kalerkantho

বিজ্ঞানী থেকে অভিনেত্রী

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

২১ মার্চ, ২০১৯ ১১:৫৮ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



বিজ্ঞানী থেকে অভিনেত্রী

জীববিজ্ঞানে পড়তে পড়তে হঠাৎ অভিনয়ে। কাজ করেন মানবাধিকার নিয়েও। ‘হোটেল মুম্বাই’-এর মুক্তি উপলক্ষে নাজনিন বনিয়াদিকে নিয়ে লিখেছেন খালিদ জামিল

২০০৮ সালে মুক্তি পাওয়া ‘আয়রনম্যান’ ছবিতে আমিরা আহমেদকে যাঁদের মনে আছে, তাঁরা চিনবেন নাজানিন বনিয়াদিকে। ‘বেনহার’-এর রিমেকে জ্যাক হিউস্টন আর মরগান ফ্রিম্যানের বিপরীতে প্রধান নারী চরিত্রে ছিলেন, ছিলেন টিভি শো ‘জেনারেল হসপিটাল’-এও। আমেরিকান সোপ অপেরার সঙ্গে চুক্তিবদ্ধ প্রথম ইরানি অভিনেত্রী তিনি। তবে ইরানে থাকা হয় না। উনিশ শতকের বিখ্যাত পারসিয়ান দার্শনিক সাফি আল শাহের এই বংশধর বনিয়াদি। তেহরানে যখন তাঁর জন্ম, সেখানে তখন ইসলামী বিপ্লব চলছে। সেই ডামাডোল থেকে তাঁর মা-বাবা লন্ডনে এসে স্থায়ী আবাস গাড়েন। এরপর জীববিজ্ঞান নিয়ে পড়ার জন্য বনিয়াদি পাড়ি জমান আমেরিকায়। ইউনিভার্সিটি অব ক্যালিফোর্নিয়ার এই ছাত্রী গবেষণার জন্য পুরস্কারও জিতেছিলেন। তবে বিজ্ঞানচর্চা ছেড়ে চলে এলেন অভিনয়ে। লন্ডন থেকে অভিনয়ের ওপর একটা ডিগ্রিও নিলেন। এরপর গোল্ডেন গ্লোব জেতা টিভি সিরিজ ‘হোমল্যান্ড’-এ ফারাহর ভূমিকায় দেখা গেছে তাঁকে। অভিনেত্রী ব্যাপক পরিচিতি পান টম ক্রুজের সঙ্গে নাম জড়িয়ে। ২০১২ সালে ‘ভ্যানিটি ফেয়ার’ দাবি করে, কেটি হোমসকে বিয়ের আগে বনিয়াদির সঙ্গে প্রেম করেছিলেন টম ক্রুজ। ‘মিশন ইমপসিবল’ তারকা বিষয়টি অস্বীকার করেছেন বরাবরই। বনিয়াদি তো কোনো মন্তব্যই করতে রাজি হননি। যদিও দুজনের কেউই ওই প্রতিবেদকের বিরুদ্ধে মামলা করেননি। তাই ঘটনাটা স্রেফ গুজব বলে উড়িয়ে দিতে চান না অনেকেই। বনিয়াদি নতুন করে আলোচনায় ‘হোটেল মুম্বাই’ নিয়ে। ২০০৮ সালে মুম্বাইয়ের হোটেল তাজমহল প্যালেসে হামলার ঘটনা থেকে বেঁচে ফেরাদের গল্প নিয়ে নির্মিত হয়েছে ছবিটি। বনিয়াদি করেছেন জারা নামের এক ইরানি নারীর চরিত্র। পরিচালক হিসেবে অ্যান্থনি মারাসের এটাই প্রথম ছবি। তাই বনিয়াদি শুরুতে দ্বিধায় ছিলেন অস্ট্রেলীয় পরিচালকের সঙ্গে কাজ করবেন কি না। পরে চিত্রনাট্য দেখে রাজি হয়ে যান। মারাসেরও কোনো ধারণা ছিল না বনিয়াদি সম্পর্কে। ইরানি চরিত্র করার জন্য তিনি ইরানি অভিনেত্রীই খুঁজছিলেন। বনিয়াদি সম্পর্কে জানার পর তাঁকেই প্রস্তাব দেন। দুইয়ে দুইয়ে চার মিলে যায়। ‘হোটেল মুম্বাই’তে বনিয়াদি ছাড়া আরো আছেন দেব প্যাটেল, অ্যামি হ্যামার।

অভিনয়ের ব্যস্ততার পাশাপাশি মানবাধিকারের পক্ষেও নিয়মিত লড়ে যাচ্ছেন বনিয়াদি। কাজ করেছেন অ্যামনেস্টি ইন্টারন্যাশনালের মুখপাত্র হিসেবেও। বর্তমানে তিনি সংঠনটির কাউন্সিল অব ফরেন রিলেশনসের সদস্য। এ ছাড়া ইরানের ইন্টারন্যাশনাল ক্যাম্পেইন ফর হিউম্যান রাইটসের বোর্ড অব ডিরেক্টরসেও ছিলেন ইংরেজি ও ফারসি ভাষায় দক্ষ এই অভিনেত্রী।  

মন্তব্য