kalerkantho

শনিবার । ৩ ডিসেম্বর ২০১৬। ১৯ অগ্রহায়ণ ১৪২৩। ২ রবিউল আউয়াল ১৪৩৮।


ফেসবুক অফলাইন

অনলাইনে মজার মজার গল্প, বুদ্ধিদীপ্ত কৌতুক, সাম্প্রতিক বিষয়-আশয় নিয়ে নিয়মিত স্টেটাস দিয়ে যাচ্ছেন পাঠক-লেখকরা। সেগুলোই সংগ্রহ করলেন গায়ত্রী মণ্ডল, এঁকেছেন কাওছার মাহমুদ

১ মার্চ, ২০১৬ ০০:০০



ফেসবুক অফলাইন

বোনেরা বোঝে, ছেলেরা জানে

প্রতিটা বোনই তার ভাইকে প্রেম করতে হেল্প করে; কিন্তু কোনো ভাই-ই তার বোনকে প্রেম করতে দিতে চায় না।

কারণ মেয়েরা বোঝে ভালোবাসা কী জিনিস আর ভাই জানে ছেলেরা কী জিনিস।

মাহবুবুর রহমান

 

ওষুধ

ডাক্তার বউ সাংবাদিক স্বামীর অফিসে যাওয়ার সময় তার কাছে একটা ছোট প্যাকেট দিয়ে বললেন—এইটা ধরো।

তোমার সেক্রেটারির জন্য এক শিশি চুল ওঠার ওষুধ। তোমার শার্ট-প্যান্টে ইদানীং তার চুল খুব বেশি পাওয়া যাচ্ছে।

সন্দীপন বসু

 

বউকে বললাম, আলুভর্তা করতে। টেবিলে এনে রাখার পর ছেলে বলল, ‘এতো আপেল!’ ছেলের মা বলল, ‘নাহ, পেঁপেভর্তা করেছি আসলে। ’ খেতে বসে দেখি বেগুনভর্তা।

দেবব্রত মুখোপাধ্যায়

 

হাতের লেখা

গবেষণায় নাকি প্রমাণিত, পৃথিবীতে বছরে গড়ে সাত হাজার মানুষ মারা যায় ডাক্তারদের হাতের লেখা পড়তে না পেরে ভুল ওষুধ সেবনের কারণে!

আমি গবেষক হলে রিসার্চ করে বের করতাম, বছরে কয় লাখ শিক্ষার্থী ফেল করে শুধু শিক্ষকদের হাতের লেখা নোট বুঝতে না পারার জন্য!

সুমন আহমেদ

 

মানুষ

বেঁচে থাকার জন্য মানুষ সব করতে পারে, এমনকি রাজনীতিও!

জান্নাতুল ফেরদৌস

 

হাতির ঝিলের বাসে করে বাসায় ফিরছি। পাশে বসা এক লোক একজনকে ফোন দিয়ে ঝাড়ি দেওয়ার মুডে বলছে, ‘আই ফোন দিলা না কেন? আই ফোন দিলা না কেন?’

কথা শুনে তো চিন্তায় পড়ে গেলাম! কেউ কারো কাছে আই ফোন চাওয়ার সুর তো সফট হয়। অনুরোধের হয়, মাঝেমধ্যে লুতুপুতুও হয়। এ রকম ঝাড়ি হবে কেন?

কিছুক্ষণ পর বুঝলাম, ‘আই ফোন দিলা না কেন’—টা র-ঢ়যড়হব দিলা না কেন না, ‘এই ফোন দিলা না কেন’ হবে।

অনামিকা মণ্ডল

 

মশা এবং মশা

ফাগুন মশাদের মনেও লেগেছে। তারা সমানে বংশবিস্তার করছে। মশার জন্য শান্তিমতো লিখতে পারছিলাম না, তাই মশা তাড়ানোর সহজ উপায় খুঁজে বের করলাম ফেসবুকে, লেবুর মধ্যে লবঙ্গ ঢুকিয়ে রেখে দিলেই নাকি মশা পালাবে।

