kalerkantho


ডেসকোর দরকার ২২৯ কর্মী

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

২১ নভেম্বর, ২০১৮ ১১:৫৯



ডেসকোর দরকার ২২৯ কর্মী

সহকারী প্রকৌশলী (টেকনিক্যাল), উপসহকারী প্রকৌশলী (টেকনিক্যাল), জুনিয়র সহকারী ব্যবস্থাপক (অর্থ), সাব-স্টেশন অ্যাটেনডেন্টসহ বিভিন্ন পদে অস্থায়ী ভিত্তিতে ২২৯ কর্মী নেবে সরকারি প্রতিষ্ঠান ডেসকো। আবেদন করা যাবে আগামী ৩ ডিসেম্বর পর্যন্ত। বিস্তারিত জানাচ্ছেন ফরহাদ হোসেন

সহকারী প্রকৌশলী (টেকনিক্যাল), সহকারী ব্যবস্থাপক (প্রশাসন), উপসহকারী প্রকৌশলী (টেকনিক্যাল), জুনিয়র সহকারী ব্যবস্থাপক (প্রশাসন), জুনিয়র সহকারী ব্যবস্থাপক (অর্থ), সহকারী কেব্ল জয়েন্টার, অফিস সহকারী (বিলিং/রেভিনিউ/স্টোর ভেন্ডিং)/ ফিল্ড সহকারী, সাব-স্টেশন অ্যাটেনডেন্ট, মেশিন অপারেটর, অ্যাসিস্ট্যান্ট কমপ্লেইন্ট সুপারভাইজর, সহকারী লাইনম্যান, রিসিপশনিস্ট, ইলেকট্রিশিয়ান, স্পেশাল গার্ড এবং বার্তাবাহক পদে লোকবল নেওয়া হবে। বিজ্ঞপ্তি ছাপা হয়েছে ১৩ নভেম্বর ইত্তেফাক, সমকাল ও বাংলাদেশ প্রতিদিনে। বিজ্ঞপ্তিটি পাওয়া যাবে http://www.desco.org.bd/bangla/career_b.php ওয়েবসাইটে ও http://bit.ly/2Q6uMcJ শর্টলিংকে। আবেদনের যোগ্যতা ও অন্যান্য তথ্য পাওয়া যাবে বিজ্ঞপ্তিতে। ২৯ জুনের বিজ্ঞপ্তির আলোকে আবেদনকারীদের পুনরায় আবেদনের প্রয়োজন নেই।

পরীক্ষা পদ্ধতি
ডেসকোর প্রধান কার্যালয়ের এইচআরএম শাখার উপমহাব্যবস্থাপক (চলতি দায়িত্ব) মো. মামুনুর রশীদ জানান, আবেদন জমা হওয়ার নির্ধারিত সময়ের মধ্যে পাওয়া আবেদন যাচাই-বাছাই করে যোগ্যদের তালিকা এবং প্রবেশপত্র অনলাইনে আপলোড করা হবে। প্রবেশপত্রে পরীক্ষার ধরন, সময়, স্থানসহ প্রয়োজনীয় তথ্য দেওয়া থাকবে। প্রার্থীরা ডেসকোর ওয়েবসাইট থেকে প্রবেশপত্র প্রিন্ট ও ডাউনলোড করে নিতে পারবে। পরীক্ষা নেওয়া হয় তৃতীয় পক্ষের মাধ্যমে। প্রার্থী বাছাইয়ে লিখিত ও মৌখিক পরীক্ষা নেওয়া হবে। মোট ১০০ নম্বরের পরীক্ষা হবে। এর মধ্যে ৮০ নম্বরের লিখিত এবং ২০ নম্বর থাকবে মৌখিক পরীক্ষায়। এমসিকিউ পদ্ধতির লিখিত পরীক্ষায় অ্যানালিটিক্যাল অ্যাবিলিটিতে ২০, পদসংশ্লিষ্ট বিষয়ে ৪০, সাধারণ জ্ঞানে ২০, বাংলা, ইংরেজি ও পাওয়ার সেক্টর মিলে থাকবে ২০ নম্বর। ১০০ নম্বরকে ৮০-তে কনভার্ট করে মূল্যায়ন করা হবে। লিখিত পরীক্ষায় ন্যূনতম ৫০ শতাংশ নম্বর পেয়ে পাস করলে মৌখিক পরীক্ষার জন্য ডাকা হবে। কর্তৃপক্ষ চাইলে পরীক্ষা পদ্ধতিতে পরিবর্তন আনতে পারে।

পরীক্ষার প্রস্তুতি
ডেসকো সূত্রে জানা যায়, নিয়োগ পরীক্ষায় পদসংশ্লিষ্ট বিষয়, অ্যানালিটিক্যাল অ্যাবিলিটি, পাওয়ার সেক্টরের প্রাথমিক বিষয়, সাধারণ জ্ঞান এবং বাংলা ও ইংরেজি, বিষয়ে প্রশ্ন করা হয়ে থাকে। বাজারে অ্যানালিটিক্যাল অ্যাবিলিটির বেশ কিছু বই পাওয়া যায়। এসব বই কাজে দেবে। এ ছাড়া এইচএসসির বাংলা, উচ্চতর গণিত, ইংরেজি এবং নবম-দশম শ্রেণির বাংলা, ইংরেজি, গণিত বিষয়ে ভালো ধারণা রাখতে হবে।

টেকনিক্যাল পদে পদসংশ্লিষ্ট প্রশ্নও করা হতে পারে। এসব পদে অষ্টম শ্রেণির বাংলা, ইংরেজি ও গণিত বিষয়ের ওপর জোর দিতে হবে। বাজারে বিভিন্ন প্রকাশনীর নিয়োগ বই পাওয়া যায়। এসব বইয়ে আগের নিয়োগ পরীক্ষার প্রশ্ন দেওয়া থাকে। পুরনো প্রশ্নপত্র ঘাঁটলে প্রস্তুতিতে কাজে দেবে।

বেতন-ভাতা
সহকারী প্রকৌশলী (টেকনিক্যাল) ও সহকারী ব্যবস্থাপক (প্রশাসন) পদে বেতন পাওয়া যাবে ৫১০০০ টাকা। উপসহকারী (টেকনিক্যাল), জুনিয়র সহকারী ব্যবস্থাপক (প্রশাসন) ও জুনিয়র সহকারী ব্যবস্থাপক (অর্থ) পদে ৩৯০০০ টাকা। সহকারী কেব্ল জয়েন্টার পদে ২৫০০০ টাকা। অফিস সহকারী, সাব-স্টেশন অ্যাটেনডেন্ট, মেশিন অপারেটর, সহকারী কমপ্লেন্ট সুপারভাইজর পদের বেতন ২৪০০০ টাকা। সহকারী লাইনম্যান, রিসিপশনিস্ট, ইলেকট্রিশিয়ান পদে ২৩০০০ টাকা, স্পেশাল গার্ড পদে ১৮০০০ টাকা এবং বার্তাবাহক পদে ১৫৫০০ টাকা মূল বেতনসহ অন্যান্য সুবিধা পাওয়া যাবে।



মন্তব্য