kalerkantho


ইডেনের সাবেক অধ্যক্ষ নিজ বাসায় খুন

যাত্রাবাড়ীতে আরেক নারীকে হত্যা

নিজস্ব প্রতিবেদক   

১১ ফেব্রুয়ারি, ২০১৯ ০০:০০



ইডেনের সাবেক অধ্যক্ষ নিজ বাসায় খুন

মাহফুজা চৌধুরী পারভীন

রাজধানীর এলিফ্যান্ট রোডের একটি বহুতল ভবনের ফ্ল্যাট থেকে গতকাল রবিবার রাতে ইডেন কলেজের সাবেক অধ্যক্ষ মাহফুজা চৌধুরী পারভীনের (৬৬) লাশ উদ্ধার করে পুলিশ। তিনি মুক্তিযোদ্ধা সংসদের সাধারণ সম্পাদক ইসমত কাদির গামার স্ত্রী। 

ঘটনার পর পুলিশ ও স্বজনরা জানিয়েছেন, মাহফুজা চৌধুরীকে শ্বাসরোধ করে হত্যা করে লাশ ঘরে তালাবদ্ধ করে রাখা হয়। এ ঘটনার পর স্বপ্না ও রেশমা নামের বাসার দুই গৃহকর্মী নিখোঁজ রয়েছে। বাসা থেকে স্বর্ণালংকার ও টাকা খোয়া গেছে।

পুলিশের ধারণা, দুই গৃহকর্মী মাহফুজাকে হত্যার পর মূল্যবান জিনিসপত্র নিয়ে পালিয়েছে।

এদিকে যাত্রাবাড়ীর কুতুবখালী এলাকার একটি ভবনের চারতলায় সালমা আক্তার (৩৫) নামের এক নারীকে কুপিয়ে ও হাতুড়ি দিয়ে আঘাত করে হত্যা করা হয়েছে। গতকাল সন্ধ্যায় তাঁর লাশ উদ্ধার করে পুলিশ। এ ঘটনায় আহত হয়েছেন রাবেয়া বেগম (৪৬) নামের আরেক নারী।

ইডেনের সাবেক অধ্যক্ষ খুন

ঢাকা মহানগর পুলিশের রমনা বিভাগের উপকমিশনার (ডিসি) মারুফ হোসেন সরদার সাংবাদিকদের বলেন, ঢাকা কলেজের সামনের বহুতল ভবন ‘সুকন্যা টাওয়ারের’ ১৬ তলায় নিজেদের ফ্ল্যাটে স্বামী গামার সঙ্গে থাকতেন মাহফুজা চৌধুরী। গতকাল বিকেলের পর তাঁকে হত্যা করা হয়। ওই সময় তাঁর স্বামী বাসায় ছিলেন না।

পুলিশ কর্মকর্তা জানান, মাহফুজা চৌধুরীর বাসার তিন গৃহকর্মীর মধ্যে মধ্যবয়স্ক একজনকে পাওয়া গেছে। তাঁর নাম পারভীন আক্তার। পুলিশ তাঁকে আটক করে জিজ্ঞাসাবাদ করছে। জিজ্ঞাসাবাদে পারভীন বলেছেন, তিনি বিকেলে বাড়ির নিচে ছিলেন। পরে ফিরে এসে দেখেন মাহফুজা চৌধুরী অচেতন হয়ে পড়ে আছেন। ওই বাসায় এক মাস আগে কাজে যোগ দেয় স্বপ্না নামের একজন। আর দুই মাস আগে যোগ দেয় রেশমা নামের আরেকজন। তাদের বয়স ৩০ থেকে ৩৫ বছর। এ দুজনকেই পাওয়া যাচ্ছে না।

