kalerkantho


পঞ্চগড়

পাতানো নির্বাচন হলে আমরা যাব না

এম এ মজিদ
সাবেক ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক, জেলা বিএনপি

৬ সেপ্টেম্বর, ২০১৮ ০০:০০



পাতানো নির্বাচন হলে আমরা যাব না

কালের কণ্ঠ : নবম জাতীয় সংসদে পঞ্চগড়ের দুটি আসনে বিএনপির ভরাডুবির কারণ কী?

এম এ মজিদ : ভরাডুবি না। ওটা ছিল চক্রান্তের নির্বাচন। তাই বিএনপি জয়ী হতে পারেনি।

কালের কণ্ঠ : গত ১০ বছরের প্রেক্ষাপটে জেলা বিএনপির বর্তমান সাংগঠনিক অবস্থা কেমন?

এম এ মজিদ : পঞ্চগড়ের দুটি আসনই বিএনপির দুর্গ বলে পরিচিত। আমাদের সাংগঠনিক অবস্থা এখনো আগের মতোই আছে। এর প্রমাণ উপজেলা পরিষদ নির্বাচন এবং পৌর নির্বাচনে আমাদের প্রার্থীরা জয়ী হয়েছেন।

কালের কণ্ঠ : জেলা বিএনপি এখন দুই ভাগে বিভক্ত। এর সমাধান কিভাবে?

এম এ মজিদ : বিভক্ত নয়, বড় দল হিসেবে নেতৃত্বের প্রতিযোগিতা রয়েছে। এ বিষয়ে দলের মহাসচিব উদ্যোগ নিয়েছিলেন। তবে বিএনপির স্থায়ী পরিষদের সদস্য ব্যারিস্টার জমির উদ্দির সরকার নির্বাচনে অংশ নিলে এই বিভক্তি আর থাকবে না। 

কালের কণ্ঠ : কিন্তু চার বছর ধরে জেলা বিএনপি কমিটিহীন চলছে।

এম এ মজিদ : আমাদের শুধু জেলা কমিটি নেই। বাকি সব কমিটিই রয়েছে। উপজেলা, পৌর, ইউনিয়ন এবং অঙ্গ ও সহযোগী সংগঠনের কমিটি রয়েছে। সবাই মিলে সবাইকে নিয়ে কাজ করে যাচ্ছি। সাংগঠনিক কোনো দুর্বলতা নেই।

কালের কণ্ঠ : তার মানে আপনারা নির্বাচনের জন্য তৈরি?

এম এ মজিদ : অবশ্যই, আমরা নির্বাচনের জন্য পুরোপুরি তৈরি।

কালের কণ্ঠ : কিন্তু আপনাদের মনোনয়নপ্রত্যাশীদের তো গণসংযোগ করতে দেখা যাচ্ছে না।

এম এ মজিদ : এ মাসেই ব্যারিস্টার জমির উদ্দির সরকার পঞ্চগড়ে এসে গণসংযোগ শুরু করবেন। এ ছাড়া মনোনয়নপ্রত্যাশীরা যে যাঁর মতো করে গণসংযোগ করছেন। 

কালের কণ্ঠ : আবারও ৫ জানুয়ারির মতো নির্বাচন হলে কী করবেন?

এম এ মজিদ : এমন আর সুযোগ নেই। এমন হলে আন্তর্জাতিক সংস্থাগুলোও তা আর মেনে নেবে না। 

কালের কণ্ঠ : কী ধরনের পরিবেশ হলে আপনারা নির্বাচনে যাবেন?

এম এ মজিদ : মূলত পাতানো নির্বাচন হলে আমরা নির্বাচনে যাব না। তবে পঞ্চগড়ে পাতানো নির্বাচন হলেও বিএনপি জয়লাভ করবে। এখানে ৭০ শতাংশ মানুষ বিএনপির সমর্থক।

কালের কণ্ঠ : মানুষ কেন ধানের শীষে ভোট দেবে?

এম এ মজিদ : ব্যারিস্টার জমির সরকার  ও মোজাহার হোসেন পঞ্চগড়ের যে উন্নয়ন করেছেন আমার মনে হয় গত ১০ বছরে আওয়ামী লীগ তার সিকিভাগ উন্নয়নও করতে পারেনি। তাই মানুষ উন্নয়ন ও সুশাসনের জন্য ধানের শীষে ভোট দেবে।



মন্তব্য