kalerkantho


সিলেটে ওয়াজ মাহফিলে সংঘর্ষে ছাত্র নিহত

মাইকে ঘোষণা দিয়ে ৪৫ বাড়িতে হামলা অগ্নিসংযোগ

সিলেট অফিস   

২৮ ফেব্রুয়ারি, ২০১৮ ০০:০০



মাইকে ঘোষণা দিয়ে ৪৫ বাড়িতে হামলা অগ্নিসংযোগ

সিলেটের জৈন্তাপুরের আমবাড়ীতে মাইকে ঘোষণা দিয়ে পুড়িয়ে দেওয়া ঘরবাড়ি। ছবি : কালের কণ্ঠ

সিলেটের জৈন্তাপুর উপজেলায় ওয়াজ মাহফিলে দুই পক্ষের সংঘর্ষে মুজাম্মিল আলী নামের এক মাদরাসাছাত্রের মৃত্যু হয়েছে। সে হরিপুর বাজার মাদরাসার দাওরায়ে হাদিস (টাইটেল) ক্লাসের ছাত্র। তার বাড়ি গোয়াইনঘাট উপজেলার বড়গোছা গ্রামে। এ ঘটনায় আরো অন্তত অর্ধশতাধিক লোক আহত হয়েছে। এ ঘটনার জেরে সেখানকার প্রায় তিন কিলোমিটার এলাকাজুড়ে চালানো হয়েছে ব্যাপক তাণ্ডব। পুড়িয়ে দেওয়া হয়েছে এলাকার অন্তত ৪৫টি বাড়ি। সোমবার রাত ১১টা থেকে গভীর রাত পর্যন্ত এ সংঘর্ষ চলে।

খবর পেয়ে বিজিবি, র‌্যাব ও পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে। সুন্নি মতাদর্শী ও ওয়াহাবি মতাদর্শীদের মধ্যে এ ঘটনা ঘটে বলে জানা গেছে। এ ঘটনাকে কেন্দ্র করে এলাকায় থমথমে অবস্থা বিরাজ করছে। ঘটনা তদন্তে সিলেটের জেলা প্রশাসকের পক্ষ থেকে তিন সদস্যের একটি তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে।

স্থানীয়রা জানায়, উপজেলার আমবাড়ীতে সোমবার সন্ধ্যায় আটরশি পীরের অনুসারীরা একটি ওয়াজ মাহফিলের আয়োজন করে। ইসলামবিরোধী কোনো বক্তব্য দেওয়া হয় কি না তা পর্যবেক্ষণের জন্য কওমিপন্থী স্থানীয় অন্য এক দল মুসল্লি সেখানে হাজির হয়। একপর্যায়ে ওয়াজ মাহফিল নিয়ে দুই পক্ষ লিপ্ত হয় তর্কাতর্কিতে। পরে তা সংঘর্ষে রূপ নেয়। সংঘর্ষে মাদরাসাছাত্র মুজাম্মিল আলী মারা যায়।

অন্যদিকে ঘটনার সংবাদ পেয়ে হরিপুর এলাকায় বিভিন্ন মসজিদে মাইকে ওয়াজে হরিপুর মাদরাসার শিক্ষকসহ ছাত্র নিহত হওয়ার সংবাদ প্রচার করে সবাইকে সহযোগিতার আহ্বান জানানো হয়। তৎক্ষণিকভাবে পুরো উপজেলায় সংবাদটি ছড়িয়ে পড়ে। সংবাদ পেয়ে উপজেলার বিভিন্ন কওমি মাদরাসার ছাত্রসহ ধর্মপ্রাণ মুসল্লিরা গাড়িযোগে দেশি অস্ত্রশস্ত্রে সজিত হয়ে আমবাড়ী এলাকায় যায়। সেখানে গিয়ে তারা ব্যাপক তাণ্ডব চালায়। এ সময় ২ নম্বর জৈন্তাপুর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান এখলাছুর রহমানের বাড়িসহ আমবাড়ী, ঝিঙ্গাবাড়ী ও কাঁঠালবাড়ী নামক তিনটি গ্রামের প্রায় ৪৫টি বাড়িতে হামলা ও অগ্নিসংযোগ করা হয়। এ সময় ভয়ে পুরুষরা বাড়িঘর ত্যাগ করে। মহিলারা কোনো রকমে আত্মরক্ষা করে। পরিস্থিতি বেগতিক হলে রাত ২টায় ঘটনাস্থলে বিজিবি তলব করা হয়। সিলেট থেকে ছুটে যান র‌্যাব-৯-এর সদস্যরা। তাঁরা গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনেন।

