kalerkantho


'সুরের টানে শেকড়ের গান, খুঁজে ফিরি আত্মার প্রাণ'

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

১৫ নভেম্বর, ২০১৮ ২৩:৫১



'সুরের টানে শেকড়ের গান, খুঁজে ফিরি আত্মার প্রাণ'

সুদীর্ঘ কালের পথ-পদচারণায় বাংলার মাটির রুপ, রস ও প্রাকৃতিক সৌন্দর্যে অবিরাম ঢেউ খেলে যায় অনিন্দ্য সুন্দর লোকজ সুরের মোহনা। যে সুরের মোহনায় খুঁজে পায় বাঙালির হাজার বছরের ঐতিহ্য ও বর্ণাঢ্য সাংস্কৃতিক  ইতিহাস। যে ইতিহাসের পরতে পরতে গেঁথে আছে বাংলা লোকগানের বৈচিত্র্যময় সুর ও সংগীত।

বাঙালির নিজস্ব সম্পদ-বাংলা লোকসংগীতকে সকলের মাঝে ছড়িয়ে দেওয়া এবং সারাবিশ্বে লোকসংগীতের গৌরবময় সুদৃঢ় অবস্থান তৈরির লক্ষ্য নিয়ে টানা চতুর্থবারের মতো সান কমিউনিকেশন্স কর্তৃক আয়োজিত এবং সান ফাউন্ডেশন-এর উদ্যোগে ঢাকা আর্মি স্টেডিয়ামে অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে দক্ষিণ এশিয়ার সবচেয়ে বড় লোকসংগীতের উৎসব “ঢাকা ইন্টারন্যাশনাল ফোকফেস্ট, আন্তর্জাতিক লোকসংগীত উৎসব-২০১৮”।

অনুষ্ঠানের শুরুতেই স্বাগত বক্তব্য দিয়েছেন সান ফাউন্ডেশন ও সান কমিউনিকেশনস লিমিটেড-এর চেয়ারম্যান  জনাব অঞ্জন চৌধুরী। তিনি বলেন, লোকসংগীত আমাদের শেকড় ও অন্তরের সুরকে তুলে আনে। আমাদের সাংস্কৃতিক পরিচয়কে হাজার বছর ধরে গভীরভাবে বহন করছে আমাদের সকলের প্রিয় এই লোকসংগীত। সান ফাউন্ডেশনের অন্যতম প্রধান লক্ষ্য বাংলাদেশে লোকসংগীতের শক্তিশালী প্ল্যাটফর্ম তৈরি করা এবং শিল্পীদের প্রাপ্য সম্মান ও রয়্যালটি নিশ্চিত করা। সেই বিষয়টিকে সামনে রেখে গত তিন বছরের ন্যায় এবারও আপনাদের সকলের জন্য এই আয়োজন। সকলের অংশগ্রহণ এবং সহযোগিতার মাধ্যমেই লোকসংগীতকে বিশ্বের সামনে তুলে ধরা সম্ভব তাই আসুন শেকড়ের টানে সবাই এক হয়ে যাই।’

উৎসবে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বিশিষ্ট অর্থনীতিবিদ, কূটনীতিক, ভাষাসৈনিক ও মুক্তিযোদ্ধা গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের মাননীয় অর্থমন্ত্রী জনাব আবুল মাল আবদুল মুহিত।

অনুষ্ঠানের উদ্বোধন শেষে তিনি বলেন, প্রকৃতিগতভাবেই বাংলার লোকসংগীত যথেষ্ট সমৃদ্ধ ও ঐতিহ্যের দিক থেকেও অন্যদের তুলনায় বিশেষভাবে উন্নত। বর্তমান সময়ে আধুনিক প্রযুক্তি ব্যবহারের ফলে লোকসংগীত পেয়েছে নতুন মাত্রা। তাই দেশ ও দেশের বাইরে লোকসংগীতকে ছড়িয়ে দেওয়া এবং বাংলার তৃণমূল পর্যায় থেকে শেকড়ের শিল্পীদের তুলে আনার এক যুগান্তকারী সংযোজন “ঢাকা ইন্টারন্যাশনাল ফোকফেস্ট”।

