kalerkantho

বুধবার । ২৫ জানুয়ারি ২০১৭ । ১২ মাঘ ১৪২৩। ২৬ রবিউস সানি ১৪৩৮।

জোকস

২২ মার্চ, ২০১৬ ০০:০০



জোকস

প্রথম পাগল : আমি আকাশের দিকে টর্চের আলো ফেলব, তুই যদি সেই আলো বেয়ে আকাশে উঠতে পারিস, তাহলে তোকে এক লাখ টাকা দেব।

দ্বিতীয় পাগল : আমি উঠব না।

প্রথম পাগল : তার মানে তুই পারবি না।

দ্বিতীয় পাগল : অবশ্যই পারব। কিন্তু আমি অর্ধেক ওঠার পর যদি তুই আলো নিভিয়ে দিস, তাহলে তো আমি পড়ে যাব এবং আমার হাত-পা ভাঙবে। আমাকে তুই পাগল পেয়েছিস?

 

► ছোট্ট খোকা এক সকালে দোকানের একটা সাইকেল দেখিয়ে বলল, ‘আঙ্কেল, আপনাদের এই সাইকেলটা কি রাত পর্যন্ত থাকবে?’

দোকানদার : নিশ্চয়ই। কিন্তু কেন?

খোকা : কারণ, আমি এখন বাড়ি গিয়ে সাইকেলটা কেনার জন্য ঘ্যান ঘ্যান শুরু করব। দুপুর নাগাদ বিরক্ত হয়ে মা আমাকে মারবেন। সন্ধ্যা অবধি আমার কান্না থামবে না। বাধ্য হয়ে রাতে বাবা আমাকে সাইকেলটা কিনে দেবেন।

 

► আফ্রিকান ব্যবসায়ী ফার্নান্দেজ। নিজ গ্রামে নির্বাচনে দাঁড়াবেন বলে ঠিক করেছেন। কিন্তু বেচারা ছোট থেকে বড় হয়েছেন শহরে। গ্রামে কখনো যাননি, এমনকি নিজ গ্রামের ভাষাও ঠিকঠাক জানেন না। তাতে কী? ঢাকঢোল পিটিয়ে নির্বাচনে দাঁড়িয়ে গেলেন তিনি। একদিন গ্রামে বক্তৃতা করলেন, ‘নির্বাচিত হলে সবার দুঃখ-দুর্দশা দূর করব। ’

গ্রামের লোকজন সমস্বরে বলে ওঠল, ‘হোয়া হোয়া’!

ফার্নান্দেজ আরো বললেন, ‘গ্রামের মাটির সব ঘর ভেঙে পাকা ঘর তৈরি করে দেব। ’

আবারও সবাই বলে ওঠল, ‘হোয়া হোয়া। ’ ইনিয়ে-বিনিয়ে আরো বহু প্রতিশ্রুতিই দিলেন তিনি। প্রতিটি বক্তব্য শেষেই গ্রামের লোকের একই কথা, ‘হোয়া হোয়া। ’

ফার্নান্দেজ ধরেই নিলেন, সবাই নিশ্চয়ই তাঁকে সমর্থন জানাচ্ছে। খুশিমনে তিনি বক্তৃতা শেষ করলেন। ফেরার পথে কাদামাটি পেরিয়ে যাচ্ছিলেন ফার্নান্দেজ, সঙ্গে এক গাইড। পথিমধ্যে চোখে পড়ল একগাদা গরুর গোবর। নাক কুঁচকে ইশারায় বললেন ফার্নান্দেজ, ‘ওয়াক থু! এগুলো কী?’

গাইডের উত্তর, ‘হোয়া হোয়া!’

 

► জয়নাল সাহেব হেয়ারিং এইড কিনতে গেলেন দোকানে।

জয়নাল : ভাই, হেয়ারিং এইডের দাম কত?

দোকানদার : পাঁচ টাকা দামের আছে, পাঁচ হাজার টাকা দামেরও আছে।

জয়নাল : আমাকে পাঁচ টাকারটাই দেখান।

দোকানদার জয়নালের কানে একটা প্লাস্টিকের খেলনা হেয়ারিং এইড গুঁজে দিলেন। জয়নাল আশ্চর্য হয়ে বললেন, ‘এটার ভেতর তো কোনো যন্ত্রপাতিই নেই। এটা কাজ করে কিভাবে?’

দোকানদার : সত্যি বলতে, এটা কোনো কাজ করে না। তবে আপনার কানে এই জিনিস দেখলে লোকজন এমনিতেই আপনার সঙ্গে প্রয়োজনের চেয়ে উঁচু গলায় কথা বলবে!


মন্তব্য