kalerkantho

শাসন

মুহসিন ইরম

১৩ মার্চ, ২০১৮ ০০:০০



শাসন

বিরাট রেগে আছেন কমল সাহেব। ইদানীং তাঁর ছোট ছেলে রাতুল নিয়ন্ত্রণের বাইরে চলে যাচ্ছে। কোনো কথা শোনে না। আজ ছেলেটাকে আচ্ছা করে বকে দেওয়ার কথা ভাবছেন তিনি।

এ জন্যই রাগ জিইয়ে রেখে বাসায় ফিরে সরাসরি ছেলের ঘরে ঢোকেন। টানা দুই মিনিট মনের ঝাল মিটিয়ে আবোলতাবোল বলে বেরিয়ে আসেন। মনে খানিকটা স্বস্তি আসে। রাগটাও কমে আসে বেশ।

আশ্চর্য ব্যাপার, এখন অনুশোচনা হচ্ছে। এতটা রাগ না দেখালেও পারতেন, হাজার হোক নিজের ছেলে।

কমল সাহেব নিজ ঘরে এসে একটু বসলেন। সহজ হতে পারছেন না। এমনকি এখন পর্যন্ত ফ্রেশও হননি। কিছুক্ষণ ঘরময় পায়চারি করে স্ত্রীকে অনুরোধ করলেন ছেলেটার কাছে যেতে। একটু সান্ত্বনার কথা শোনাতে।

রাতুলের মা সংকোচ নিয়েই ছেলের ঘরে যান। আলতো করে ছেলের পিঠে হাত রাখেন। সান্ত্বনার দু-একটা কথা মনে মনে সাজিয়ে এনেছেন। পিঠে হাতের স্পর্শ পেয়ে হতচকিত হয়ে ওঠে রাতুল। দুই কান থেকে হেডফোন খুলে মায়ের দিকে তাকায় সে।

বিরক্তি মেশানো সুরে বলে—মা, কিছু বলবে?

—কতক্ষণ হলো তোর কানে হেডফোন?

—কেন, দুই ঘণ্টা।

মা আর কথা বাড়ান না। চুপচাপ নিজের ঘরে চলে আসেন।



মন্তব্য