kalerkantho


দাম আরো বাড়লে যা হতে পারে

বর্তমানে ৫০০ টাকা কেজিতে বিক্রি হচ্ছে গরুর গোশত। এই ধারাবাহিকতা অব্যাহত থাকলে অদূর ভবিষ্যতে পরিস্থিতি যা হবে, তা জানাচ্ছেন রবিউল ইসলাম সুমন

২৮ ফেব্রুয়ারি, ২০১৭ ০০:০০



দাম আরো বাড়লে যা হতে পারে

♦ চায়নিজরা মোবাইল ফোনের বদলে ঘরে ঘরে গরু পৌঁছে দেওয়ার লক্ষ্যে সস্তায় গরু উৎপাদন শুরু করে দিতে পারে!

♦ গরুর রচনা লেখার বেলায় ‘গরু একটি নিরীহ প্রাণী’ লেখার বদলে ‘গরু একটি বিরাট দামি প্রাণী’ লিখে রচনা শুরু করতে হবে।

গরুর গোশত রাঁধার পরে এলাকার সিকিউরিটি টাইট করে দিতে হবে, যাতে চোর-ডাকাতরা গোশত নিয়ে যেতে না পারে।

♦ সমাজের গরিব আর নিম্নবিত্তদের গরুর গোশত খাওয়ার বদলে হয়তো গরুর ছবি দেখেই পেট ভরাতে হবে।

♦ রান্নার সময় গোশতের সঙ্গে মসলাপাতি কিছুই ব্যবহার করতে হবে না। দামের কারণে তখন সিদ্ধ করে খেলেও মানুষ এটাকে অমৃতি মনে করবে!

♦ রান্নায় গরুর গোশতের বদলে গোশতের ফ্লেভারসমৃদ্ধ আলু-বেগুন ইত্যাদি রান্নার প্রকোপ বেড়ে যাবে।

♦ হালিমে এক টুকরা গরুর গোশত খুঁজে পেলে তা ভোক্তা তৃপ্তির সঙ্গে ঢেঁকুর তুলবে।

 

গরুর গোশত কেনার জন্য ব্যাংক থেকে লোন নেওয়ার সিস্টেমও চালু হয়ে যেতে পারে।

কাউকে গরু বা বলদ বলে ডাকলে অপমানবোধ করার বদলে উল্টো প্রাউড ফিল করবে।


মন্তব্য