গতকাল সকালে সিলেটের জেলা প্রশাসক, পুলিশ সুপারসহ প্রশাসনের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন। তাঁরা ক্ষয়ক্ষতি নিরূপণ করছেন। ক্ষতিগ্রস্ত ৪৫টি বাড়ির তালিকা করা হয়েছে এবং ক্ষতিগ্রস্ত লোকজনের জন্য প্রয়োজনীয় ত্রাণ সরবরাহের উদ্যোগও নেওয়া হয়েছে।

ঘটনাটির তদন্তে সিলেট জেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে গতকাল তিন সদস্যের একটি তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে। অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) শহিদুল ইসলাম চৌধুরীকে প্রধান করে তিন সদস্যের কমিটিতে অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট (এডিএম) সন্দীপ কুমার সিংহ ও জৈন্তাপুর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মৌরিন করিমকে সদস্য হিসেবে রাখা হয়েছে। কমিটিকে সাত কার্যদিবসের মধ্যে প্রতিবেদন জমা দিতে বলা হয়েছে। তদন্ত কমিটির প্রধান জানান, গতকাল সকালেই কমিটির সদস্যরা ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন এবং তদন্তকাজ শুরু করেছেন।

জৈন্তাপুর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান এখলাছুর রহমান বলেন, ‘বিগত বছরগুলোতে এ ধরনের ওয়াজ মাহফিল নিয়ে স্থানীয় কওমি মাদরাসার বিভিন্ন মতাবলম্বীদের মধ্যে মতপার্থক্য চলে আসছে। বিষয়টি নিষ্পত্তির জন্য উপজেলা প্রশাসনের মাধ্যমে একাধিকবার বৈঠক হলেও নিষ্পত্তি করা সম্ভব না হওয়ায় জেলা প্রশাসক মহোদয়ের কাছে বিষয়টি হস্তান্তর করা হয়। গতকাল (সোমবার) একটি অংশ ওয়াজ মাহফিলের আয়োজন করলে অন্য অংশের লোকজন ওয়াজ মাহফিলে আক্রমণ করে।’ কী কারণে তারা বাড়িঘরে হামলা ও অগ্নিসংযোগ করেছে তা তাঁর বোধগম্য নয় বলে জানান।

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মৌরিন করিম বলেন, ‘ঘটনার পর বিষয়টি তাৎক্ষণিকভাবে ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষকে অবহিত করি। জেলা প্রশাসকের নির্দেশে উপজেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে আহতদের চিকিৎসার খোঁজখবর নেওয়া হয়। ঘটনাস্থল আমবাড়ী গ্রামে তাৎক্ষণিকভাবে মেডিক্যাল টিম প্রেরণ করা হয়।’

জেলা প্রশাসক মো. রাহাত আনোয়ার তদন্ত কমিটি গঠনের বিষয়টি নিশ্চিত করে সাংবাদিকদের জানান, স্থানীয় গণ্যমান্য ব্যক্তি, জনপ্রতিনিধিদের সঙ্গে আলাপ করে বিষয়টির মূল কারণ উদ্ঘাটনের জন্য তিন সদস্যবিশিষ্ট তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে। এলাকার সার্বিক নিরাপত্তার স্বার্থে ঘটনাস্থলে পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে বলেও তিনি জানান। তিনি বলেন, ঘটনার সঙ্গে যে কেউ জড়িত থাকুক না কেন তাকে আইনের আওতায় আনা হবে।

জৈন্তাপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) খান মো. মঈনুল জাকির জানান, এ ঘটনায় গতকাল বিকেল পর্যন্ত কোনো মামলা দায়ের করা হয়নি, কাউকে আটকও করা হয়নি।


মন্তব্য