পুলিশ সূত্র জানায়, ঢাকার ইডেন মহিলা কলেজের সাবেক অধ্যক্ষ মাহফুজা চৌধুরী পারভীন ও তাঁর স্বামী ভবনটির ১৬/সি নম্বর ফ্ল্যাটে থাকতেন। ফ্ল্যাটটি তাঁদের নিজেদের। তাঁদের দুই ছেলের মধ্যে বড় অভিক সেনা চিকিৎসক, থাকেন যশোরে। ছোট ছেলে অমিত একটি ব্যাংকের কর্মকর্তা। তিনি পরিবার নিয়ে ঢাকায় আলাদা থাকেন। সন্ধ্যার পর ঘরের দরজা বন্ধ দেখে তা ভেঙে পুলিশসহ স্বজনরা ভেতরে ঢুকে পারভীনের লাশটি পান। এ সময় ঘরের জিনিসপত্র তছনছ অবস্থায় দেখা গেছে। আলমারি থেকে টাকা ও স্বর্ণালংকার খোয়া গেছে। তবে তাৎক্ষণিকভাবে খোয়া যাওয়া টাকা ও স্বর্ণালংকারের পরিমাণ নিশ্চিত করা যায়নি।

ছাত্রলীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক ইসমত কাদির গামা স্ত্রী খুনে গৃহকর্মীদের সন্দেহ করছেন। তিনি এ ব্যাপারে কিছুই বলতে পারেননি। তবে তিনি পুলিশকে জানান, সন্ধ্যায় বাসায় ফিরে দেখেন পুরো বাসা লণ্ডভণ্ড। তাঁর স্ত্রী মেঝেতে পড়ে আছেন। পরে তিনি বিষয়টি পুলিশকে জানান।

সুকন্যা টাওয়ারের নিরাপত্তাকর্মী নূর হোসেন বলেন, ‘সন্ধ্যা সাড়ে ৬টার দিকে ম্যাডাম ফোন করে নিজের অসুস্থতার কথা জানিয়ে দ্রুত ডাক্তার পাঠাতে বলেন। তিনি বলেন, কাজের মেয়েরা চলে গেছে। দ্রুত ডাক্তার পাঠান।’ তবে ম্যাডামই এই ফোনটি করেছিলেন কি না সে ব্যাপারে তিনি সন্দেহ প্রকাশ করেন।

পুলিশের রমনা বিভাগের অতিরিক্ত উপকমিশনার (এডিসি) আব্দুল্লাহিল কাফি বলেন, ‘যে দুজন গৃহকর্মী ওই বাসায় কাজ করত, তাদের নাম-ঠিকানা পেয়েছি। আমরা ধারণা করছি, তারাই এই হত্যাকাণ্ডের সঙ্গে জড়িত। আমরা সন্দেহভাজন খুনিদের আটকে অভিযান শুরু করেছি।’

গতকাল রাতে এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত ঘটনাস্থল থেকে আলামত সংগ্রহ করে মাহফুজা চৌধুরীর লাশ ময়নাতদন্তের জন্য মর্গে পাঠানোর প্রক্রিয়া চলছিল।

যাত্রাবাড়ীতে নারী খুন : রাতে ঘটনাস্থল পরিদর্শনকারী যাত্রাবাড়ীর পুলিশের কর্মকর্তারা জানান, যাত্রাবাড়ী থানার উত্তর কুতুবখালী ২২/বি নম্বর বাসার চতুর্থ তলার উত্তর দিকের ফ্ল্যাট থেকে সালমা নামের এক নারীর লাশ উদ্ধার করা হয়েছে। বিকেল থেকে সন্ধ্যা সাড়ে ৭টার মধ্যে ওই নারীকে হাতুড়ি দিয়ে মাথায় আঘাত করে হত্যা করা হয়ে থাকতে পারে। এ ছাড়া তাঁর শরীরে ধারালো অস্ত্রের আঘাত রয়েছে। তবে হত্যার সঠিক কারণ এখনো জানা যায়নি।

পুলিশ জানায়, অনেক আগেই সালমার স্বামী মারা যান। এরপর তিনি একাই ওই বাসায় থাকতেন। পূর্বপরিচিত কেউ তাঁকে হত্যা করে থাকতে পারে। পুলিশ আরো জানায়, কালাম নামের এক ব্যক্তি সালমাকে স্ত্রী পরিচয় দিয়ে মাঝে মাঝে এসে ওই বাসায় থাকতেন।

ঘটনাটি পরকীয়া সংক্রান্ত বিরোধে ঘটতে পারে সন্দেহ করে তদন্ত সংশ্লিষ্ট এক কর্মকর্তা বলেন, সালমার লাশ ময়নাতদন্তের জন্য মিটফোর্ড মেডিক্যাল কলেজ মর্গে পাঠিয়েছে পুলিশ।



মন্তব্য