kalerkantho


ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন

সম্পাদক পরিষদের মানববন্ধন কাল

নিজস্ব প্রতিবেদক   

১৪ অক্টোবর, ২০১৮ ০০:০০



সম্পাদক পরিষদের মানববন্ধন কাল

ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন নিয়ে গতকাল জাতীয় প্রেস ক্লাবে সংবাদ সম্মেলন করে সম্পাদক পরিষদ। ছবি : কালের কণ্ঠ

ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনের বিতর্কিত ৯টি ধারা সংশোধনের দাবিতে আগামীকাল সোমবার সকাল ১১টায় জাতীয় প্রেস ক্লাবের সামনে মানববন্ধন করবে সম্পাদক পরিষদ। গতকাল শনিবার জাতীয় প্রেস ক্লাবে এক সংবাদ সম্মেলনে সম্পাদক পরিষদের পক্ষ থেকে এই কর্মসূচি ঘোষণা করা হয়। কর্মসূচি ঘোষণা করেন সম্পাদক পরিষদের সদস্য দৈনিক ভোরের কাগজ পত্রিকার সম্পাদক শ্যামল দত্ত।

লিখিত বক্তব্যে শ্যামল দত্ত বলেন, ‘একই দাবিতে গত ২৯ সেপ্টেম্বর আমাদের মানববন্ধন কর্মসূচি ছিল। কিন্তু তথ্যমন্ত্রীর অনুরোধে ওই কর্মসূচি স্থগিত করা হয়। তারপর গত ৩০ সেপ্টেম্বর তিনজন মন্ত্রী ও প্রধানমন্ত্রীর তথ্য উপদেষ্টা প্রতিশ্রুতি দিয়েছিলেন, আমাদের উদ্বেগের বিষয়গুলো ৩ অক্টোবর অথবা ১০ অক্টোবরের মন্ত্রিসভার বৈঠকে উত্থাপন করে আমাদের সঙ্গে নতুন করে আলোচনা শুরু করার জন্য মন্ত্রিসভার অনুমোদন চাইবেন।’

তিনি বলেন, ‘তিন মন্ত্রী আমাদের আশ্বাস দেন ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনের এমন একটি সংস্কারের সর্বাত্মক চেষ্টা করা হবে, যেটি সংশ্লিষ্ট সকল মহলের নিকট গ্রহণযোগ্য হবে। দুঃখের বিষয়, সে রকম কোনো উদ্যোগ গ্রহণ করা হয়নি। তিন মন্ত্রী কেন তাঁদের প্রতিশ্রুতি রক্ষা করতে ব্যর্থ হলেন, তা কোনো একজনের মাধ্যমে আমাদের জানানোর সৌজন্যটুকুও দেখানো হয়নি। তাই আমরা আমাদের স্থগিত কর্মসূচি আবারও ঘোষণা করলাম।’

সম্পাদক পরিষদ বলছে, ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনের ৮, ২১, ২৫, ২৮, ২৯, ৩১, ৩২, ৪৩ ও ৫৩ ধারাগুলো স্বাধীন সাংবাদিকতা ও মত প্রকাশের স্বাধীনতাকে ভীষণভাবে ক্ষতিগ্রস্ত করবে।

সম্পাদক পরিষদের সাধারণ সম্পাদক ও ডেইলি স্টার সম্পাদক মাহফুজ আনামের সভাপতিত্বে সংবাদ সম্মেলনে আরো উপস্থিত ছিলেন—প্রথম আলো সম্পাদক মতিউর রহমান, মানবজমিনের প্রধান সম্পাদক মতিউর রহমান চৌধুরী, বাংলাদেশ প্রতিদিন সম্পাদক নঈম নিজাম, কালের কণ্ঠ সম্পাদক ইমদাদুল হক মিলন, সংবাদের ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক খন্দকার মুনীরুজ্জামান, নিউ এজ সম্পাদক নূরুল কবীর, ইনকিলাব সম্পাদক এ এম এম বাহাউদ্দীন, নয়া দিগন্ত সম্পাদক আলমগীর মহিউদ্দিন, আজাদী সম্পাদক এম এ মালেক, করতোয়া সম্পাদক মোজাম্মেল হক, যুগান্তরের ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক সাইফুল আলম, বণিক বার্তা সম্পাদক দেওয়ান হানিফ মাহমুদ, ঢাকা ট্রিবিউন সম্পাদক জাফর সোবহান, সমকালের ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক মুস্তাফিজ শফি, ফিন্যানশিয়াল এক্সপ্রেসের যুগ্ম সম্পাদক শামসুল হক জাহিদ, ইনডিপেনডেন্ট সম্পাদক এম শামসুর রহমান প্রমুখ।

সংবাদ সম্মেলনে সম্পাদক পরিষদের সাধারণ সম্পাদক মাহফুজ আনাম বলেন, ‘আমরা মনে করি বাংলাদেশে সাইবার সিকিউরিটি আরো সুসংগঠিত, সমৃদ্ধ ও শক্তিশালী হওয়া উচিত। সাইবার সিকিউরিটির ব্যাপারে বাংলাদেশের আরো শক্ত অবস্থানে যাওয়া উচিত। আমরা এটাও মনে করি, সাইবার সিকিউরিটির ব্যাপারে একটি গ্রহণযোগ্য আইনও প্রয়োজন।’

তিনি বলেন, ‘আইনের যেসব ধারা নিয়ে আমরা বক্তব্য দিয়েছি, সেগুলো সাংবাদিকদের জন্য সংকটের সৃষ্টি করবে। তাই আমরা বারবার যেই ধারাগুলোর কথা বলে আসছি, সেগুলোর আমূল সংশোধন চাই। সংসদের এই অধিবেশন শেষ হওয়ার আগে এটি সংশোধনের সুযোগ আছে। আমরা সংবাদপত্র ও সাংবাদিকদের স্বাধীনতা নিয়েই বক্তব্য রেখেছি। এ ধরনের একটি আইন ভারতে হওয়ার পর সেখানকার উচ্চ আদালত আইনটি সংবিধানবিরোধী বলে রায় দিয়েছেন। আমরা গভীরভাবে উপলব্ধি করি, আইনের সংশোধন করা সম্ভব।

 



মন্তব্য

abid commented 2 days ago
mr Fokrul hold Jamat and leave Tareque Rahman because mr modud do not like tareque modud say he is a illletrate boy