উৎসবে সম্মানিত অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের সংস্কৃতি বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের মাননীয় মন্ত্রী জনাব আসাদুজ্জামান নূর এম. পি। তিনি তার সংক্ষিপ্ত বক্তৃতায় বলেন, 'ঢাকা ইন্টারন্যাশনাল ফোকফেস্ট- আন্তর্জাতিক লোকসংগীত উৎসব' প্রতি বছরই আমাদেরকে দেশি-বিদেশি নতুন নতুন শিল্পীদের সাথে পরিচয় করিয়ে দেয়। এটা আমাদের জন্য সান ফাউন্ডেশন কর্তৃক বিশেষ প্রাপ্তি। লোকসংগীত- মানুষ, মাটি ও প্রকৃতির গভীর থেকে অন্তরের শুদ্ধ সুর তুলে আনে এবং এর চর্চা ও প্রসারের মধ্য দিয়েই আধুনিক ও উন্নত সাংস্কৃতিক সমৃদ্ধির বাংলাদেশ গড়া সম্ভব।

ঢাকা দক্ষিণ সিটি কর্পোরেশনের মেয়র জনাব মোহাম্মদ সাঈদ খোকন বলেন, “ঢাকা ইন্টারন্যাশনাল ফোকফেস্ট” এর জন্য আমরা প্রতি বছরই অপেক্ষা করে থাকি এবং অনুষ্ঠানের তিনদিন আনন্দের সাথে সবাই শেকড়ের সুরে মিশে যাই। বাংলাদেশসহ সারাবিশ্বে ছড়িয়ে পড়ুক বাংলার লোকসংগীত।

ঢাকা ব্যাংক লিমিটেড এর ম্যানেজিং ডিরেক্টর ও সিইও জনাব সৈয়দ মাহবুবুর রহমান বলেন, বাংলাদেশের স্থানীয় ব্যাংক হিসেবে লোকসংগীতের সাথে থাকতে পেরে আমরা গর্বিত এবং ঢাকা ব্যাংক বিশ্বাস করে লোকসংগীতের সুর চড়িয়ে পড়বে সারাবিশ্বে। গ্রামীণফোনের ডেপুটি সিইও ও চিফ মার্কেটিং অফিসার  জনাব ইয়াসির আজমান বলেন, সাংস্কৃতিক পরিচয় বহনকারী আমাদের এই লোকসংগীত দেশের গন্ডি পেরিয়ে ছড়িয়ে যাক বিশ্বময়।

বাংলাদেশ আর্মি স্টেডিয়ামে অনুষ্ঠিত মেরিল নিবেদিত তিন দিনব্যাপী ‘ঢাকা ইন্টারন্যাশনাল ফোকফেস্ট-২০১৮’ এর অনুষ্ঠান সন্ধ্যা ৬ থেকে শুরু হয়ে চলবে রাত ১২ টা পর্যন্ত। দেশি-বিদেশি শিল্পীদের অংশগ্রহণের মধ্য দিয়ে এক জাঁকজমকপূর্ণ মিলনমেলায় পরিণত হয় উৎসবটি।

