kalerkantho


প্রধানমন্ত্রী হিসেবে শপথ

পাকিস্তানে শুরু ইমরান খানের ‘অধিনায়কত্ব’

কালের কণ্ঠ ডেস্ক   

১৯ আগস্ট, ২০১৮ ০০:০০



পাকিস্তানে শুরু ইমরান খানের ‘অধিনায়কত্ব’

পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী হিসেবে শপথ নিয়েছেন একসময়কার ক্রিকেট মহাতারকা ইমরান খান। রাজনীতি শুরু করার ২২ বছর পর গতকাল শনিবার দেশটির ২২তম প্রধানমন্ত্রী হিসেবে শপথ নেন তিনি। আর এর মধ্য দিয়ে দেশটিতে কয়েক দশক ধরে পালাক্রমে পাকিস্তান মুসলিম লীগ-নওয়াজ (পিএমএল-এন) ও পাকিস্তান পিপলস পার্টির (পিপিপি) ‘রাজত্বের’ অবসান ঘটল।

গতকাল সকালে ইমরানকে শপথবাক্য পাঠ করান প্রেসিডেন্ট মামনুন হুসাইন। এ সময় ইমরানের চোখে অশ্রু ছিল, ছিল হাসিও। পরনে ছিল কালো রঙের শেরওয়ানি। ইমরান শপথ নেন, ‘আমি পাকিস্তানের প্রতি অনুগত থাকব এবং বিশ্বাস ভাঙব না। আমার দায়িত্ব যথাযথভাবে এবং সততার সঙ্গে পালন করব।’

১৯৯২ সালে বিশ্বকাপ জেতা পাকিস্তান ক্রিকেট দলের অধিনায়ক ছিলেন ইমরান খান। ওই সময় জনপ্রিয়তার তুঙ্গে থাকা এ ক্রিকেট অলরাউন্ডার বিশ্বকাপ জেতার পরই অবসর নেন। তখন তাঁর বয়স ছিল ৪০ বছর। এর চার বছর পর ১৯৯৬ সালে তিনি ‘পাকিস্তান তেহরিক-ই-ইনসাফ’ (পিটিআই) গঠন করেন এবং রাজনীতির ‘ইনিংস’ শুরু করেন। ওই ইনিংসের প্রথম ‘ব্রেকথ্রো’ এলো গত শনিবার।

এর আগের দিন পার্লামেন্টে এক ভাষণে ৬৫ বছর বয়সী ইমরান খান বলেন, ‘আমি আল্লাহর নামে শপথ নিয়ে বলছি, দুর্নীতি করে যারা দেশের সম্পদ লুট করেছে, তাদের প্রত্যেককেই আইনের আওতায় আনা হবে।’

গত ২৫ জুলাইয়ের নির্বাচনে সবচেয়ে বেশি আসন পায় পিটিআই। অভিযোগ আছে, এবারের নির্বাচনে দেশটির সামরিক বাহিনী ইমরানের পক্ষে কাজ করেছে। ইমরান এ ধরনের অভিযোগের দিকে ইঙ্গিত করে পার্লামেন্টে বলেন, ‘২২ বছরের লড়াইয়ের পর আজ আমি এখানে। কোনো একনায়কের ঘাড়ে ভর করে আমি এখানে আসিনি। আমি এই পার্লামেন্টে দাঁড়িয়ে আছি নিজের পায়ের ওপর ভর করে।’

গতকাল প্রেসিডেন্ট ভবনে ইমরানের শপথ অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন তাঁর স্ত্রী বুশরা বিবি। ছিলেন সেনাপ্রধান জাবেদ পাটোয়ারী বাজওয়া। অনুষ্ঠানে ১৯৯২ সালে বিশ্বকাপ জেতা পাকিস্তান ক্রিকেট দলের সব সদস্যকে আমন্ত্রণ জানানো হয়েছিল। এদের মধ্যে ওয়াসিম আকরামসহ বেশ কয়েকজনকে দেখা গেছে। অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন ভারতের ক্রিকেটার থেকে রাজনীতিক বনে যাওয়া নভোজৎ সিং সিধুও। শপথ অনুষ্ঠানের পর প্রধানমন্ত্রীর বাসভবনে যান ইমরান। সেখানে তাঁকে দেওয়া হয় ‘গার্ড অব অনার’।

উল্লেখ্য, পাকিস্তানের ৭১ বছরের ইতিহাসে এ নিয়ে দ্বিতীয়বারের মতো গণতান্ত্রিকভাবে ক্ষমতার পালাবদল ঘটল। এ ছাড়া দেশটিতে আজ পর্যন্ত কোনো প্রধানমন্ত্রী পূর্ণ মেয়াদে ক্ষমতায় থাকতে পারেননি। এ ক্ষেত্রে পূর্বসূরিদের মতো ইমরান খানেরও সবচেয়ে বড় চ্যালেঞ্জ থাকবে সামরিকের সঙ্গে বেসামরিকের ভারসাম্য রক্ষা করা। এ ক্ষেত্রে একটু এদিক-সেদিক হলে কী ঘটে, সে ইতিহাস ইমরান অবশ্যই জানেন।

প্রেসিডেন্টের মনোনয়ন আলভিকে : পাকিস্তানের আসন্ন প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে পিটিআই থেকে মনোনয়ন পেয়েছেন আরিফ আলভি। গতকাল দলের মুখপাত্র ফাওয়াদ চৌধুরী টুইটার বার্তায় বিষয়টি নিশ্চিত করেন। আগামী ৪ সেপ্টেম্বর প্রেসিডেন্ট নির্বাচন হবে। যদিও সংবিধান অনুযায়ী, ক্ষমতাসীন প্রেসিডেন্টের মেয়াদ শেষ হওয়ার অন্তত এক মাস আগে প্রেসিডেন্ট নির্বাচন হওয়ার বাধ্যবাধকতা রয়েছে। সেই হিসাবে ৮ আগস্টের মধ্যে নির্বাচন হওয়ার কথা ছিল।

সূত্র : এএফপি।



মন্তব্য