kalerkantho


পদদলিত হয়ে ১০ মৃত্যু

কারণ জানতে দুই তদন্ত কমিটি অপমৃত্যু মামলা

নিজস্ব প্রতিবেদক, চট্টগ্রাম   

২০ ডিসেম্বর, ২০১৭ ০০:০০



কারণ জানতে দুই তদন্ত কমিটি অপমৃত্যু মামলা

মহিউদ্দিন চৌধুরীর কুলখানির মেজবানে পদদলিত হয়ে ১০ জনের মৃত্যুর ঘটনার ‘প্রকৃত কারণ’ জানতে চট্টগ্রাম জেলা প্রশাসন ও মহানগর পুলিশ দুটি তদন্ত কমিটি গঠন করেছে। এ ছাড়া চকবাজার থানায় পুলিশ বাদী হয়ে একটি অপমৃত্যু মামলা করেছে।

জেলা প্রশাসক মো. জিল্লুর রহমান চৌধুরী তদন্ত কমিটি গঠন করেছেন উল্লেখ করে জেলা প্রশাসনের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট রমিজ আলী কালের কণ্ঠকে বলেন, ‘কমিটিকে সাত কর্মদিবসের মধ্যে প্রতিবেদন দাখিলের নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।’ তিনি বলেন, জেলা প্রশাসনের গঠিত কমিটির সদস্য করা হয়েছে পাঁচজনকে। অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট মোহাম্মদ মাশহুদ কবীরকে প্রধান করে গঠিত কমিটিতে ডেপুটি সিভিল সার্জন ডা. মো. হুমায়ুন কবির, নগর পুলিশের চকবাজার জোনের সহকারী কমিশনার নোবেল চাকমা, গণপূর্ত বিভাগের উপবিভাগীয় প্রকৌশলী এস এম শাহরিয়া নেওয়াজ ও ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণের সহকারী পরিচালক মুহাম্মদ হাসানুজ্জামানকে সদস্য করা হয়েছে।

এদিকে ‘ঘটনার কারণ’ বিষয়ে তদন্ত করে তিন দিনের মধ্যে প্রতিবেদন দাখিল করার জন্য অন্য একটি কমিটি গঠন করেছেন চট্টগ্রাম নগর পুলিশ কমিশনার মো. ইকবাল বাহার। সিএমপির গঠিত তদন্ত কমিটির প্রধান করা হয়েছে নগর পুলিশের উপকমিশনার (দক্ষিণ) এস এম মোস্তাইন হোসেন, নগর বিশেষ শাখার অতিরিক্ত উপকমিশনার মো. জসিম উদ্দীন ও নগর গোয়েন্দা পুলিশের সহকারী কমিশনার (উত্তর) কাজল কান্তি চৌধুরীকে সদস্য করা হয়েছে। এই কমিটিকে তিন দিনের মধ্যেই প্রতিবেদন দাখিলের নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।

এই বিষয়ে উপকমিশনার (দক্ষিণ) এস এম মোস্তাইন হোসেন কালের কণ্ঠকে বলেন, ‘নগর পুলিশ কমিশনার তিন সদস্যবিশিষ্ট তদন্ত কমিটি গঠন করেছেন। তিন দিনের মধ্যেই ঘটনার কারণ বিষয়ে অনুসন্ধান করে প্রতিবেদন দাখিলের নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।’ এক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, ‘এখন পর্যন্ত নাশকতামূলক কোনো কিছুর আলামত পাওয়া যায়নি। তার পরও কমিটি সার্বিক বিষয়ে তদন্ত করে প্রতিবেদন দেবে।’ অপমৃত্যু মামলার বিষয়ে উপকমিশনার মোস্তাইন হোসেন বলেন, ‘অপমৃত্যুর মামলার তদন্ত হচ্ছে। এটি নিতান্তই দুর্ঘটনা কি না, তা পুলিশ খতিয়ে দেখবে।’


মন্তব্য