kalerkantho


সংলাপের আহ্বান নজরুলের

ঐক্যফ্রন্ট গঠনের পর থেকে সরকার বিচলিত : মওদুদ

রাজনীতি

নিজস্ব প্রতিবেদক   

২০ অক্টোবর, ২০১৮ ০০:০০



ঐক্যফ্রন্ট গঠনের পর থেকে সরকার বিচলিত : মওদুদ

জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট গঠন করায় সরকারের আঁতে ঘা লেগেছে বলে মন্তব্য করেছেন বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য মওদুদ আহমদ। তিনি বলেন, ‘ঐক্যফ্রন্ট গঠনের পর থেকে সরকারকে আমরা বিচলিত দেখতে পাচ্ছি। বিভিন্ন রকমের বক্তব্য দিয়ে তাঁরা এটাই প্রমাণ করেছেন, এই ফ্রন্টকে তাঁরা ভয় পান, জাতীয় ঐক্যকে ভয় পান, দেশের মানুষকে ভয় পান।’

গতকাল শুক্রবার দুপুরে জাতীয় প্রেস ক্লাবের কনফারেন্স রুমে ‘বাংলাদেশ ইয়ুথ ফোরাম’ আয়োজিত আলোচনাসভায় মওদুদ এসব কথা বলেন।

অন্যদিকে বিএনপির স্থায়ী কমিটির আরেক সদস্য নজরুল ইসলাম খান সরকারকে সংলাপে বসার আহ্বান জানিয়ে বলেছেন, জনগণের যেসব ন্যায্য দাবি তা নিয়ে আলোচনার ব্যবস্থা করা হোক। তিনিও একই সময় জাতীয় প্রেস ক্লাবে আরেকটি আলোচনাসভায় বক্তব্য দেন।

‘খালেদা জিয়ার মুক্তি, সংসদ ভেঙে নিরপেক্ষ সরকারের অধীনে নির্বাচনই সংকট উত্তরণের একমাত্র পথ’ শীর্ষক আলোচনাসভায় মওদুদ মন্তব্য করেন যে ঐক্যফ্রন্টের মাধ্যমেই আওয়ামী লীগ সরকারের পরাজয় হবে। তিনি বলেন, ‘আমরা দৃঢ়তার সঙ্গে বলতে চাই, ঐক্যফ্রন্টের সমালোচনা করে কোনো লাভ হবে না। দেশের মানুষ, আজকে যদি গ্রামেগঞ্জে যান দেখবেন তারা একটা কথাই বলে, ঐক্য হয়ে গেছে।’

ক্ষোভ প্রকাশ করে মওদুদ আহমদ বলেন, ‘আমাদেরকে (ঐক্যফ্রন্ট) ২৩ অক্টোবর সিলেটে জনসভার জন্য অনুমতি দেওয়া হয়নি। আমরা বলেছি, হলের মধ্যে করতে দেন। সেটা এখন পর্যন্ত আমরা পাইনি। এতেই প্রমাণ করে সরকারের জনপ্রিয়তা কত নিচে নেমে গেছে। তাদের যে জনপ্রিয়তা নাই, তাদের পেছনে যে মানুষ নাই, এটাই তারা বারবার প্রমাণ করছে এসব কাজ করে।’

বাংলাদেশ ইয়ুথ ফোরামের উপদেষ্টা সাইদ আহমেদ আসলামের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সভায় বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান আহমেদ আজম খান, যুগ্ম মহাসচিব খায়রুল কবির খোকন প্রমুখ বক্তব্য দেন।

আফসার আহম্মেদ সিদ্দিকী ফাউন্ডেশন আয়োজিত আলোচনাসভায় নজরুল ইসলাম খান বলেন, ‘আমাদের সংবিধান বলে, নির্বাচন পরিচালনা করবে নির্বাচন কমিশন এবং নির্বাচনকালীন সরকার কমিশনকে প্রয়োজনীয় সহায়তা দান করবে। কিন্তু আমরা দেখি, দলীয় সরকার থাকে ক্ষমতায়। সেই সরকার সহায়তা করে না, প্রভাবিত করে। আমরা প্রভাবিত করার সরকার চাই না, আমরা সহায়তা করার একটা সরকার নির্বাচনকালে থাকুক—এই দাবি করছি।’

বিএনপির প্রয়াত ভাইস চেয়ারম্যান আফসার আহম্মেদ সিদ্দিকীর ১৭তম মৃত্যুবার্ষিকী উপলক্ষে আয়োজিত আলোচনাসভায় নজরুল ইসলাম খান জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট নিয়ে অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিতের বক্তব্যেরও জবাব দেন। তিনি বলেন, ‘অর্থমন্ত্রী বলেছেন ড. কামাল হোসেন জিরো। মাননীয় অর্থমন্ত্রী, বিচারপতি আবদুস সাত্তারের বিরুদ্ধে আপনার দল ও অন্যান্য দল কামাল হোসেনের থেকে যোগ্য প্রার্থী খুঁজে পায় নাই। তাঁকে প্রার্থী করেছিলেন রাষ্ট্রপতি পদে। আজকে তিনি জিরো। স্বাধীনতার প্রথম পতাকা উত্তোলনকারী আ স ম আবদুর রব আপনাদের গত সরকারের মন্ত্রী ছিলেন, তিনিও জিরো। আর আপনি সরকারি চাকরি করে এরশাদের উপদেষ্টা, মন্ত্রী হইলেন, আওয়ামী লীগের এখানে আইসা মন্ত্রী হলেন, এখন আপনি প্লাস হয়ে গেলেন। আর  যে বিএনপি বারবার আপনাদেরকে পরাজিত করে সরকার গঠন করেছে সেই বিএনপিও আপনার কাছে জিরো।’

সভায় সভাপতিত্ব করেন বিএনপির নার্সেস বিষয়ক সহসম্পাদক ও প্রয়াত আফসার আহম্মেদ সিদ্দিকীর সহধর্মিণী জাহানারা সিদ্দিকী। বক্তব্য দেন দলের ভাইস চেয়ারম্যান আবদুল্লাহ আল নোমান, অধ্যাপক এ জেড এম জাহিদ হোসেন, চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা কাউন্সিলের সদস্য হাবিবুর রহমান হাবিব প্রমুখ।

 



মন্তব্য