kalerkantho


নগ্ন হতে বলা হয়েছিল হলিউডের এই বিখ্যাত দিভাকেও!

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

১২ জুন, ২০১৮ ২২:৫২



নগ্ন হতে বলা হয়েছিল হলিউডের এই বিখ্যাত দিভাকেও!

প্রত্যেকটা অভিনেতার কাছে জীবনে প্রথম অডিশন স্মরণীয় হয়ে থাকে। সেই অভিনেতা যখন পরবর্তী জীবনে স্টার হন, তখন নস্টালজিয়া হয়ে থাকে সেই অডিশন। কিন্তু এই দিনটার কথা ভুলতে চান হলিউড বিউটি ক্যুইন পেনেলোপি ক্রুজ। কারণ ওইদিন তাঁর জীবনে অত্যন্ত অপমানজনক একটি দিন।

সম্প্রতি সাগ আফট্রা ফাউন্ডেশনকে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে তিনি বলেন, “আমার জীবনে প্রথম বড় ব্রেক আসে ২০ বছর বয়সে। দুর্ধর্ষ একটি ছবিতে লিড রোলে অভিনয় করার সুযোগ পাই। আমেরিকা একটি বিখ্যাত প্রযোজনা সংস্থার সিনেমা ছিল সেটি। অডিশনের দিন আমায় কোন স্ক্রিপ্ট ছাডা়ই একটা বড় সংলাপ বলতে বলা হয়। আমি সাহস সঞ্চয় করে সেটা বলেও ফেলি। যারা অডিশন নিচ্ছিলেন তাঁরা মুগ্ধও যান। এরপর আমায় কিছুক্ষণ বাইরে বসতে বলা হয়। ঘন্টাখানেক পরে আমায় ছবির নির্মাতারা এসে জানায় যে আমি সিলেক্টেড। স্ক্রিন টেস্টের জন্য প্রস্তুত কিনা জানতে চাওয়া হয়। আমি এক্সাইটেড হয়ে ‘হ্যাঁ’ বলি। এরপর আমায় জানায় যে স্ক্রিপ্টের বাইরে বেশ কয়েকটি ঘনিষ্ঠ দৃশ্য আছে যেখানে নাকি আমায় নগ্ন হতে হবে। শুনে আমি খানিকটা স্তম্ভিত হয়ে যাই। এরপর আমি বিন্দুমাত্র বিবেচনা করে সটান তাঁদের না বলে দিই।”

গতবছর থেকে হলিউডের একাধিক নামীদামী প্রযোজক, পরিচালক, অভিনেতা বিরুদ্ধে কাস্টিং কাউচ, যৌন হেনস্থার মতো একাধিক অভিযোগে সরগরম হয় সারা বিশ্ব। হলিউডের যৌন নিগ্রহের কাহিনীতে ক্রমশই প্রকাশ্যে আসছে তাবড় তাবড় ব্যক্তিত্বের নাম। গত বছরের অক্টোবর মাসেই এই বিষয়ে প্যান্ডোরার বাক্স যেন খুলে গিয়েছে। বিখ্যাত মহিলা প্রযোজক হার্ভে উইনস্টেইন বিরুদ্ধে যৌন হেনস্থা অভিযোগ আনেন। তার পর এই ধরনের একাধিক অভিযোগ সামনে আসে। ফলে এক সন্দেহের বৃত্তে এসে পড়েছে হলিউডের প্রযোজক মহল।

সম্প্রতি এরকম নিন্দনীয় ঘটনায় নাম জড়ায় অস্কারপ্রাপ্ত অভিনেতা মর্গ্যান ফ্রিম্যানের। অভিযোগ যৌন হেনস্থার। তবে কোনও অভিনেত্রীর নয়! সম্প্রতি এক প্রোডাকশন অ্যাসিসট্যান্ট অভিনেতার বিরুদ্ধে এমন অভিযোগ আনেন। তাঁর দাবি, অনেকবার বারণ করা সত্ত্বেও, মিস্টার ফ্রিম্যান তাঁকে অশালীন ভাবে ছুঁতেন৷ আপত্তি জানাবার পরও, মর্গ্যান তাঁর এই ব্যবহার থেকে বিরত হন না।

২০১৭ সালের ফিল্ম ‘গোয়িং ইন স্টাইল’ ছবির প্রোডাকশন টিমে ছিলেন সেই মহিলা। সম্প্রতি এক সাক্ষাৎকারে মহিলাটি জানান, “শ্যুটিং ফ্লোরে মর্গ্যানের দ্বারা তাঁকে প্রায় রোজই কোন না কোন ভাবে হয়রানির শিকার হতে হয়েছে। কখনও অভিনেতা তাঁকে তাঁর ফিগার নিয়ে টিজ করতেন, কখনও তাঁর পোষাক নিয়ে কুমন্তব্য করতেন। এমনকি তাঁর কোমড়েও বহুবার অনুচিতভাবে হাত দিয়েছেন”।


মন্তব্য