকে সরাসির প্রশ্ন হবে, উত্তরও সরাসরি দিতে হবে। প্রয়োগ ও উচ্চতর দক্ষতামূলক প্রশ্ন হবে উদ্দীপক ও পাঠ্য বইয়ের সংশ্লিষ্ট বিষয়ের আলোকে। সময়মতো সৃজনশীল অংশের ৬টি প্রশ্নের উত্তর দিতে হলে অবশ্যই প্রতিটি প্রশ্নের উত্তর ২২-২৩ মিনিটের মধ্যে শেষ করতে হবে। এর বেশি সময় নিলে সব প্রশ্নের উত্তর সময়মতো শেষ করা যাবে না। যখন একটি উদ্দীপকের সংশ্লিষ্ট প্রশ্নের উত্তর লেখা শুরু করবে, তখন তার চারটি অংশের উত্তর ধারাবাহিকভাবে হতে হবে।

জ্ঞানমূলক প্রশ্নের নম্বর ১। এর উত্তর একটি শব্দে বা একটি বাক্যে লিখলেই চলবে। অনুধাবনমূলক প্রশ্নের নম্বর ২। এর মধ্যে ১ নম্বর জ্ঞানের জন্য এবং ১ নম্বর অনুধাবনের জন্য। আর এ ক্ষেত্রে ভালো নম্বর পাওয়ার জন্য দুটি প্যারা করে প্রথম প্যারায় জ্ঞান ও দ্বিতীয় প্যারায় অনুধাবনের উত্তর লিখবে। প্রয়োগমূলক প্রশ্নের পূর্ণমান ৩ (জ্ঞানে ১, অনুধাবনে ১ ও প্রয়োগে ১ নম্বর)। ভালো নম্বর পাওয়ার জন্য ৩টি প্যারায় জ্ঞান, অনুধাবন ও প্রয়োগ অংশের উত্তর লিখবে। উচ্চতর দক্ষতামূলক প্রশ্নের মোট নম্বর ৪ (জ্ঞানে ১, অনুধাবনে ১, প্রয়োগে ১ ও উচ্চতর দক্ষতায় ১ নম্বর)। উচ্চতর দক্ষতায় ব্যক্তিগত মতামতের বহিঃপ্রকাশ ঘটে। প্রশ্নেই সাধারণত একটি ‘অনুসিদ্ধান্ত’ দেওয়া থাকে। যদি সিদ্ধান্তটি সঠিক হয়, তবে সেটিকে ব্যাখ্যা-বিশ্লেষণ করে সঠিক প্রমাণ করতে হবে। আর যদি ভুল হয়, তবে কেন ভুল—তাও প্রমাণ করতে হবে। আংশিক সত্য হলে উদ্দীপকের সঙ্গে পাঠ্য বইয়ের যে অংশের মিল আছে তা এবং যে অংশের মিল নেই—তা বর্ণনা করতে হবে, সিদ্ধান্ত দিতে হবে যে বক্তব্যটি আংশিক সত্য, পুরোপুরি নয়। বিচার-বিশ্লেষণের মাধ্যমে সঠিক সিদ্ধান্ত দেওয়ার নামই উচ্চতর দক্ষতা। এ অংশে ৪টি প্যারায় জ্ঞান, অনুধাবন, প্রয়োগ ও উচ্চতর দক্ষতার উত্তর লিখবে।

বহু নির্বাচনী প্রশ্নের উত্তর ভেবেচিন্তে করবে।

 

দ্বিতীয় পত্র

দ্বিতীয় পত্রের সিলেবাসটিও নতুন।

ব্যাকরণ অংশের পূর্ণমান ৩০। এখানে ৬টি প্রশ্ন থাকবে এবং অথবা দিয়ে প্রতিটি প্রশ্নের বিকল্প থাকবে। প্রতিটি প্রশ্নের পূর্ণমান ৫। এ ক্ষেত্রে সাধারণত ‘ক’ নম্বর প্রশ্ন বর্ণনামূলক এবং ‘খ’ নম্বর প্রশ্ন নির্ণয়মূলক হয়। প্রশ্নপত্রের ১ নম্বর প্রশ্নে উচ্চারণের যেকোনো ৫টি নিয়ম লিখতে হবে। এর বিকল্প ৮টি শব্দের মধ্যে ৫টি শব্দের উচ্চারণ লিখতে হবে। ২ নম্বর প্রশ্নে বাংলা বানানের নিয়ম ও বাংলা একাডেমি প্রণীত প্রমিত বাংলা বানানের ৫টি নিয়ম লিখতে হবে। এর বিকল্পে ৮টি ভুল বানানের মধ্যে ৫টির বানান শুদ্ধ করে লিখতে হবে। এ অংশে ভালো করতে হলে বাংলা বানানে বিশেষ দক্ষতা অর্জন করতে হবে। ৩ নম্বর প্রশ্নে ব্যাকরণিক শব্দশ্রেণি বা পদ (বিশেষ্য, বিশেষণ, সর্বনাম, ক্রিয়া, ক্রিয়া বিশেষণ, আবেগ শব্দ, যোজক, অনুসর্গ) থেকে একটি বর্ণনামূলক প্রশ্নের উত্তর দিতে হবে। এর বিকল্পে প্রদত্ত অনুচ্ছেদ থেকে একটি নির্দিষ্ট শব্দশ্রেণি চিহ্নিত করতে হবে। ৪ নম্বর প্রশ্নে উপসর্গ, প্রত্যয় ও সমাসের মধ্যে যেকোনো ২টি পাঠ থেকে প্রশ্ন থাকবে এবং ১টির উত্তর করতে হবে। প্রতিটি প্রশ্নেই ৮টির মধ্যে ৫টির উত্তর দিতে হবে। এ অংশে ভালো করতে হলে সমাস, প্রকৃতি-প্রত্যয় ও উপসর্গ নির্ণয়ে দক্ষতা অর্জন করতে হবে। ৫ নম্বরে বাক্যতত্ত্ব অংশ থেকে একটি বর্ণনামূলক প্রশ্নের উত্তর দিতে হবে। এর বিকল্পে ৮টি বাক্যের মধ্যে ৫টির বাক্যান্তর করতে হবে। এ অংশে ভালো করতে হলে বাক্য পরিবর্তনের নিয়মগুলো ভালোভাবে দেখবে।