পাটিগণিতের কথা মনে পড়ে গেল, ‘একটি চায়নিজ ধোঁয়াবিহীন মশার কয়েলের দাম পাঁচ টাকা। একটি লেবুর দাম পাঁচ টাকা আর ৫০ গ্রাম লবঙ্গের দাম ৫০ টাকা হলে, এই বেয়াক্কেলে স্টেটাস দেওয়ার জন্য কেন ওই ফেসবুকারকে তিন ঘণ্টা কয়েলবিহীন অন্ধকার ঘরে রাখা হবে না, তার কারণ ব্যাখ্যা করার জন্য বলা হলো। ’

চঞ্চল ভৌমিক

 

ছেলেকে ইংরেজিতে শিক্ষিত করার জন্য জনৈক মা তার বাচ্চাকে শেখাচ্ছে, ‘ওই দেখো বাবু ক্রো, ওইটা কোকোনাট ট্রি, এটা ডগ, এটা ক্যাট। ’

দূর থেকে একটা বাংলা গান ভেসে আসছে, বাচ্চাটি গানটি শুনে মাকে প্রশ্ন করে, ‘মাম্মি, সোহাগ চাঁদবদনী ধনীর ইংলিশ কী?’

প্রণয় রয়

 

সেলেব্রিটি হবার পদ্ধত্তি

আপনি কি সেলেব্রিটি? অনেক দিন ধরে ফিল্মে কাজ করছেন, কিন্তু ঘন ঘন সংবাদের শিরোনাম হতে পারছেন না? আপনার জন্য আমার উপদেশ। শুটিং স্পটে নিজের ইচ্ছায়ই যেকোনোভাবে ব্যথা পাবেন। এরপর শুধু ফেসবুকে পোস্ট দেবেন। দেখবেন দেশের প্রথমসারির পোর্টালগুলোর সংবাদের শিরোনাম আপনি। অমুক ছবির জন্য চোট পেলেন অমুক। বিঃ দ্রঃ শুধু নায়িকাদের জন্য প্রযোজ্য।

তন্ময় আহমেদ

 

আমি গরিব

চৌধুরী সাহেব, আমি গরিব হতে পারি; কিন্তু আমারও পাশের বাসায় ওয়াইফাই আছে, যার পাসওয়ার্ড আমার জানা।

রাফিউজ্জামান সিফাত

 

কোনটা উচিত

বাসের লং জার্নিতে জলপানের জন্য একটি পানির বোতল না দিয়ে জল নিষ্কাশনের জন্য একটা খালি বোতল দেওয়া উচিত।

আপেল মাহমুদ

 

 

ব্যাচেলর

কিছুদিন আগে বাড়িওয়ালা আমাকে ভালো একজন ব্যাচেলর খুঁজিয়া দেওয়ার কথা বলিলেন। আমি বিস্মিত হইয়া কহিলাম, ‘আংকেল আপনারা কি ব্যাচেলর ভাড়া দেন?’

বাড়িওয়ালা হাসিয়া কহিলেন, ‘আরে না বেটা, মেয়েটার জন্য ভালো একটা পাত্র খুঁজিতেছি। ’

মনে মনে কহিলাম, এই একটা সময়ই বাড়িওয়ালারা ব্যাচেলর খোঁজ করেন!

মোহাম্মদ সালাহউদ্দিন

 

সবচেয়ে চালাক প্রাণী

স্যার : এই বল্টু বল তো—পৃথিবীতে সবচেয়ে চালাক প্রাণী কোনটি?

বল্টু : পৃথিবীতে সবচেয়ে চালাক প্রাণী হচ্ছে গরু।

স্যার : এইটা কিভাবে সম্ভব? ব্যাখ্যা দে।

বল্টু : বাংলা দ্বিতীয় পত্রে প্রবাদ আছে—অতি চালাকের গলায় দড়ি। বেশির ভাগ গরুর গলায় দড়ি থাকে। সুতরাং গরুই সবচেয়ে চালাক প্রাণী।

এম এইচ নিঝুম

অসম্ভব সুন্দরী

- ওয়াও! আপনি তো অসম্ভব সুন্দরী!

- ওমা! এটা আবার কেমন?

 - না মানে...সুন্দরী হওয়া আপনার জন্য অসম্ভব, এই আর কী।

শাকির আহসানুল্লাহ

 

মিল

ক্রিকেট আর লুডু খেলার মধ্যে সাংঘাতিক মিল! দুটোতেই চার-ছয় মারা যায়।

অনামিকা

 

আমার মোবাইল

বউয়ের মোবাইলে ইন্টারনেট ব্যালেন্স নাই। আমার মোবাইল ধার নিল কী জানি সার্চ করবে। অনেকক্ষণ ধরে চরম বিরক্তিসহ গুঁতাগুঁতি করে মোবাইল ফেরত দিল। বলল, ‘আজাইরা লোকের আকাইম্মা মোবাইল! যাই সার্চ দেই খালি error আর not found দেহায়..হুহ..হ..!’

