kalerkantho


হতে পারেন আনসার

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

১৯ সেপ্টেম্বর, ২০১৮ ১২:০১



হতে পারেন আনসার

অঙ্গীভূত আনসার (সাধারণ আনসার) পদে লোক নেবে বাংলাদেশ আনসার ও গ্রাম প্রতিরক্ষা বাহিনী। অনলাইনে আবেদন করা যাবে ২৭ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত। বিস্তারিত জানাচ্ছেন রায়হান রহমান

সম্প্রতি অস্থায়ী ভিত্তিতে সাধারণ আনসার (পুরুষ) পদে লোক চেয়ে বিজ্ঞপ্তি দিয়েছে বাংলাদেশ আনসার ও গ্রাম প্রতিরক্ষা বাহিনী। চূড়ান্ত নিয়োগের পর প্রার্থীদের আনসার-ভিডিপি একাডেমি, গাজীপুরে ১০ সপ্তাহ মেয়াদের প্রশিক্ষণ দেওয়া হবে। প্রশিক্ষণ শেষে কাজ করতে হবে বিমানবন্দর, সমুদ্রবন্দর, পাওয়ার স্টেশন, নগরীর ট্রাফিক কন্ট্রোল, রেলস্টেশনসহ বিভিন্ন সরকারি-বেসরকারি প্রতিষ্ঠানের নিরাপত্তা রক্ষায়। বিজ্ঞপ্তিটি ছাপা হয়েছে ১২ সেপ্টেম্বরের বাংলাদেশ প্রতিদিন পত্রিকায়।

আবেদনের যোগ্যতা
কমপক্ষে জেএসসি বা অষ্টম শ্রেণি পাস হতে হবে। শারীরিক উচ্চতা ন্যূনতম ৫ ফুট ৪ ইঞ্চি এবং বুকের মাপ ৩০ ইঞ্চি বাই ৩২ ইঞ্চি থাকতে হবে। দৃষ্টিশক্তি চাওয়া হয়েছে ৬ বাই ৬।  নাটোর, বগুড়া, নওগাঁ, জয়পুরহাট, পাবনা, সিরাজগঞ্জ, রাজশাহী, চাঁপাইনবাবগঞ্জ, রংপুর, গাইবান্ধা, ঠাকুরগাঁও, পঞ্চগড়, লালমনিরহাট, কুড়িগ্রাম, দিনাজপুর, নীলফামারী, সিলেট, সুনামগঞ্জ, হবিগঞ্জ ও মৌলভীবাজারের স্থায়ী বাসিন্দা হতে হবে। এ ক্ষেত্রে অগ্রাধিকার দেওয়া হবে অধিক উচ্চতাসম্পন্ন, শহীদ পরিবারের সদস্য, ক্রীড়া ও সংস্কৃতি জানা লোক এবং আনসার-ভিডিপির মৌলিক প্রশিক্ষণপ্রাপ্তদের। ৭ থেকে ২৭ সেপ্টেম্বর ২০১৮ তারিখের মধ্যে বয়সসীমা ১৮ থেকে ৩০ বছর হতে হবে।

আবেদন যেভাবে
আবেদন করতে হবে অনলাইনে। বাংলাদেশ আনসার ও গ্রাম প্রতিরক্ষা বাহিনীর রিক্রুটমেন্ট সাইটে (http://103.48.16.225:8080/application-circulars) প্রবেশ করতে হবে। রেজিস্ট্রেশন ফি বাবদ ২০০ টাকা দিতে হবে বিকাশ, রকেট বা মোবিক্যাশের মাধ্যমে। ফি পরিশোধের পর পাওয়া যাবে প্রবেশপত্র। এটি প্রিন্ট করে পরীক্ষার সময় সঙ্গে নিয়ে যেতে হবে।

প্রয়োজনীয় কাগজপত্র
বাছাই প্রক্রিয়ায় অংশ নেওয়ার সময় শিক্ষাগত যোগ্যতা, নাগরিকত্ব সনদ, চারিত্রিক সনদ, জাতীয় পরিচয়পত্র, প্রবেশপত্রের এক কপি সত্যায়িত ফটোকপিসহ মূল সনদ সঙ্গে নিতে হবে। লাগবে পাসপোর্ট সাইজের চার কপি সত্যায়িত রঙিন ছবি। সঙ্গে রাখতে হবে কলম, পেনসিল ও ক্লিপবোর্ড।

বাছাই পরীক্ষার প্রস্তুতি
বাংলাদেশ আনসার ও  গ্রাম প্রতিরক্ষা বাহিনীর উপমহাপরিচালক (প্রশাসন) কর্নেল মহিউদ্দীন মো. জাবেদ বলেন, তিন ধাপে প্রার্থীদের যাচাই-বাছাই করা হবে। প্রাথমিক বাছাইয়ে শারীরিক গঠন, বয়স, উচ্চতা, দৃষ্টিশক্তি, বুকের মাপ পরীক্ষা করে দেখা হবে। দৌড়, লং জাম্পের আয়োজন করা হয়। দেখা হয় হাঁটা বা দৌড় দেওয়ার সময় দুই হাঁটু লেগে যায় কি না।

