kalerkantho


রাশিয়ায় জ্বলবে তারুণ্যের মশাল

২১ মে, ২০১৮ ০০:০০



রাশিয়ায় জ্বলবে তারুণ্যের মশাল

লিওনেল মেসি, ক্রিস্তিয়ানো রোনালদো আর নেইমারের ঝলক তো দেখা হয়েই গেছে বিশ্বকাপে। মেসি খেলবেন নিজের চতুর্থ বিশ্বকাপে, ক্রিস্তিয়ানো রোনালদোরও তাই। নেইমার খেলবেন দ্বিতীয় বিশ্বকাপ। রাশিয়ায় নতুন কোনো তারকার উন্মেষের আশা তাই অবান্তর নয়। মেসি-রোনালদোদের পরের প্রজন্মে প্রতিশ্রুতিশীল হিসেবে উঠে আসছেন গ্যাব্রিয়েল জেসাস, আন্দ্রে সিলভাসহ অনেকেই। বয়সভিত্তিক আসরে সফল হওয়ারা কি পারবেন বিশ্বকাপের মূল মঞ্চেও নিজেদের মেলে ধরতে?

২০১৫ সালের অনূর্ধ্ব-২০ বিশ্বকাপে খেলা গ্যাব্রিয়েল জেসাসই রাশিয়া বিশ্বকাপে ব্রাজিলের ‘নাম্বার নাইন’। রোনালদোর স্মৃতিমাখা জার্সিটা পরে গোল করার দুরূহ কাজটা করতে হবে তাঁকেই। এরই মধ্যে বাছাই পর্বে ১০ ম্যাচে ৭ গোল করে দক্ষিণ আমেরিকা বাছাই অঞ্চলের দ্বিতীয় সর্বোচ্চ ও ব্রাজিলের সর্বোচ্চ গোলদাতা হয়ে

 গেছেন। ম্যানচেস্টার সিটির হয়ে জেতা হয়েছে প্রিমিয়ার লিগের শিরোপাও। লিগে ২৯ ম্যাচে করেছেন ১৩ গোল, মৌসুমে মোট ৪২ ম্যাচে ১৭ গোল। রিও অলিম্পিকে ব্রাজিলকে অধরা সোনা জেতানোর মিশনেও করেছিলেন ৩ গোল। রাশিয়া বিশ্বকাপে কি নিজেকে ‘দ্য ফেনোমেনন’-এর সার্থক উত্তরসূরি হিসেবে প্রমাণ করতে পারবেন জেসাস?

পর্তুগালের ইউসেবিও, লুই ফিগো, ক্রিস্তিয়ানো রোনালদোর উত্তরসূরি আন্দ্রে সিলভা। অনূর্ধ্ব-২০ বিশ্বকাপে ৫ ম্যাচে করেছিলেন ৪ গোল। ছিল দুটি অ্যাসিস্টও। বিশ্বকাপ বাছাই পর্বে করেছেন ১০ ম্যাচে ৯ গোল। কোচ ফের্নান্দো সান্তোসের বিশ্বকাপ পরিকল্পনায় খুব গুরুত্বপূর্ণ একটা অংশই আন্দ্রে সিলভাকে ঘিরে। ক্লাব দল এসি মিলানে অবশ্য মৌসুমটা খুব একটা ভালো যায়নি সিলভার। লিগে ২৩ ম্যাচে মাত্র ২ গোল, তবে হ্যাটট্রিক আছে ইউরোপা লিগে। মিলান ছাড়ার ইচ্ছার কথা এজেন্ট হোর্হে মেন্দেসকে জানিয়ে দল খুঁজতে বলেছেন আন্দ্রে সিলভা, বিশ্বকাপে ভালো করলে নিঃসন্দেহে দরটা চড়বে বহুগুণে!

উরুগুয়ের রদ্রিগো বেন্তানসুর খেলেন জুভেন্টাসে। চ্যাম্পিয়নস লিগ থেকে দুর্ভাগ্যজনকভাবে ছিটকে গেছে তাঁর দল, তবে ঘরোয়া দুই শিরোপা অর্থাৎ সিরি ‘এ’ ও কোপা ইতালিয়া দুটিই জিতেছে তাঁর দল। ক্লাবের হয়ে ২০ ম্যাচ খেলেছেন এই মিডফিল্ডার, করেছেন ২ গোল। এ ছাড়া মেক্সিকোর এদসন আলভারেসও দেখাতে পারেন চমক।

গত বছরই পোল্যান্ডে হয়েছে উয়েফা অনূর্ধ্ব-২১ চ্যাম্পিয়নশিপ, যার শিরোপা জিতেছে জার্মানি। ফাইনালে তারা হারিয়েছিল স্পেনকে। স্প্যানিশ দলের মার্কো আসেনসিও, দানি সেবোইয়াস এরই মধ্যে রিয়াল মাদ্রিদে নিজেদের প্রতিভার স্বাক্ষর রেখেছেন। বিশ্বকাপে সুযোগ পেলে তাঁরাও হয়তো দেখাবেন উজ্জ্বল আগামীর প্রতিশ্রুতি। জার্মানির লিওন গোরেত্জকা, টিমো ওয়ের্নার; ফ্রান্সের নেবিল ফেকির—তাঁরাও এই বিশ্বকাপে হয়ে উঠতে পারেন আগামীর তারকা।

 

 

 



মন্তব্য