kalerkantho


অভাগার প্রেম

জাহাঙ্গীর আলম

১৪ নভেম্বর, ২০১৭ ০০:০০



অভাগার প্রেম

প্রাইমারিতে থাকতে এক মেয়েকে প্রপোজ করেছিলাম। মেয়ে বলে, ওকে প্রতিদিন চকোলেট দিতে হবে।

পকেটের মায়ায় প্রেম হলো না। মাধ্যমিকে উঠে এক মেয়েকে ভালো লাগত, কখনো বলতে পারিনি। মনের প্রেম মনেই রেখে দিয়েছি। দূর থেকে দেখেই কাটিয়ে দিয়েছি কয়েকটি বছর। কলেজে উঠেই ভাবলাম, এবার প্রেম করেই ছাড়ব। অনেক খুঁজে মনের মতো একজনকে পেলাম। লুকিয়ে লুকিয়ে দেখতাম তাকে। অনেক কষ্টে সব ভয়ভীতি এড়িয়ে তার সামনে গিয়ে দাঁড়ালাম। হাঁটু গেড়ে ফিল্মি কায়দায় প্রপোজ করলাম। সব শুনে মেয়ে বলল, দুই দিন হলো সে রিলেশন শুরু করেছে। প্রেম আর হলো না। বাস্তবে প্রেম খুঁজে না পেয়ে ভার্চুয়াল লাইফ ফেসবুকে প্রেম খোঁজা শুরু করলাম। খুঁজে খুঁজে সুন্দরী মেয়েদের রিকোয়েস্ট দিতে থাকলাম। কেউ একসেপ্ট করল না। ফলোয়ার হয়েই রইলাম। রাগে-দুঃখে ফেসবুককে বিদায় জানাতে চাইলাম, ডি-অ্যাক্টিভ বাটনে চাপ দেওয়ার মুহূর্তেই ‘অ্যাঞ্জেল প্রিয়া’ রিকোয়েস্ট পাঠাল। খুশিতে মনটা বাকুম বাকুম করে উঠল। কিন্তু অভাগার কপালে সুখ সয় না। খোঁজ নিয়ে জানলাম সেটা ফেক আইডি। প্রেম আর হলো না। সব আশা ছেড়ে দিয়ে বাড়িতে গিয়ে বসে রইলাম। ঠিক তখনই খেয়াল হলো, পাশের বাড়ির চম্পা প্রতিদিন ফুল নিতে বাড়িতে আসে। মনে সন্দেহ হলো, মেয়েটা প্রতিদিন ফুল দিয়ে করেটা কী?

পরদিন তার সামনে গিয়ে দাঁড়ালাম। একগাল হেসে জিজ্ঞেস করলাম, প্রতিদিন এত ফুল দিয়ে করোটা কী?

মেয়ে বলল, ফুল নেওয়ার ছলে কাউকে যে দেখতে আসি, সেটা তো সে বোঝে না।

বলেই মুচকি হেসে চলে গেল। বাড়ির পাশের প্রেম ছেড়ে আমি পুরো দেশ ঘুরছি। খুশিতে দিলাম এক লাফ। পা ভেঙে আমি এখন হসপিটালে। বুঝলাম, অভাগার কপালে প্রেম সয় না।


মন্তব্য