kalerkantho

horror-club-banner

হরর ক্লাব : কবরস্থানের সেই অদ্ভুত নারী

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

১৯ মার্চ, ২০১৭ ১২:২৬



হরর ক্লাব : কবরস্থানের সেই অদ্ভুত নারী

বিশ্বের নানা দেশে বিভিন্ন সময় অনেকের ক্যামেরায় উঠে এসেছে ভূতের প্রমাণ, যার কোনো ব্যাখ্যা নেই। এসব ছবির সত্যাসত্য নিয়ে বিতর্ক থাকলেও বহু মানুষেরই শিরদাঁড়া দিয়ে শীতল স্রোত বয়ে যায় এ ছবি দেখে। এ লেখায় তুলে ধরা হলো তেমন এক প্রমাণ। ধারাবাহিকভাবে এ ধরনের বেশ কয়েকটি ছবি প্রকাশিত হচ্ছে কালের কণ্ঠে। আজ পাচ্ছেন তার ১৬তম পর্ব।

কবরস্থানের সেই অদ্ভুত নারী
মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের সবচেয়ে রহস্যময় কবরস্থান হিসেবে ব্যচেলরস গ্রোভ সেমেট্রি পরিচিত। এটি শিকাগোতে অবস্থিত। এ কবরস্থানে নানা রহস্যময় বিষয় সম্পর্কে অনেকেরই জানা ছিল। একটি সংগঠন অবশ্য ভূত নিয়ে অনুসন্ধান করা শুরু করে।   এ কবরস্থানটির রহস্যময় নানা ঘটনার কারণে কবরস্থানটিতে অনুসন্ধানের সিদ্ধান্ত নেয় ভূত গবেষণার সেই সংগঠন 'ঘোস্ট রিসার্চ সোসাইটি' (জিআরএস)।

১৯৯১ সালের ১০ আগস্ট জিআরএস নামে প্রতিষ্ঠানটির বেশ কয়েকজন সদস্য কবরস্থানটি পরিদর্শন করেন।

কবরস্থানটির একপাশ জঙ্গলে মিলিয়ে গেছে। নানা ভৌতিক ঘটনার কারণে এ অঞ্চলে এমনিতেই লোকজন তেমন একটা আসে না।
নির্জন কবরস্থানটিতে বহু দর্শনার্থীই ভৌতিক বিষয়ের সন্ধান পেয়েছেন। বেশ কিছু অভিযোগ লিপিবদ্ধও করে সংস্থাটি, যার সংখ্যা শতাধিক। এগুলোর মধ্যে ছিল অদ্ভুত শব্দ, অস্বাভাবিক ছায়া, অবাস্তব দৃশ্য ও আলোর ঝলকানি।

জিআরএস এর দলটি সেই কবরস্থানে সে অদ্ভুত বিষয়গুলো পর্যবেক্ষণ করতে যায়। তবে তাদের অবস্থানকালে তারা বেশ কিছু ছবিও তোলে। এ সময় পর্যবেক্ষণ দলের সামনে এসব বিষয় আসেনি। তবে ছবিগুলো প্রিন্ট করার পর একটি ছবিতে অদ্ভুত এক নারীকে দেখা যায়।

সন্ধ্যা হয়ে যাওয়ায় ছবিটি খুব একটা ভালো আসেনি। তবে ঝাপসা ছবিতে সেই নারীর বয়স খুব বেশি নয় বলেই মনে হয়। তিনি একটি পাথরের ওপর বসে ছিলেন। তবে তার পোশাক ছিল বহু পুরনো ধাঁচের। অবশ্য তিনি যে রক্তমাংসের মানুষ নন, এটাও স্পষ্ট হয় ছবিটি দেখে। কারণ তার দেহ ছিল অনেকটা স্বচ্ছ- জেলি মাছের মতো, যা কোনো মানুষের পক্ষে সম্ভব নয়। ছবিটির রহস্য এখন পর্যন্ত সমাধান হয়নি।


মন্তব্য