kalerkantho

উপাচার্য বললেন

দু-একটি বিচ্ছিন্ন ঘটনা ছাড়া ভোট উৎসবমুখর

নিজস্ব প্রতিবেদক   

১২ মার্চ, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



দু-একটি বিচ্ছিন্ন ঘটনা ছাড়া ভোট উৎসবমুখর

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের (ঢাবি) কেন্দ্রীয় ছাত্র সংসদ (ডাকসু) ও হল সংসদ নির্বাচনে দু-একটি বিচ্ছিন্ন ঘটনা ছাড়া উৎসবমুখর পরিবেশে ভোটগ্রহণ হয়েছে বলে জানিয়েছেন ঢাবি উপাচার্য অধ্যাপক মো. আখতারুজ্জামান। ভোটগ্রহণ শেষে তিনি সাংবাদিকদের বলেন, ‘আমি শিক্ষার্থীদের ধন্যবাদ জানাই। তারা সুশৃঙ্খল ও শান্তিপূর্ণভাবে ভোটাধিকার প্রয়োগ করেছে। তারা গণতন্ত্রের রীতিনীতি অনুসরণ করেই ভোট দিয়েছে। আমি অনেক কেন্দ্র পরিদর্শন করেছি। সেখানে দেখেছি, শিক্ষার্থীরা লাইন ধরে দাঁড়িয়ে ভোট দিয়েছে।’ গতকাল সোমবার উপাচার্য সকালে তাঁর নিজ কার্যালয়ে আসেন। সকাল ১১টার পর তিনি বিভিন্ন হলের ভোটকেন্দ্র পরিদর্শনে যান। তবে তিনি কোনো হলে খুব বেশিক্ষণ অবস্থান করনেনি। দুপুর পৌনে ১২টায় তিনি যখন বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান হলে যান তখন সাংবাদিকরা তাঁর প্রতিক্রিয়া জানতে চাইলে তিনি পরে জানাবেন বলে জানান। তিনি এই হলে দুই থেকে তিন মিনিট অবস্থান করেন। গতকাল বিকেলে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে কুয়েত মৈত্রী হলের বিষয়ে তিনি বলেন, ‘আমরা কালক্ষেপণ না করে, কোনো শৈথিল্য না দেখিয়ে প্রভোস্টকে সরিয়ে দিয়েছি। নতুন প্রভোস্ট নিয়োগ দেওয়া হয়েছে। একই সঙ্গে পাঁচ সদস্যের একটি কমিটিও গঠন করে দিয়েছি। কমিটি মূলত খতিয়ে দেখবে কারা কারা এর সঙ্গে জড়িত। এই নীতিবহির্ভূত কাজ কোনোভাবেই বরদাশত করা যায় না। এর বিরুদ্ধে আমরা কঠিন ব্যবস্থা গ্রহণ করব, যাতে ভবিষ্যতে কেউ নীতিবিরোধী এ ধরনের কাজ ও দুর্নীতির সঙ্গে জড়িত না হয়। সেটা আমরা দেখব। তদন্ত প্রতিবেদন পাওয়ার পর আমরা ব্যবস্থা গ্রহণ করব।’ তিনি আরো বলেন, ‘ডাকসুর রীতিনীতি, গঠনতন্ত্র রয়েছে। তা মেনেই সব ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে। আমরা দেখলাম, আমাদের শিক্ষার্থীদের যে সুশৃঙ্খলা এবং তাদের মধ্যে গণতন্ত্রের যে মূল্যবোধ রয়েছে, তা দেখে আমি খুশি। তাদের এই মূল্যবোধ আমাদের অনুপ্রেরণা দেয়। সামনের দিনগুলোতে এই ধারা অব্যাহত থাকবে বলে আশা করছি।’

গতকাল সকাল ৮টা থেকে দুপুর ২টা পর্যন্ত ডাকসুর ভোটগ্রহণ চলে। তবে দুটি হলে ভোটগ্রহণ স্থগিত হওয়ায় তা শেষ করতে সন্ধ্যা গড়িয়ে যায়। এ ছাড়া গতকাল দুপুরেই নানা অনিয়মের অভিযোগ তুলে ছাত্রলীগ ছাড়া অন্য সব প্যানেল ও স্বতন্ত্র প্রার্থীরা ভোট বর্জন করেছেন।

 

মন্তব্য