৬ নম্বর প্রশ্নে ৮টি অশুদ্ধ বাক্যের মধ্যে ৫টিকে শুদ্ধ করতে হবে এবং এর বিকল্পে একটি অনুচ্ছেদে বিদ্যমান অপপ্রয়োগসমূহ শুদ্ধ করতে হবে।

নির্মিতি অংশের মান ৭০। এখানেও ৬টি প্রশ্ন থাকবে এবং প্রতিটি প্রশ্নের বিকল্প থাকবে। এর মধ্যে রচনায় ২০ নম্বর ও অন্যান্য প্রশ্নের জন্য ১০ নম্বর করে থাকবে। এ অংশের ৭ নম্বর প্রশ্নে ১৫টি বিদেশি শব্দের মধ্যে ১০টি বাংলা পরিভাষা লিখতে হবে। এর বিকল্পে ইংরেজি একটি অনুচ্ছেদকে বাংলায় অনুবাদ করতে হবে। ৮ নম্বরে ঘটনাসমৃদ্ধ পুরো একটি দিনকে অবলম্বন করে একটি দিনলিপি রচনা করতে হবে অথবা কোনো একটি বিষয়ে (দিবস উদ্যাপন, ঐতিহাসিক স্থান পরিদর্শন ইত্যাদি) অভিজ্ঞতা বর্ণনা করতে হবে। এর বিকল্পে একটি ভাষণ বা প্রতিবেদন লিখতে হবে।

৯ নম্বর প্রশ্নে একটি বিশেষ উৎসব বা উপলক্ষ (ঈদ, পূজা, নববর্ষ ইত্যাদি) অবলম্বনে একটি ই-মেইল অথবা ৫টি  বাক্যে একটি খুদে বার্তা রচনা করতে হবে। এর বিকল্পে যেকোনো এক প্রকার (ব্যক্তিগত, আবেদন, বাণিজ্যিক, সম্পাদক বরাবর) পত্র লিখতে হবে। ই-মেইল লেখার সময় প্রেরক ও প্রাপকের ঠিকানা ইংরেজিতে এবং অন্যান্য বিষয় বাংলায় লিখবে। চিঠিপত্র পুরনো ও আধুনিক যেকোনো নিয়মেই লেখা যায়, তবে যে নিয়মেই লেখো না কেন—এক নিয়মেই লিখবে, দুই নিয়ম মিলিয়ে নয়।

১০ নম্বর প্রশ্নে সারাংশ বা সারমর্ম থেকে ১টি প্রশ্ন থাকবে এবং এর বিকল্পে ১টি ভাব-সম্প্রসারণ করতে বলা হবে।

সারাংশ বা সারমর্ম দুই-তিনবার পড়ে সরল ও প্রাঞ্জল ভাষায় মূল কথাটুকু তিন-চারটি বাক্যে লিখবে। ভাব-সম্প্রসারণ তিন প্যারায় (মূলভাব, সম্প্রসারিতভাব ও মন্তব্য) লেখা শ্রেয়। প্যারার নাম উল্লেখ না করাই ভালো। সারাংশ ও ভাব-সম্প্রসারণে উপমা, উদাহরণ বা কোটেশন ব্যবহার থেকে বিরত থাকবে।

১১ নম্বর প্রশ্নে কোনো একটি বিশেষ ঘটনা বা পরিস্থিতির আলোকে দুজনের মধ্যে নাটকের সংলাপের মতো সংলাপ বা কথোপকথন রচনা করতে হবে। এর বিকল্পে প্রশ্নে প্রদত্ত একটি গল্পের শিরোনাম বা দৃশ্যপট অবলম্বনে একটি খুদে গল্প রচনা করতে হবে।

সবশেষ ১২ নম্বর প্রশ্নে যেকোনো ৫টি বিষয়ের ১টি অবলম্বনে একটি প্রবন্ধ লিখতে হবে।

শিক্ষার্থীর সৃজনশীলতার প্রতিফলন ঘটবে—এমন প্রবন্ধ পরীক্ষায় আসবে। রচনায় উপমা, উদাহরণ ও কোটেশনের ব্যবহার রচনাকে সমৃদ্ধ করবে।


মন্তব্য