kalerkantho


নির্বাচনের প্রস্তুতি নিচ্ছি

এনাম আবেদীন   

২৭ ডিসেম্বর, ২০১৭ ০০:০০



নির্বাচনের প্রস্তুতি নিচ্ছি

বিএনপি নেতা তাবিথ আউয়াল জানিয়েছেন, ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের (ডিএনসিসি) উপনির্বাচনে বিএনপির প্রার্থিতার বিষয়ে কোনো সবুজ সংকেত এখনো তিনি পাননি। তবে তিনি সংকেতের অপেক্ষায় আছেন এবং নির্বাচনের জন্য তাঁর প্রস্তুতিও আছে। গতকাল মঙ্গলবার লন্ডন থেকে টেলিফোনে তিনি কালের কণ্ঠকে এমন তথ্য দেন।

বিএনপির জাতীয় নির্বাহী কমিটির সদস্য তাবিথ ২০১৫ সালের ঢাকা উত্তর সিটি নির্বাচনে দলের মেয়র প্রার্থী ছিলেন। তবে ২৮ এপ্রিল নির্বাচনের দিন দুপুরে নির্বাচন থেকে সরে দাঁড়ায় তাঁর দল। আসন্ন ঢাকা উত্তর সিটির উপনির্বাচনে তাঁকেই বিএনপি প্রার্থী করছে বলে জোর গুঞ্জন রয়েছে। মেয়র আনিসুল হকের আকস্মিক মৃত্যুতে মেয়র পদটি শূন্য হয়েছে।

তাবিথ আউয়াল এ প্রসঙ্গে গতকাল কালের কণ্ঠকে বলেন, ‘ঢাকা সিটি করপোরেশনের (উত্তর) গত নির্বাচনে যেহেতু আমার অভিজ্ঞতা রয়েছে এবং এ বিষয়ে কিছু কাজ করাও রয়েছে; সে জন্য আমি হাইকমান্ডের সিদ্ধান্তের অপেক্ষায় আছি। হাইকমান্ড আমাকে মনোনয়ন দিলে আমি নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করব। আর আমাকে না দিলে দল যাকে মনোনয়ন দেবে তাঁর পক্ষে কাজ করব।’

ডিএনসিসির সর্বশেষ নির্বাচনে সকাল ৮টায় ভোট শুরু হয় এবং শেষ হওয়ার আগেই দুপুর সাড়ে ১২টায় নির্বাচন বর্জনের ঘোষণা দেয় বিএনপি। এর পরেও বিএনপি প্রার্থী তাবিথ আউয়াল তিন লাখ ৬০ হাজার ভোট পেয়েছেন বলে ঘোষণা করে নির্বাচন কমিশন। ওই নির্বাচনে অল্প সময়ের মধ্যেই তাবিথ আউয়াল বিএনপির সাংগঠনিক শক্তি কাজে লাগিয়ে নির্বাচনী কাজ সমন্বয় করে বিএনপির ভেতরে ও বাইরে ব্যাপক প্রশংসিত হন। ফলে আগামী নির্বাচনে তাঁকেই প্রার্থী করার সম্ভাবনা বেশি বলে মনে করা হয়।

বিএনপির একটি নির্ভরযোগ্য সূত্র জানিয়েছে, তাবিথই প্রার্থী হচ্ছেন।

এক প্রশ্নের জবাবে তাবিথ আউয়াল বলেন, ‘বিএনপির হাইকমান্ড এখনো সিদ্ধান্ত নেয়নি। নির্বাচন হবে কি না, হয়তো সেই পর্যবেক্ষণে রয়েছে। নির্বাচন করতে হলে দলের স্থায়ী কমিটির বৈঠকে আলোচনা করে প্রার্থিতা ঠিক করা হবে।’

মনোনয়ন দেওয়া হলে নির্বাচনে জয়ের ব্যাপারে কতখানি আশাবাদী জানতে চাইলে বিএনপির এই তরুণ নেতা বলেন, ‘আমি তো মনে করি তরুণ নেতৃত্ব যেখানে আছে সেখানে ব্যর্থতার কারণ নেই।’ তাঁর মতে, যেকোনো কাজে যদি ‘ভিশন’ এবং মনোবল অটুট থাকে সেখানে জয় আসবেই। উন্নয়ন তথা আধুনিক ঢাকা গড়ে তোলার ব্যাপারে আশাবাদী কি না, জানতে চাইলে তিনি বলেন, ‘আর্থিক সামর্থ্যের পাশাপাশি যদি সবার সহযোগিতা পাওয়া যায় তাহলে অবশ্যই যোগ্যতার স্বাক্ষর রাখব।’

সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ নির্বাচনে কতটুকু আশাবাদী জানতে চাইলে তাবিথ আউয়াল বলেন, ‘গত নির্বাচনে যা ঘটেছে তাতে খুব বেশি আশাবাদী হওয়ার কারণ নেই। কারণ ওই সময় নির্বাচন বর্জন করার পরেও ভোট ডাকাতি করতে দেখা গেছে। তবে ইদানীং দুটি নির্বাচন কিছুটা সুষ্ঠু হওয়ার লক্ষণ দেখা গেছে।’


মন্তব্য