kalerkantho


বসুন্ধরা সিমেন্ট-কালের কণ্ঠ বিশ্বকাপ মেগা কুইজ

গাড়ি পেলেন মাদারীপুরের জুয়েল

ক্রীড়া প্রতিবেদক   

১৭ সেপ্টেম্বর, ২০১৮ ০০:০০



গাড়ি পেলেন মাদারীপুরের জুয়েল

ছবি : কালের কণ্ঠ

কুপনের বিশাল স্তূপ। কয়েক লাখ তো হবেই। সেখান থেকে বেছে নিতে হবে সেরা তিন ভাগ্যবানকে। বসুন্ধরা সিমেন্ট-কালের কণ্ঠ বিশ্বকাপ মেগা কুইজ বিজয়ীদের। এটা ভেবেই খানিকটা আকুল হলেন অতিথি সাবেক কৃতী ফুটবলার ও কোচ সাইফুল বারী টিটু, ‘এত সঠিক জবাবদাতার মধ্যে অনেকের কপাল পুড়বে, এটা ভাবতেও খারাপ লাগছে। বিশ্বকাপকে ঘিরে এ দেশের মানুষের মধ্যে কী উন্মাদনা তৈরি হয়!’ আরেক তারকা ফুটবলার ও কোচ শফিকুল ইসলাম মানিকের কাছে কুইজের এই স্তূপ অস্বাভাবিক কিছু নয়, ‘কালের কণ্ঠ’র খেলার পাতাই ক্রীড়ামোদী মানুষের বড় খোরাক। সুতরাং তাদের সব ক্রীড়াবিষয়ক আয়োজনে এমন সাড়া পড়বে, এটাই স্বাভাবিক। তবে আমাকে মাঝেমধ্যে বিস্মিত করে কুইজবাজদের অনুমান, যেটা হয়তো আমরাও চিন্তা করি না। তাদের কথাই মিলে যায়।’

বসুন্ধরা সিমেন্ট-কালের কণ্ঠ মেগা কুইজের তিন প্রশ্নে একটু কঠিন ছিল সেরা খেলোয়াড় কে হবেন। সেটাও মিলিয়ে ফেলেছেন লাখ লাখ লোক। এই লাখো কুইজের মধ্যে সেরা হয়েছেন মাদারীপুরের জুয়েল বাড়ৈ। তাঁর পুরস্কার একটি ব্র্যান্ড নিউ গাড়ি। শফিকুল ইসলাম মানিক সেই কুপনটি তোলার পর জুয়েলকে ধরা হয় টেলিফোনে। শুনে প্রথমে তাঁর বিশ্বাস হচ্ছিল না। পরে অবশ্য উত্তেজনা থামিয়ে সেই গাড়ি সংগ্রহের নিয়ম-কানুন জেনে নিয়েছেন। বিশ্বকাপ কুইজে গাড়ি আসলে অনেক বড় ব্যাপার, এবারের বিশ্বকাপ তাবৎ কুইজ আয়োজনে এটাই ছিল সবচেয়ে বড় পুরস্কার।

সেটা সম্ভব হয়েছে বসুন্ধরা সিমেন্টের সৌজন্যে। গতকাল কালের কণ্ঠ’র অফিসে অনুষ্ঠিত এই কুইজের ড্র অনুষ্ঠানে এসে বসুন্ধরা গ্রুপের সিমেন্ট সেক্টরের ডিজিএম মাহমুদুল হাসান বলেছেন, ‘কালের কণ্ঠ’র এই কুইজে থাকতে পেরে আমরা খুশি। তাদের বিভিন্ন আয়োজনের সঙ্গে আমরা থাকি এবং সামনের দিনগুলোতেও আমাদের বন্ধন অটুট থাকবে।’ তিনিই তুলেছেন দ্বিতীয় পুরস্কারের কুপনটি, সেই অনুযায়ী মুগদাপাড়ার আফরোজা পেয়েছেন একটি মোটরসাইকেল। কোচ সাইফুল বারী তুলেছেন তৃতীয় পুরস্কার বিজয়ীর নাম। তিনি ঢাকার নয়াবাজারের লামিয়া জান্নাত, জিতেছেন একটি ল্যাপটপ।

কালের কণ্ঠ সম্পাদক ইমদাদুল হক মিলন ড্র অনুষ্ঠানের সমাপ্তি টেনে বসুন্ধরা সিমেন্টের কর্মকর্তাদের ধন্যবাদ জানান, ‘বসুন্ধরা সিমেন্ট সঙ্গে থাকলে সব সময়ই আমরা এ রকম আয়োজন করে পাঠকদের আরো কাছে টেনে নিতে পারব। নতুন কিছু উপহার দিতে পারব।’ তিনি প্রশংসা করেন নির্বাহী সম্পাদক মোস্তফা কামালের, ‘তাঁর অক্লান্ত পরিশ্রমে প্রতিদিন একটি মানসম্পন্ন পত্রিকা আমরা হাতে পাচ্ছি।’ এ সময় উপস্থিত ছিলেন উপসম্পাদক মোস্তফা মামুন, সিমেন্ট সেক্টরের এজিএম মোহাম্মদ হাসানুজ্জামান, কালের কণ্ঠ বিজ্ঞাপন বিভাগের জিএম হারুনুর রশিদ, এজিএম মঞ্জুর হোসাইন, হিসাব বিভাগের ডিজিএম মেহেদী হাসান, এজিএম আবদুল মান্নান, হিসাব বিভাগের ম্যানেজার নাজিম উদ্দিন ও অ্যাক্টিভিশন এক্সিকিউটিভ মাহমুদ রেজা দিপু প্রমুখ। অনুষ্ঠান সঞ্চালনা করেন মার্কেটিং ও সেলসের জিএম ইউছুফ মামুন।

পুরস্কার

প্রথম পুরস্কার—একটি ব্র্যান্ড নিউ গাড়ি

জুয়েল বাড়ৈ

পিতা-হরবিলাস বাড়ৈ

কালকিনি, মাদারীপুর

দ্বিতীয় পুরস্কার—একটি মোটরসাইকেল

আফরোজা

পিতা-আলি আহাম্মদ

মুগদাপাড়া, ঢাকা

তৃতীয় পুরস্কার—একটি ল্যাপটপ

লামিয়া জান্নাত

পিতা-আব্দুল কাদের কাজল

নয়াবাজার, ঢাকা



মন্তব্য