এবারে বাংলাদেশসহ বিশ্বের ৭টি দেশ থেকে ১৭৪ জন লোকসংগীত শিল্পী অনুষ্ঠানের তিনদিনে তাদের পরিবেশনার মধ্যদিয়ে শেকড় সন্ধানী গানগুলো দর্শকের সামনে তুলে ধরার নিমিত্তে জড়ো হচ্ছেন একমঞ্চে। গতবারের আসরের মতন এবারও দর্শকরা বিনামূল্যে শুধুমাত্র অনলাইনে রেজিস্ট্রেশনের মাধ্যমে অনুষ্ঠানটি সরাসরি উপভোগ করছে। ফেসবুকের ‘ঢাকা ইন্টারন্যাশনাল ফোক ফেস্ট’ পেইজটিতে পাওয়া যাচ্ছে আয়োজনের সকল তথ্য। অনুষ্ঠানটির টেলিভিশন সম্প্রচারের দায়িত্বে আছে মাছরাঙা টেলিভিশন। এ ছাড়াও গ্রামীণফোনের অনলাইন ভিডিও স্ট্রিমিং সার্ভিস- বায়োস্কোপ লাইভে থাকবে অনুষ্ঠানটি লাইভ দেখার সুযোগ এবং পুরো অনুষ্ঠানটি সরাসরি শুনতে পারবেন রেডিও দিনরাত-এ।

‘ঢাকা ইন্টারন্যাশনাল ফোকফেস্ট, আন্তর্জাতিক লোকসংগীত উৎসব-২০১৮’র প্রথমদিনে দর্শক মাতাতে বাংলাদেশ থেকে থাকছেন ভাবনা নৃত্য দল ও বাউল শিল্পী আব্দুল হাই দেওয়ান। এ ছাড়াও বিদেশি শিল্পীদের তালিকায় থাকছেন পোল্যান্ড থেকে আগত “ডিস্ক অফ দ্য ইয়ার” অ্যাওয়ার্ড জয়ী বলকান এবং জিপসী ঘরানার ব্যান্ড দিকান্দা এবং ভারত থেকে পাটিয়ালা ধাঁচের সুফী গানে অনুপ্রাণিত ওয়াদালি ব্রাদার্স ও কোলকাতার জনপ্রিয় শিল্পী সাত্যকি ব্যানার্জি।

‘ঢাকা ইন্টারন্যাশনাল ফোকফেস্ট, আন্তর্জাতিক লোকসংগীত উৎসব ২০১৮’-এর টাইটেল স্পন্সর মেরিল, পাওয়ার্ড বাই ঢাকা ব্যাংক লিমিটেড, ইন অ্যাসোসিয়েশন উইথ গ্রামীণফোন, সাপোর্টেড বাই রাঁধুনী, ব্রডকাস্ট পার্টনার মাছরাঙা টেলিভিশন, পেমেন্ট পার্টনার বিকাশ, লজিস্টিক পার্টনার বেঙ্গল ডিজিটাল, রেডিও পার্টনার রেডিও দিনরাত, পিআর পার্টনার মিডিয়াকম, মেডিক্যাল পার্টনার স্কয়ার হসপিটালস্ লিমিটেড, ইন্স্যুরেন্স পার্টনার গার্ডিয়ান লাইফ ইন্স্যুরেন্স, সিকিউরিটি পার্টনার এইজিস সিকিউরিটি ফোর্স, হসপিটালিটি পার্টনার ফোর পয়েন্টস বাই শেরাটন, ঢাকা এবং রেজিস্ট্রেশন পার্টনার সহজ, বেভারেজ পার্টনার ফ্রেশ, উৎসবের আয়োজক সান কমিউনিকেশনস লিমিটেড।

দেশ ও দেশের গন্ডি পেরিয়ে সর্বস্তরের মানুষের কাছে লোকসংগীতকে পৌঁছে দেওয়া এবং এর সংরক্ষণ ও পৃষ্ঠপোষকতা করাই সান ফাউন্ডেশন এর লক্ষ্য। বাংলাদেশের লোকসংগীত শিল্পীদের রয়্যালটি এবং তাদের সত্ত্ব নিশ্চিত করার উদ্দেশ্যে সান ফাউন্ডেশন কাজ করবে। আমাদের লোকসংগীতের বিশাল রত্মভান্ডারকে বিশ্বের দরবারে পরিচিত করার এই ধারাবাহিকতা আগামীতেও অব্যাহত থাকবে। 



মন্তব্য