চরম অপমানিত হইয়া মোবাইলের বাপ-মা তুলে গালি দিতে দিতে ব্রাউজারের হিস্টোরিতে ঢুকলাম—কী সার্চ দিছে দেখার জন্য। হিস্টোরি লিস্ট...১। চ্যাপা শুঁটকি রেসিপি ২। লইট্টা শুঁটকি রেসিপি ৩। কাঞ্জিভরম শাড়ি ইন বাংলাদেশ...।

আহাদ অ্যানি

 

করিৎকর্মা স্বামী

আমার বউকে মোটেই কেয়ার করি না। কিন্তু সে কিছু বায়না করলে করিতকর্মা হয়ে যাই।

একবার সে বায়না ধরল লেটুসপাতার সালাদ খাবে। বড়লোকের মেয়ে উল্টাপাল্টা জিনিস খাবে, সেটাই স্বাভাবিক। অবাক হইনি। সমস্যা হলো, আমি জিনিসটার নামই সেবার প্রথম শুনলাম। মফস্বল শহরে থাকি। মফস্বল বাজারের যা দৌড় তাতে আলু, পটোল, টমেটো থেকে শুরু করে কচুর লতি, ধইন্যাপাতা পর্যন্ত সবজিই সর্বেসর্বা। সবজিবাজার ঘুরে হয়রান। দোকানদাররা লেটুসপাতা নাম শুনে বেশ হাসাহাসি করল। লেটুসপাতা পেলাম না। শেষে বাঁধাকপির কয়েকটা পাতা ছিঁড়ে বাসায় এসেছিলাম। তবু বউ কিছু বলল না। তার মতে, হাজবেন্ড চেষ্টা তো অন্তত করছে!

আরেকবার সে বায়না ধরল ‘বাবু তাল’ খাবে। তখন মধ্য জানুয়ারি। আমি পথেঘাটে, ফ্যাশন হাউসগুলোয় তালের খোঁজ করি। পাবলিক একচোট মজা নিল। শেষে তাল না পেয়ে তাল সাইজের একটা কুমড়া কিনে বাসায় ফিরলাম। বউ তবুও কিছু বলল না। তার মতে, হাজবেন্ড চেষ্টা তো অন্তত করছে!

সেদিন বউ বায়না ধরল গাঁজা খাবে। তখন ব্যাটিং করছিল সুরেশ রায়না। আমি ভাবলাম, রমিজ রাজা বোধ হয় রায়নাবিষয়ক কিছু বলেছে। বললাম, হালায় তো গাঁজা খাইবই।

বউ টি-টোয়েন্টি ফরম্যাট ম্যাচের মারমুখী ভঙ্গিতে বলল, কোন দিক দিয়া আমি তোমার হালা লাগি? তারপর অবশ্য কিছুক্ষণ সম্প্রচারে বিঘ্ন ঘটে।

যা-ই হোক, আমি বউয়ের বায়না রাখতে গাঁজার খোঁজে বের হলাম। আমার পুরো গোষ্ঠীতে কেউ কোনো দিন সিগারেটের প্যাকেট পর্যন্ত হাতে নিয়ে দেখেনি, সেখানে আমি গাঁজা কিনতে পথেঘাটে, ফার্মেসি থেকে ফার্মেসিতে ঘুরে মরছি। শেষে পানের দোকান থেকে জর্দা কিনে বাসায় ফিরলাম। বউ ব্যাপক খুশি। প্রথমবারের মতো আমি নাকি সাকসেস!

সে গাঁজা বানাল। কয়েকটা টান দিয়ে আমার দিকে চোখ গরম করে তাকিয়ে বলল, দুইন্নার সব পোলা হালা ভণ্ড।

আমি চোখ পিটপিট করতে করতে বললাম, হাজবেন্ড চেষ্টা তো অন্তত করছে, তাই না?

তানভীর আহমেদ হ্যামলেট


মন্তব্য