kalerkantho


কেমন ছিলো তাদের ভালোবাসার গল্প?

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

২৪ মে, ২০১৮ ১৬:৪৮



কেমন ছিলো তাদের ভালোবাসার গল্প?

বিয়ের পর স্বামী স্ত্রী দুজনকেই অনেক কিছু মেনে নিতে হয়‚ মাঝে মাঝে অ্যাডজাস্টও করতে হয়। বলিউডের সেলিবরাও এর ব্যতিক্রম নয়। দিলীপ কুমার ও সায়রা বানুর কথাই ধরুন। তাদের ও বহু ওঠাপড়ার মধ্যে দিয়ে যেতে হয়েছে। দিলীপ কুমার সায়রা বানুর থেকে ২২ বছরের বড় কিন্তু তাতেও তাদের সম্পর্ক ফাটল ধরেনি। ২০১৬‘র ১১ অক্টোবর দাম্পত্য জীবনের ৫০ বছর পূর্ণ করেন তারা। আর সেই সময় একটা সাক্ষাৎকারে সায়রা জানিয়েছিলেন বিয়ের পর তাকে এবং দিলীপ কুমারকেও বহুবার কঠিন সময়ের মধ্যে দিয়ে যেতে হয়েছে। কিন্তু পরিস্থিতি যত খারাপই হোক না কেন একে অপরের প্রতি কোনদিনই বিশ্বাস হারাননি তারা।

সেই সাক্ষাৎকারে সায়রা জানিয়েছেন দিলীপের সঙ্গে তার প্রথম সাক্ষাতের কথা। তার কথায় 'আমি যখন লন্ডনে ছিলাম তাকে প্রথমবার দেখি। সেই সময় আমি স্কুলে পড়তাম। আমি স্বপ্ন দেখতাম যে আমি অক্সফোর্ড স্ট্রিটে শপিং করছি আর তিনি তার গাড়িতে করে আমার পাশে এসে দাঁড়াবেন।'

দিলীপ কুমার সেই সময় একজন প্রতিষ্ঠিত নায়ক। তাই এটাই স্বাভাবিক যে তার প্রচুর মহিলা ভক্ত ছিল। সায়রাও তাদের মধ্যে একজন ছিলেন। এই ব্যাপারে কথা বলতে গিয়ে সায়রা বলেন 'তিনি সান্তাক্রুজে প্রায়ই আমাদের বাড়িতে আসতেন। আমার বাবা মায়ের ( মহম্মদ এহ্সান‚ নাসীম বানু) সঙ্গে ভালো পরিচয় ছিল তার। তিনি ভীষণ হ্যান্ডসাম ছিলেন।'

সায়রার কাছে জানতে চাওয়া হয় সেই সময়ই কি তিনি দিলীপ কুমারকে প্রপোজ করেছিলেন। উত্তরে নায়িকা বলেন 'না‚ আমার তখন খুবই অল্প বয়স। কিন্তু সেই সময়ই আমি তার কাছে আমার হৃদয় হারিয়েছিলাম।'

আর সব থেকে ইন্টারেস্টিং ব্যাপার হলো দিলীপ প্রথমদিকে সায়রার সঙ্গে কাজ করতে রাজি ছিলেন না। সায়রা বানুর কথায় 'তিনি প্রথমদিকে আমার সঙ্গে কাজ করতে রাজি ছিলেন না। কারণ তিনি আমাকে বাচ্চা মনে করতেন।'

কিন্তু এর ছ’মাস পরেই একদিন সায়রাকে দেখে অভিভূত হয়ে যান দিলীপ এবং তার প্রেমে পড়েন। এই ব্যাপারে কথা বলতে গিয়ে সায়রা বলেন 'আমার দিকে তাকিয়ে তিনি বললেন ও গড! তুমি তো বড় হয়ে গেছ এবং ভীষণ সুন্দর দেখাচ্ছে তোমাকে। সেদিন আমি একটা শাড়ি পরেছিলাম‚ এর পরেরদিন তিনি আমাকে ফোন করেন এবং আমাদের কোর্টশিপ পিরিয়ড চালু হয়।' তিনি আরো যোগ করেন 'আমি যাকে ভালোবাসি তাঁর সঙ্গে ৫০ বছর কাটাতে পেরেছি। এর থেকে বেশি আমি আর কী বা চাইতে পারি। আমি সত্যি খুব লাকি।'

কিন্তু এমন একটা সময় আসে যখন দিলীপ কুমার আসমা রহমান নামে একজন মহিলার প্রেমে পড়েন। এই পরিস্থিতির কীভাবে মোকাবিলা করেন সেই কথা বলতে গিয়ে সায়রা বলেন 'দিলীপ সাব নিজেই আমার কাছে স্বীকার করেন তিনি ভুল করেছেন। আমরা দুজনেই কঠিন পরিস্থিতির সামনে পড়ি। তিনি আমাকে তার পাশে থাকতে বলেন। ধৈর্য ধরতে বলেন। আমি তাকে বিশ্বাস করেছিলাম। পরিস্থিতি আমাদের দুজনের জন্যেই খুব কঠিন ছিল। কিন্তু দুজনে মিলে তা অতিক্রম করি। এই ঘটনার ফলে আমাদের সম্পর্ক আরো দৃঢ় হয়।'

'বিয়ের সময় আমরা একে অপরকে প্রতিজ্ঞা করেছিলাম যে আমাদের জীবেনে অন্য কোনো পুরুষ বা মহিলা আসবে না। আমরা দুজনেই মুসলিম কিন্তু তাও তিনি আমার কাছে প্রতিজ্ঞা করেছিলেন তিনি আমার পর অন্য কোনো মহিলাকে বিয়ে করবেন না।'

- ইন্টারনেট থেকে


মন্তব্য