লিখিত পরীক্ষায় সাধারণত পঞ্চম-অষ্টম শ্রেণির পাঠ্য বই থেকে বেশি প্রশ্ন আসে। বাংলা, ইংরেজি, গণিতের পাঠ্য বইয়ের গুরুত্বপূর্ণ অধ্যায়গুলো চর্চা করতে হবে। সাধারণ জ্ঞানের জন্য বিগত দুই বছরের আলোচিত বিষয়গুলো সম্পর্কে ধারণা রাখতে হবে। লিখিত পরীক্ষার পরপরই ভাইভা বা মৌখিক পরীক্ষায় অংশ নিতে হবে। তাই একাধিক পোশাক সঙ্গে রাখলে ভালো হয়। মৌখিক পরীক্ষায় আনসার-ভিডিপির কার্যক্রম ও পদসংশ্লিষ্ট বিষয়ে প্রশ্ন করা হতে পারে।

পরীক্ষা কখন, কোথায়
তিনটি রেঞ্জের আওতায় ২৯ সেপ্টেম্বর প্রাথমিক বাছাই পরীক্ষা হবে জেলা পর্যায়ে। রাজশাহী রেঞ্জের আওতায় নাটোর ও বগুড়ার প্রার্থীদের পরীক্ষা হবে নাটোর আনসার-ভিডিপি কার্যালয়ে, নওগাঁ ও জয়পুরহাটের পরীক্ষা হবে মশরপুর আনসার ক্যাম্প, নওগাঁয়। পাবনা ও সিরাজগঞ্জের পরীক্ষা হবে পাবনা জেলা আনসার ও ভিডিপি কার্যালয়ে, রাজশাহী ও চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলার পরীক্ষা হবে ৪ নম্বর আনসার ব্যাটালিয়ন, রাজশাহীতে।

রংপুর রেঞ্জের আওতায় রংপুর ও গাইবান্ধার পরীক্ষা হবে রংপুর আনসার-ভিডিপি প্রশিক্ষণকেন্দ্রে। ঠাকুরগাঁও ও পঞ্চগড়ের পরীক্ষা হবে ৩৬ আনসার ব্যাটালিয়ন, ঠাকুরগাঁওয়ে। লালমনিরহাট ও কুড়িগ্রামের পরীক্ষা হবে ২৭ আনসার ব্যাটালিয়ন, লালমনিরহাটে। দিনাজপুর ও নীলফামারী জেলার পরীক্ষা হবে দিনাজপুর টেকনিক্যাল ট্রেনিং সেন্টার কার্যালয়ে। সিলেট রেঞ্জের আওতায় সিলেট ও সুনামগঞ্জের পরীক্ষা হবে সিলেটের জেলা আনসার-ভিডিপি কার্যালয়ে। হবিগঞ্জ ও মৌলভীবাজারের প্রার্থীদের পরীক্ষা হবে হবিগঞ্জের জেলা আনসার-ভিডিপি কার্যালয়ে।

প্রাথমিক বাছাইয়ে উত্তীর্ণ প্রার্থীদের ২ তারিখে দিতে হবে লিখিত ও মৌখিক পরীক্ষা। রাজশাহী রেঞ্জের জেলাগুলোর পরীক্ষা হবে ৪ আনসার ব্যাটালিয়ন সদর দপ্তর, নওহাটা, রাজশাহীতে। রংপুর রেঞ্জের আনসার-ভিডিপি টেকনিক্যাল ট্রেনিং সেন্টার (টিটিসি) কার্যালয়, দিনাজপুরে এবং সিলেট রেঞ্জের পরীক্ষা হবে সিলেট জেলা আনসার-ভিডিপি কার্যালয়ে।

ভাতা ও সুযোগ-সুবিধা
বাংলাদেশ আনসার ও গ্রাম প্রতিরক্ষা বাহিনীর বেতন-ভাতার নিয়ম অনুসারে মাসিক ১৩ হাজার ৫০ টাকা ভাতা পাওয়া যাবে সমতলের জন্য। পার্বত্য এলাকায় কাজের জন্য ভাতা পাওয়া যাবে মাসিক ১৪ হাজার ২০০ টাকা। বছরে দুটি উত্সব ভাতা পাবে ৯ হাজার ৭৫০ টাকা, সঙ্গে পাবে ভর্তুকি মূল্যে রেশন সুবিধা। কর্তব্যরত অবস্থায় মৃত্যুবরণ করলে পাঁচ লাখ টাকা এবং স্থায়ীভাবে পঙ্গুত্ববরণ করলে দুই লাখ টাকা আর্থিক সহায়তা দেওয়া হবে।

যোগাযোগ
বিভিন্ন তথ্যের জন্য উল্লিখিত জেলার আনসার-ভিডিপির কার্যালয়ে যোগাযোগ করা যাবে। রেজিস্ট্রেশন ফি পরিশোধে সমস্যা হলে কল করা যাবে ০১৮৪০১৯৭২০৭, ০১৬২৯৪৬৪২৮৯ ও ০১৫৩৪৭২৬৫৩৫ নম্বরে। তথ্য পাওয়া যাবে আনসার-ভিডিপির ওয়েবসাইটেও (http://www.ansarvdp.gov.bd).



মন্তব্য